মেইন ম্যেনু

আ.লীগ ১৭৮, বিএনপি ২২, স্বতন্ত্র ২৭

বেশ কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে শেষ হলো পৌরসভায় ভোটগ্রহণ। প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বুধবার সকাল আটটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত ভোট নেয়া হয়।

গোলযোগের কারণে নরসিংদীর মাধবদী পৌরসভায় ভোট স্থগিত করা হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন কারণে পাঁচটি পৌরসভার ফলাফল স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।

সর্বশেষ পাওয়া ফলাফল অনুযায়ী মেয়র পদে ১৭৮টি পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী, ২২টিতে বিএনপি প্রার্থী, ১টিতে জাপা ও ২৭টিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, স্বতন্ত্র ও অন্যান্য দলের প্রার্থীরা নির্বাচিত হয়েছেন।পৌরসভা নির্বাচনের ফলাফল পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো।

ঢাকা বিভাগ

ধামরাই: আওয়ামী লীগের প্রার্থী গোলাম কবির মোল্লা নৌকা প্রতীকে ১২ হাজার ৫১৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী দেওয়ান নাজিম উদ্দিন মঞ্জু ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ১২ হাজার ৩৪৭।

সাভার: নৌকা প্রতীকে আ. লীগ প্রার্থী আব্দুল গণি ৩৫ হাজার ৬২৯ ভোট পেয়ে মেযর নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রার্থী বদিরুজ্জামান বদি ধানের শীষে ২৯ হাজার ১৫৮ ভোট পেয়েছেন।

শ্রীপুর: নৌকা প্রতীকে ২৬ হাজার ৩৩৪ ভোট পেয়ে আনিসুর রহমান মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম হয়েছেন শহীদুল্লাহ শহীদ। ধানের শীষ প্রতীকে তিনি পেয়েছেন ১৬ হাজার ১২১ ভোট।

টাঙ্গাইল সদর: জামিলুর রহমান নৌকা প্রতীকে ৪৯ হাজার ২১৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মাহামুদুল হক ধানের শীষ ২৫ হাজার ২৪৩ ভোট পেয়েছেন।

ধনবাড়ী: নৌকা প্রতকে ১০ হাজার ৪৪৬ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন খন্দকার মঞ্জুরুল ইসলাম। এসএম সুবহান ধানের শীষে ৭ হাজার ৬৭ ভোট পেয়ে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন।

মধুপুর: মাসুদ পারভেজ নৌকায় ২২ হাজার ২৫৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। এছাড়া শহীদুল ইসলাম ধানের শীষে ৪ হাজার ৬৫৩ ভোট পেয়েছেন।

মির্জাপুর: শাহাদত হোসেন নৌকায় ৯ হাজার ৫৮৪ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। হযরত আলী মিয়া ধানের শীষ প্রতীকে ৪ হাজার ৪৩২ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

ভূঞাপুর: মাকুসদুল হক নৌকা প্রতীকে ৫ হাজার ৪৭১ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী আব্দুল খালেক মণ্ডল ধানের শীষে ৫ হাজার ২৯৫ ভোট পেয়েছেন।

সখিপুর: নৌকায় আবু হানিফ আজাদ ৯ হাজার ৭১২ ভোট পেয়েছেন। আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সানার হোসেন সজীব জগ প্রতীকে ৫ হাজার ৩৯৫ ভোট পেয়েছেন।

গোপালপুর: নজরুল ইসলাম মোলান ধানের শীষে ৪ হাজার ৯১৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম বিমল রেল ইঞ্জিন প্রতীকে ৩ হাজার ৫৮৯ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

কালিহাতী: পৌরসভায় বিএনপি প্রার্থী আলী আকবর জয়ী হয়েছেন। ধানের শীষ প্রতীকে ৯ হাজার ৪১৯ ভোট পেয়েছেন। আ. লী প্রার্থী আনসার আলী নৌকায়৭ হাজার ৪৪৭ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

