মেইন ম্যেনু

আর্সেনিকে বাড়ে নিউমোনিয়ার ঝুঁকি

আর্সেনিকের প্রভাবে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। সম্প্রতি আইসিডিডিআর,বি এবং আন্তর্জাতিক গবেষকদের এক গবেষণায় এমন তথ্য উঠে এসেছে।

গবেষণায় দেখা গেছে যে, পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের মধ্যে যারা আর্সেনিকে আক্রান্ত তাদের নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হবার ঝুঁকি অন্যদের তুলনায় দ্বিগুণ।

২০১২ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বর সময়কালে আইসিডিডিআর,বি’র ফিল্ড সাইট মতলবে এ গবেষণা কার্যক্রম পরিচালিত হয়। কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘মেইলমেন স্কুল অব পাবলিক হেলথ’ এবং ‘জনস হপকিন্স ব্লুমবার্গ স্বুল অব পাবলিক হেলথ’ এর গবেষকদের সহায়তায় এ গবেষণা কার্যক্রমটি পরিচালিত হয়।

গবেষণা প্রক্রিয়া সম্পর্কে আইসিডিডিআর,বি সূত্র জানায়, গবেষণাটির জন্য মারাত্মক ও অতিমারাত্মক নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত এক মাস থেকে পাঁচ বছর বয়সী ১৫৩ জন শিশুর প্রস্রাবের নমুনা সংগ্রহ করে আর্সেনিকের ঘনত্ব বিশ্লেষণ করা হয়। পাশাপাশি ২৯২ জন সুস্থ শিশুর প্রস্রাবের নমুনা পরীক্ষা করে উভয় ফলাফলের তুলনা করা হয়।

শিশুর দৈহিক ওজন ও উচ্চতাসহ সংশ্লিষ্ট ঝুঁকিগুলো বিবেচনা করার পর আর্সেনিকের সঙ্গে নিউমোনিয়ার যোগসূত্র পাওয়া গেছে বলেও জানা যায়।

দেশের ৩.৫ কোটিরও বেশি মানুষ যে পানি ব্যবহার করছে, তাতে আর্সেনিকের ঘনত্ব বাংলাদেশের জাতীয় মান এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশিকার চেয়ে বেশি বলেও এই প্রতিবেদনে জানানো হয়।

গবেষণাটির জ্যেষ্ঠ পরামর্শদাতা এবং আইসিডিডিআর,বির মতলব হাসপাতালের প্রাক্তন প্রধান ড. মোহাম্মদ ইউনুস বলেন, ‘আর্সেনিকের দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ‘সিডি৪ টি’ (CD4 T) কোষের সংখ্যা কমিয়ে ফেলে। ফলে মানবদেহের সার্বিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়।’

তিনি জানান, ‘সিডি৪ টি’ কোষ বিভিন্ন রোগ সংক্রমণকারী জীবাণু থেকে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার অভিযোজনের মাধ্যমে মানুষকে রক্ষা করে থাকে।

‘জনস হপকিন্স ব্লুমবার্গ স্বুল অব পাবলিক হেলথ’ এর ডিপার্টমেন্ট অব ইটারন্যাশনাল হেলথ এর সহকারী অধ্যাপক ড. ক্রিস্টিন মেরী জর্জের মতে, আর্সেনিকের অল্প বা মাঝারী প্রভাবও শিশুদের নিউমোনিয়ার ঝুঁকিতে ফেলতে পারে। কারণ পানীয় জলে আর্সেনিক থাকলে তা শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে দুর্বল করে দেয়, যা সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলে।

গবেষকদের মতে, বিশ্বে শিশুমৃত্যুর জন্য দায়ী অন্যতম একটি সংক্রামক রোগ হলো নিউমোনিয়া। বিশ্বে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুমৃত্যুর প্রায় ১৫ শতাংশই এর কারণে ঘটে।

একটি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ২০১৩ সালে সারা বিশ্বে পাঁচ বছেরর কম বয়সী প্রায় ৯ লাখ ৩৫ হাজার শিশু নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। বাংলাদেশেও পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুমৃত্যুর প্রধান কারণ নিউমোনিয়া; যা এই বয়সী শিশুদের মোট মৃত্যুসংখ্যার প্রায় ২৭ শতাংশ।

তবে গবেষকরা আশাবাদী যে, এই গবেষণার মাধ্যমে সমস্যা সমাধনের নতুন পথ দেখা যাবে এবং বিশ্বব্যাপী নিউমোনিয়ার প্রাদুর্ভাব কমানো সম্ভব হবে।



(পরের সংবাদ) »