মেইন ম্যেনু

“আহা বালিকাটি যদি জানিত”

মোঃ আবু মুসা : ভাবছিলাম একটা গরম ইস্যু লইয়া লম্ফঝম্প করিব কিন্তু বয়স ঢের বাডিয়াছে, তাছাড়া ইতিমধ্যেই অনেকে আমার সুপ্ত বাসনা কার্যটা সাধন করিয়া ছাডিয়াছে, বিধায় বেশি কথা না বাড়াইয়া দু কলম লিখিতে উদ্যত হইলাম…..

এমহুত্বে আলোচিত এবং গরম খবর সদ্য অলিম্পিক সোনা বিজয়ী মার্গারিটা মামুন। একটু আধটু আঁচ করিতেছিলাম মার্গারিটা ইস্যুতে ফেসবুকে একটা ক্যাওয়াজ হইতে পারে, কপালে ছিল বলিয়া বুনো হাতি তাণ্ডব করিয়া বঙ্গ বাহাদুর উপাধি লইয়া অক্কা পাইল। এটা অবশ্য ঠিক আমরা বড় আজিব জাতী বটে।! পুকুর চোরকে সমাদর করিয়া মুরগী চোরকে ফাঁসিতে লটকে দেই। আবার রামপাল লইয়া হাপিত্যস করিতে করিতে ক্লান্ত আপামর বাঙালী জাতীর ফেনায়িত মুখে জাবর কাটিবার নব্য একটা ইস্যু অত্যন্ত আবশ্যক হইয়া উঠিয়াছিল, তবে অনুমান করিতে পারছিলুম না মার্গারিটা ইস্যুটি আসলে কি লইয়া হইবে? হইতে পারিত বালিকা কী পোশাক পরিধান করিয়া খেলায় অংশ লইলো? তাহার কি কি অদৃশ্য লুকায়িত বিষয় বস্তু গোচরিভুত হইয়াছিল? বালিকা কি ভক্ষন করিয়া কষরত শিখিয়া ছিল? কোনদিন পান্তা ইলিশ শুকনাে লঙ্কা চটকে গলধ করন করিত কি না? নিদেনপক্ষে টকশোর মুখরোচক বিষয় বস্তু হইতে পারিত। তাহার শয়ন ও ছৌচ কর্ম লইয়াও টুকটাক নাতিদীর্ঘ আনন্দঘন এমনতর নানাবিধ প্রশ্ন হইতে পারিত কিন্তু না ……… তাহা না করিয়া, বাঙ্গালী জাতী তাহার জন্ম বিতান্ত লইয়া টানা হ্যাচড়া করিতে আরাম্ভ করিয়া দিয়াছে…..বলা বাহুল্য ইহা অচিরেই জাতীয় ইস্যুতে পরিনত হইবার হার আশংঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পাইতেছে। হইতে পারে উচ্চ পর্যায়ে দলমত নির্বিশেষে তাহাকে লইয়া অচিরেই একটি বিবৃতি আমরা পাইলেও পাইতে পারি…..

লাজ লজ্জার কথা বলিয়া দয়াপরবাস জাতীকে লজ্জিত করিবার সৎ সাহস আমার নাই…

আহা মার্গারিটা যদি জানিত তাহার বঙ্গদেশীয় জ্ঞাতীকুল আজ কি আফসোসটাই না করিতেছে, আগে কেন এই বালিকাকে পেলুম না তাহলে অন্তত একটি গর্ব করিতে কসুর করিতেম না।

আত্মগর্বে গর্বিত জনৈক বক্তা কিছুটা হতাশ হইয়া বলিতে দিধান্বিত হইলে না, বালিকা আমাদের হইলে কি করিতাম! ও তো ভেজালের দেশে থাকিয়া অখাদ্য কুখাদ্য ভক্ষন করিয়া তাহার অবস্থা হইতো জ্বরা গ্রহস্থ চর্ম স্বার। যথেষ্ট বল সে পাইতো না। ইহা ভাবিবার যথেষ্ট কারনও বটে!

সে ক্ষেত্রে বলা যাইতে পারে স্বদেশীয় বৃহতাকার জৈব পদার্থ পূর্ন আপাদামস্তক বলদকুল, যাহারা অলেম্পিক কমিটির অপরিহার্য হর্তাকর্তা ভাবিয়া এহেন বালিকা কে বঙ্গীয় দেশীয় নাম ধারন করিয়া লম্ফঝম্প করার অধিকার টুকু না দিয়া নেহাত ভুল কর্মটি করে নাই।

লেখক : সিঙ্গাপুর প্রবাসী