মেইন ম্যেনু

আসছে অস্ট্রেলিয়া, অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ বাংলাদেশেই

আগামী বছরের জানুয়ারিতে আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ বাংলাদেশেই হবে। আইসিসি সভায় এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
এছাড়া অস্ট্রেলিয়া দল তাদের বাংলাদেশ সফরের সূচি নতুন করে চূড়ান্ত করবে বলে দুবাই থেকে জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা।

সম্প্রতি নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে বাংলাদেশ সফর বাতিল করে অস্ট্রেলিয়া। এই সফরে তাদের টাইগারদের বিরুদ্ধে দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলার কথা ছিলো।

এই ইস্যুটি নিয়ে আগামী বছর বাংলাদেশে অনুষ্ঠেয় আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ নিয়েও ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছিলো।

জঙ্গি হামলার আশঙ্কায় অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল বাংলাদেশ সফর বাতিল করে। দক্ষিণ আফ্রিকাও সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশে তাদের নারী ক্রিকেট দল না পাঠানোর। যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্র তাদের নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশে রেড এলার্ট জারির পর এক ধরনের আতঙ্কই পেয়ে বসে বিদেশীদের মধ্যে। তাদের বক্তব্য বাংলাদেশ নিরাপদ নয়। তারওপর দু’জন বিদেশী হত্যাকাণ্ডে বেনামি আইএসের উপস্থিতির খবর শঙ্কা ছড়িয়ে দেয়।

এ পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠে যায়, আগামী বছর জানুয়ারিতে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ নিয়েই প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। ভারতের মুম্বাই মিরর পত্রিকায় রিপোর্ট প্রকাশ হয়েছে, আইসিসির নীতি নির্ধারকরা বাংলাদেশ থেকে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার প্রস্তাব করার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। একই সঙ্গে সম্ভাব্য বিকল্প ভেন্যু হিসেবে ভারত, শ্রীলংকা কিংবা সংযুক্ত আরব আমিরাতের কথাও লিখেছে তারা।

তবে, এসব জল্পনা-কল্পনার অবসান হয়েছে অবশেষে। বাংলাদেশেই থাকছে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ আয়োজনের দায়িত্ব এবং যথা সময়েই যুবাদের বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে। দুবাইতে অনুষ্ঠিত আইসিসির বোর্ড সভায় নেয়া হয়েছে এই সিদ্ধান্ত। শুধু তাই নয়, অচিরেই অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল বাংলাদেশে আসবে বলে জানানো হয়েছে আইসিসির বোর্ড সভা থেকে।

জানুয়ারিতে যুব বিশ্বকাপ যথা সময়ে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হবে এবং খুব দ্রুত অস্ট্রেলিয়া দল বাংলাদেশে আসবে বলে জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন। রোববার দুবাইয়ে আইসিসির মিটিং হয়েছে। তবে ওই বৈঠকে জানুয়ারিতে যুব বিশ্বকাপ বাংলাদেশের পরিবর্তে অন্য কোনো দেশে হবে বলে কোনোরকম আলোচনা হয়নি, এমনকি কেই এই বিষয়ে আপত্তি করেননি বলে জানান বিসিবির প্রধান নির্বাহী। যুব বিশ্বকাপে বিকল্প ভেন্যুর ব্যবস্থা নেই। তবে যদি করা হয়, সে বিষয়ে আগামী নভেম্বরে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।দুবাই হতে মুঠোফোনে এ বিষটি নিশ্চিত করেন নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সুজন।

দুবাইতে ৯ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে আইসিসির পাঁচ দিনব্যাপী সভা। প্রথম দিন প্রধান নির্বাহীদের সভা শেষে গতকাল হয়েছে এফটিপি ও গভর্নেন্স কমিটির সভা। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পরিচালনা পর্ষদের সভাটি হবে সোমবার ও মঙ্গলবার।