মেইন ম্যেনু

আসছে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ

চলতি জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসে দেশের বিভিন্ন স্থানে মৃদু, মাঝারি থেকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। এছাড়া মার্চে দেশের বিভিন্ন স্থানে কালবৈশাখী অথবা বজ্রঝড় হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের জানুয়ারি থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত তিন মাসের আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাসে একথা বলা হয়।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, জানুয়ারিতে দেশে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। জানুয়ারি মাসে সামগ্রিকভাবে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে একটি মাঝারি থেকে তীব্র ধরনের শৈত্যপ্রবাহ ও অন্যত্র এক থেকে দুটি মৃদু অথবা মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। তবে সার্বিকভাবে এ মাসের গড় তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে এক ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি থাকতে পারে।

জানুয়ারিতে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে এবং নদ-নদী অববাহিকায় মাঝারি অথবা ঘন কুয়াশা এবং অন্যত্র হালকা অথবা মাঝারি কুয়াশা পড়তে পারে।

জানুয়ারিতে প্রধান নদ-নদীসমূহে পানির প্রবাহ স্বাভাবিক থাকবে। ফেব্রুয়ারি মাসে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

ফেব্রুয়ারির প্রথমার্ধে দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে একটি মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। এ মাসের প্রথমার্ধে নদ-নদীর অববাহিকা ও অন্যত্র সকালের দিকে হালকা অথবা মাঝারি ধরনের কুয়াশা থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

ফেব্রুয়ারি মাসে দিন ও রাতের তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাবে।

ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে ১ অথবা ২ দিন বজ্রঝড় হতে পারে। মার্চ মাসে সামগ্রিকভাবে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

মার্চে দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে এক থেকে ২ দিন মাঝারি-তীব্র কালবৈশাখী-বজ্রঝড় ও দেশের অন্যত্র ২ থেকে ৩ দিন হালকা অথবা মাঝারি কালবৈশাখী অথবা বজ্রঝড় হতে পারে।

মার্চে দিনের তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে বেড়ে প্রায় স্বাভাবিক ৩৪ থেকে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হতে পারে। তবে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে তাপমাত্রা ৩৭ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হতে পারে।