কিশোরগঞ্জ সদর: আ. লীগ প্রার্থী পারভেজ মিয়া নৌকা প্রতীকে ২২ হাজার ৯৭৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম বিএনপির প্রার্থী মাজহারুল হক ধানের শীষ প্রতীকে ১৭ হাজার ৮৫৯ ভোট পেয়েছেন।

কুলিয়ারচর: আবুল হাসান কাজল নৌকা প্রতীকে ৯ হাজার ৩৪৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রার্থী হাজী সাফিউদ্দিন ধানের শীষ প্রতীকে ৭ হাজার ৫৬৬ ভোট পেয়েছেন।

হোসেনপুর: নৌকা প্রতীকে আব্দুল কাইয়ুম খোকন ৪ হাজার ৮৯২ ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সৈয়দ হোসেন জগ প্রতীকে ৪ হাজার ৭৩৫ ভোট পেয়েছেন।

কটিয়াদী: শওকত ওসমান নৌকা প্রতীকে ১২ হাজার ৯৩৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তোফাজ্জল হোসেন খান ধানের শীষ প্রতীকে ৭ হাজার ৩৪৪ ভোট পেয়েছেন।

বাজিতপুর: পৌরসভায় আনোয়ার হোসেন নৌকা প্রতীকে ১০ হাজার ৪৩০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম এহসান কুফিয়া ধানের শীষ প্রতীকে ৩ হাজার ৯৫৪ পেয়েছেন।

মুন্সীগঞ্জ: হাজী মো. ফয়সাল বিপ্লব নৌকা প্রতীকে ২৭ হাজার ৩১৯ ভোট পেয়ে মেযর নির্বাচিত হয়েছেন। একেএম ইরাদত মানু ধানের শীষে ৫ হাজার ৮৩১ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

মীরকাদিম: নৌকা প্রতীকে ১৩ হাজার ৪৬৪ ভোট পেয়ে শহিদুল ইসলাম শাহীন নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মনসুর আহমেদ কালাম মোবাইল প্রতীকে ৪ হাজার ৭৬৯ ভোট পেয়েছেন।

ভৈরব: ফখরুল আলম নৌকায় ৩০ হাজার ৯৯৩ ভোট পেয়ে মেযর নির্বাচিত হয়েছেন। অপর দিকে হাজী শাহিন ধানের শীষ প্রতীকে ১৯ হাজার ৯৫৩ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

করিমগঞ্জ: হাজী আব্দুল কাইয়ুম জগ প্রতীকে ১০ হাজার ১৪১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। কামরুল ইসলাম মামুন নৌকা প্রতীকে ৪ হাজার ৫৯২ ভোট পেয়েছেন।

নরসিংদী: কামরুজ্জামান কামরুল নৌকা প্রতীকে ৩৯ হাজার ৬০০ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। এস এম কাইয়ুম মোবাইল প্রতীকে ১২ হাজার ৭২৬ ভোট পেয়েছে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন।

মাধবদী : নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে।

মনোহরদী: নৌকা প্রতীকে ৭ হাজার ৬২৬ ভোট পেয়ে আমিনুর রশিদ সুজন নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম মাহমুদুল হক ধানের শীষে ১২ হাজার ২৪ ভোট পেয়েছেন।

তারাবো: হাসিনা গাজী নৌকা প্রতীকে ৩৯ হাজার ৮২১ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে রিটার্নিং কর্মকর্তা। ধানের শীষে নাসির উদ্দিন ভুইয়া ৫ হাজার ৯৪৪ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

সোনারগাঁও: আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাদিকুর রহমান সাদেক সোনারগাঁও নারিকেল গাছ প্রতীকে ৯ হাজার ১১১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম হয়েছেন ফজলে রাব্বি । তিনি নৌকা প্রতীকে ৬ হাজার ১৮০ ভোট পেয়েছেন।

মানিকগঞ্জ: আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী কাজী কামরুল হুদা সেলিম নারিকেল গাছ ১৩ হাজার ৪৪৭ ভোট পেয়েছেন। নাসির উদ্দিন আহমেদ যাদু ধানের শীষ প্রতীকে ১১ হাজার ৫৫৭ ভোট পেয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

