মেইন ম্যেনু

আসলাম চৌধুরীকে রিমান্ডে না নেওয়ার নির্দেশ

বিচারাধীন আবেদনের নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব আসলাম চৌধুরীকে নতুন করে রিমান্ডে না নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানির জন্য আগামী মঙ্গলবার দিন ধার্য করা হয়েছে।

রোববার বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে আসলাম চৌধুরীর পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন ও ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. বশিরউল্লাহ।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার রিমান্ডের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে আসলাম চৌধুরীর পক্ষে হাইকোর্টে আবেদন করেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন।

গত ১৬ মে সরকার উৎখাতে ইসরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সঙ্গে `ষড়যন্ত্রে` জড়িত থাকার অভিযোগে আসলাম চৌধুরীকে সাত দিনের রিমান্ড দেন আদালত।

১৫ মে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে রাজধানীর খিলক্ষেত এলাকা থেকে আসলাম চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ। পরে তাকে ও তার ব্যক্তিগত সহকারী আসাদুজ্জামান এবং গাড়িচালক আল-আমিনকে মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়।

এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় থেকে আসলাম চৌধুরীসহ সাতজনের বিরুদ্ধে দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। পরে আসলাম চৌধুরীকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয় সরকার। একই সঙ্গে দেশের প্রতিটি বিমানবন্দর ও স্থলবন্দরে সতর্কবার্তা পাঠায় গোয়েন্দা সংস্থা।

সম্প্রতি ইসরায়েলের ক্ষমতাসীন লিকুদ পার্টির সদস্য মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে আসলামের একটি ছবি গণমাধ্যমে প্রকাশের পর তোলপাড় শুরু হয়। ইসরায়েল নেতার সঙ্গে তিনি ষড়যন্ত্রমূলক বৈঠক করেছেন বলেও গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়। তবে আসলাম ইসরায়েলি নেতার সঙ্গে বৈঠকের কথা অস্বীকার করে ব্যবসায়িক কারণে বিভিন্নজনের সঙ্গে তার দেখা হওয়ার কথা বলেছিলেন।