মেইন ম্যেনু

আ. লীগ পরিচয় দিলে সবচেয়ে খারাপ জায়গায় পোস্টিং

চিকিৎসক-রোগীর স্বার্থ সংরক্ষণে শীঘ্রই ‘চিকিৎসা সেবা আইন-২০১৬’ আসছে জানিয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, তদবিরে আওয়ামী লীগ পরিচয় দিলে তাকে খারাপ জায়গায় পোস্টিং দেয়া হবে।

বুধবার (১ জুন) রাজধানীর বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েসন (বিএমএ) অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন।

৩৪তম বিসিএম (স্বাস্থ্য) ও বিসিএস (পরিবার পরিকল্পনা) ক্যাডারের কর্মকর্তাদের যোগদান উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

ডাক্তারদের পদায়ন ও প্রমোশনের ক্ষেত্রে তদবিরে কাজ হবে না উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি যখন স্বাস্থ্যমন্ত্রী, তখন সবার স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এখানে কোনো রাজনীতি নেই। ডাক্তারদের পদায়নে কোনো রাজনৈতিক পরিচয়ে কাজ হবে না। আওয়ামী লীগের পরিচয় দিলে তাকে সবচেয়ে খারাপ জায়গায় পোস্টিং দেয়া হবে। ডাক্তারদের পদায়ন ও প্রমোশনে আমি কোনো আপস করি না।’

নতুন ডাক্তারদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘সকলের পদায়ন হবে নিজের জেলাতে। আপনাদের প্রথম কাজ হবে নিজের গ্রাম-জেলায় রোগীদের সেবা দেয়া। শুধুমাত্র ঢাকা বিভাগের নিয়োগ পাওয়া ৬০ জনকে সাময়িকভাবে অন্যত্র নিয়োগ দিতে হচ্ছে। কারণ এখানে পদ খালি নেই।’

‘শুধুমাত্র স্বামী-স্ত্রীদের একজায়গাতে নিয়োগ দেয়ার কথা বলা হয়েছে। এ নিয়োগ নিয়ে অতীতেও কোনো তদবির শুনিনি, ভবিষ্যতেও কোনো তদবিরে কাজ হবে না’, বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

ডাক্তারদের মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি থাকতে হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী আরো বলেন, ‘একটি মানবিক হাত দরকার, যে হাত রোগীকে আপন মানুষের মতো সেবা করবে। কাজে ভুল-ত্রুটি থাকতে পারে, কিন্তু ইচ্ছেটা যেন ভুল না হয়।’

মহাজোট সরকার ক্ষমতায় থাকাকালে ১৩ হাজার নতুন ডাক্তারকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘শীঘ্রই সাড়ে তিন হাজার নার্স নিয়োগ দেয়া হবে। পর্যায়ক্রমে সাড়ে ১৩ হাজার নতুন নার্স নিয়োগ দেয়া হবে।’

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. দীন মোহাম্মদ নুরুল হক, বিএমএ’র মহাসচিব ডা. এম ইকবাল, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) মহাসচিব অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজ প্রমুখ।