মেইন ম্যেনু

আলোকবর্ষ কী?

অনেকেই মনে করে আলোকবর্ষ বুঝি সময়ের কোনও হিসাব। আসলে আলোকবর্ষ দিয়ে মোটেও কিন্তু সময়ের হিসাব করা হয় না। হিসাব করা হয় দূরত্বের।

আমরা ছোট ছোট দূরত্বের হিসাব করি সেন্টিমিটার, ইঞ্চি, ফুট, মিটার ব্যবহার করে। কিন্তু বড় বড় দূরত্বে হিসাব করতে ব্যবহার করা হয় কিলোমিটার কিংবা মাইল ব্যবহার করা হয়। কিন্তু অনেক অনেক বড় দূরত্ব হিসাব করতে মাইল কিংবা কিলোমিটার ব্যবহার করলে অসুবিধায় পড়তে হয়।

মহাকাশের একটা নক্ষত্রে থেকে আরেকটা নক্ষত্রের দূরত্ব মাপতে গেলে তখন মিলিয়ন-বিলিয়ন মাইল বা কিলোমিটারে এসে পড়ে। তখন এত বড় সংখ্যা বলতে বা লিখতে গেলেও বেশ ঝামেলায় পড়তে হয়। তাই আলোর বেগকে মাথায় রেখে নতুন ধরনের এক দূরত্বের একক প্রবর্তন করা হয়েছে।

আমরা জানি, আলোর বেগ ৩ লক্ষ কিলোমিটার। অর্থাৎ এক সেকেণ্ডে আলো ৩ লক্ষ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে। তাহলে আলো ১ দিনে পাড়ি দেয় ৩ লক্ষ x ৩৬০০ কিলোমিটার পথ অতিক্রম পথ। তাহলে আলো এবছরে যে দূরত্ব অতিক্রম করে তাহলে ৩ লক্ষ x ৩৬০০ x ৩৬৫ কিলোমিটার পথ।

এত বড় সংখ্যা পাশাপাশি লিখতে হিসাবে ভুল হবার সম্ভাবনা থাকে। তাহলে ৫ বছরে ১০ বছরে কিংবা ২০ বছরে আলো কতটুকু যায় সেগুলো পাশাপাশি দেখাতে গেলে কি জটিল পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে ভাবা যায়!

এর বদলে আলোকবর্ষে লিখলে বিষয়টা কত সহজ হয়। তাই আলো ১ বছরে যে দূরত্বে অতিক্রম করে তাকে এক আলোকবর্ষ বলে। তেমনি ৫ বছরে আলো যতটুকু যায় তাকে ৫ আলোকবর্ষ বলে।