মেইন ম্যেনু

আয়কর অব্যাহতি পেল ইএনটি ক্যান্সার হাসপাতাল

শর্ত সাপেক্ষে আয়কর থেকে অব্যাহতি পেয়েছে ইএনটি অ্যান্ড হেড-নেক ক্যান্সার ফাউন্ডেশন হাসপাতাল।

অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগ থেকে সম্প্রতি এ সংক্রান্ত আদেশ গেজেট আকারে ইস্যু করা হয়েছে। এনবিআরের একটি সূত্র বিষয়টি রাইজিংবিডিকে নিশ্চিত করেছে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান ও অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সচিব মো. নজিবুর রহমান স্বাক্ষরিত ওই আদেশপত্রে প্রতিষ্ঠানটিকে দুইটি শর্তে এই সুবিধা দেওয়া হয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে প্রতিষ্ঠানটি কেবলমাত্র চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম থেকে অর্জিত আয়ের ওপর প্রযোজ্য আয়কর থেকে অব্যাহতি পাবে।

আর শর্তাদুটি হলো- ইএনটি অ্যান্ড হেড-নেক ক্যান্সার ফাউন্ডেশন হাসপাতালে প্রদত্ত চিকিৎসা সেবা যেমন- হাসপাতালে ভর্তি, তৎপরবর্তী আবাসিক চিকিৎসা সুবিধা, বহির্বিভাগীয় পরামর্শ বা ব্যবস্থাপত্র, প্যাথলজিক্যাল পরীক্ষা ও সার্জারিসহ আনুষঙ্গিক ইত্যাদি চিকিৎসা সুবিধার ৩০ শতাংশ গরীব ও অসহায় রোগীদের জন্য বিনামূল্যে প্রদানের ব্যবস্থা করতে হবে। এ ছাড়া উক্ত প্রতিষ্ঠানকে ১৯৮৪ সালের আয়কর অধ্যাদেশের অধীন দাখিলকৃত আয়কর রিটার্নের একটি অনুলিপিসহ প্রদয়ে চিকিৎসা সেবাসংক্রান্ত পরিসংখ্যান ও প্রয়োজনীয় তথ্যদি প্রতি ত্রৈমাসিক ভিত্তিতে এনবিআর কর্তৃক নির্ধারিত ছকে উপ-কর কমিশনারের নিকট দাখিল করতে হবে।

প্রতিষ্ঠানটি সূত্রে জানা যায়, ২০০৪ সালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে ইএনটি হাসপাতালটি প্রতিষ্ঠিত হয়। তবে ২০১৩ সালের ১৯ জুন আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে। ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ১২ তলা ভবন নির্মাণের কথা থাকলেও বর্তমানে ১০০ শয্যা ও ৮ তলা পর্যন্ত নির্মাণকাজ সম্পন্ন হয়েছে।
ইনস্টিটিউটটি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সরকারি পরিচালনাধীন সবচেয়ে বড় হাসপাতাল। এখানে অটোলজি (কর্ণতন্ত্র), রাইনোলজি (নাসিকাতন্ত্র), ল্যারিংগোলজি (স্বরতন্ত্র), হেড-নেক সার্জারি ও শিশু নাক গলা রোগ-এ পাঁচটি উপ-বিভাগসহ ৪টি বিশ্বমানের প্রযুক্তি-নির্ভর অত্যাধুনিক অপারেশন থিয়েটার রয়েছে বলা জানা গেছে।