মেইন ম্যেনু

আ.লীগের টিকিটে এমপি হতে চান জ্যোতিকা জ্যোতি

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে প্রার্থী হলেন অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি। তিনি ময়মনসিংহ-৩ আসনে প্রার্থী হয়েছেন। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় আওয়ামীলীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে নিজের মনোনয়ন পত্র দাখিল করেন। সাবেক স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ও ময়মনসিংহ-৩ গৌরীপুর আসনের সংসদ সদস্য ডা. ক্যাপ্টেন (অব.) মজিবুর রহমান ফকিরের মৃত্যুর পর গৌরীপুর আসনটি শূন্য হয়। শূন্য আসনে এমপি পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে অংশ নিতে মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন জ্যোতি।

জ্যোতি বলেন, ‘আমার এলাকার মানুষের আগ্রহে প্র্রার্থী হয়েছি। মনোনয়ন পত্র দাখিল করেছি। আমি সবসময়ই বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী ছিলাম। বঙ্গবন্ধু কন্যা আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা যদি আমাকে যোগ্য মনে করে প্রার্থী করেন তাহলে নিশ্চয়ই এলাকাবাসীর আগ্রহ ও ভালোবাসাকে সম্মান জানিয়ে নির্বাচনে লড়াই করবো।’

অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ার আশা ব্যক্ত করে জ্যোতি আরও বলেন, ‘আর যদি দলীয় প্রার্থী নাও হতে পারি তাও আফসোস নেই। এলাকাবাসী আমার প্রতি যে ভালোবাসা প্রদর্শন করেছে তা রাজনীতিতে আমাকে আগামী দিনের পথ চলতে সাহায্য করবে।’

তফসিল অনুযায়ী আগামী ১৮ জুলাই গৌরীপুর শূন্য আসনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে তফসিল ঘোষণার পরপরই আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক অঙ্গনসহ সব শ্রেণির মানুষের মধ্যে এখন তুমুল আলোচনা কে পাচ্ছেন নৌকার মনোনয়ন। ইতোমধ্যে নৌকা প্রতীকের প্রত্যাশায় নবীন-প্রবীণ মিলিয়ে আওয়ামী লীগের ২২ প্রার্থী আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে জ্যোতিও একজন। জানা যায়, আজ প্রার্থীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের পর সন্ধ্যায় প্রার্থী ঘোষণা করবে আওয়ামীলীগ।

মঞ্চ, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রে সমানতালে অভিনয় করে দর্শকনন্দিত হয়েছেন জ্যোতি। পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক আন্দোলনেও সোচ্চার ছিলেন তিনি। জ্যোতিকা জ্যোতি ২০০৪ সালে লাক্স-আনন্দধারা ফটোজেনিক প্রতিযোগিতায় সেরা দশে স্থান করে নিয়েছিলেন।

জ্যোতির বাড়ি ময়মনসিংহের গৌরীপুরে। আনন্দমোহন কলেজ থেকে ইংরেজিতে মাস্টার্স করার পর তার বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নেবার কথা ছিল। মাস্টার্সে থাকতেই যোগ দেন ময়মনসিংহের বহুরূপী থিয়েটারে। তবে এ নাট্যদলের হয়ে মঞ্চে ওঠার সুযোগ হয়নি তাঁর। বিসিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণের পরিবর্তে অভিনয়ের নেশা পেয়ে বসে তাকে। সারাহ বেগম কবরীর ‘আয়না’ ছবিতে সুযোগ পান। এরপর থেকে অভিনয়ই তার ধ্যান-জ্ঞান। এবার হয়তো তাকে রাজনীতির মঞ্চে দেখা যাবে।