মেইন ম্যেনু

আর স্কুলে যাবে না আফরোজা!

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বংকিরা মাধ্যমিক বিদ্যায়ের দশম শ্রেনীর ছাত্রী আফরোজা খাতুন (১৫) রোববার দুপুরে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। সে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কুতুবপুর গ্রামের তোফাজ্জেল হোসেনের মেয়ে।

বাবার অভাব অনটনের কারণে সদর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামে নানা বাড়ি থেকে পড়ালেখা করতো। চুয়াডাঙ্গার সিন্দুরিয়া পুলিশ ক্যাম্পের তদন্ত কর্মকর্তা কাজী বায়োজিদ জানান, রোববার সকালে আফরোজা বাবা মা সাংসারিক বিষয়াদি নিয়ে ঝগড়ায় লিপ্ত হয়। মেয়ে উভয়কে থামানোর চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়। এ নিয়ে অভিমান সে বিষপান করে।

তিনি আরো জানান, তাকে উদ্ধার করে নিকটস্থ বদরগঞ্জ বাজারের পল্লী চিকিৎসক ডাঃ শাহজাহানের কাছে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষনা করেন। এ ব্যাপারে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। কোন অভিযোগ না থাকায় পুলিশের পক্ষ থেকে লাশ ময়না তদন্ত ছাড়াই দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

এদিকে স্কুলের মেধাবী ছাত্রী আফরোজার মৃত্যুতে বংকিরা স্কুলে শোকের ছায়া নেমে আসে। খবর পেয়ে তার সহপাঠী ও শিক্ষকরা ছুটে যান কুতুবপুর গ্রামে।