সিংগাইর : ১০ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

রাজবাড়ী: মোহাম্মদ আলী চৌধুরী নৌকা প্রতীকে ১৮ হাজার ৬৯৩ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। অর্নব নেওয়াজ মাহমুদ রিশিদ ধানের শীষ প্রতীকে ১১ হাজার ৩১২ নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন।

পাংশা: নৌকায় ১২ হাজার ৪২৭ ভোট পেয়ে আব্দুল্লা আল মাসুদ বিশ্বাস মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছে রিটার্নিং কর্মকর্তা। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী চাঁদ আলী খান ধানের শীষে ২ হাজার ২২৬ ভোট পেয়েছেন।

গোয়ালন্দ: শেখ মো. নিজাম জগ প্রতীকে ৬ হাজার ৬৭২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নজরুল ইসলাম মণ্ডল নৌকায় ৪ হাজার ৭৪৯ ভোট পেয়েছেন।

বোয়ালমারী: আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোজ্জাফর হোসেন বাবলু (জগ) ৭ হাজার ৫৭৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুর শুকুর ধানের শীষ নিয়ে পেয়েছেন ৫ হাজার ৭৭৪ ভোট।

নগরকান্দা: নৌকা প্রতীকে ৪ হাজার ১৯৭ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন রায়হান উদ্দীন। সাইফুল ইসলাম মুকুল ধানের শীষে এক হাজার ৩০০ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

গোপালগঞ্জ: আ. লীগের প্রার্থী লিয়াকত হোসেন লিকু নৌকায় ১৭ হাজার ১৬ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী মুসফিকুর রহমান লিটন ৪ হাজার ৭২০ ভোট পেয়েছেন।

টুংগীপাড়া: আ. লীগ প্রার্থী শেখ আহমেদ হোসেন মির্জা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

মাদারীপুর: খালিদ হাসান ইয়াদ নৌকা প্রতীকে ২০ হাজার ৮০৯ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। মিজানুর রহমান মুরাদ ধানের শীষ প্রতীকে ৪ হাজার ৮৪৫ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

শিবচর: নৌকা প্রতীকে আওলাদ হোসেন খান ১০ হাজার ১৩৭ ভোট পেয়ে মেযর নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তোফাজ্জল হোসেন খান নারিকেল গাছ প্রতীকে ৪৯১ ভোট পেয়েছেন।

শরীয়তপুর: রফিকুল ইসলাম কোতয়াল নৌকা প্রতীকে ১৬ হাজার ৮৫০ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। ধানের শীষ প্রতীকে নাসির উদ্দিন কালু ৩ হাজার ৮১৬ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

নড়িয়া: হায়দার আলী নৌকা প্রতীকে ৬ হাজার ১৫৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম শহিদুল ইসলাম বাবু নারিকেল গাছ প্রতীকে ৪ হাজার ৪৬৫ ভোট পেয়েছেন।

ডামুড্যা: আ. লীগ প্রার্থী বাচ্চু ছৈয়াল নৌকায় ৪ হাজার ৯৬৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন বলে জানিয়েছে রিটার্নিং কর্মকর্তা। আলমগীর মাতবর ধানের শীষ প্রতীকে ৩ হাজার ২৬ ভোট পেয়ে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হয়েছেন।

জাজিরা: নৌকা প্রতীকে ইউনুস বেপারি ৩ হাজার ৮৩৩ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী খোকন তালুকদার নারিকেল গাছ প্রতীকে ২ হাজার ৮০০ ভোট পেয়ে নিকটতম হয়েছেন।

ভেদরগঞ্জ: আব্দুল মান্নান হাওলাদার নৌকায় ৩ হাজার ৩৫৭ ভোট পেয়ে গোলাম মোস্তফা মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। গোলাম মোস্তফা ধানের শীষ ১২ হাজার ৭১ ভোট পেয়েছেন।

চট্টগ্রাম বিভাগ

সীতাকুণ্ড: সীতাকুণ্ডে আওয়ামী লীগসমর্থিত বদিউল আলম ১৪ হাজার ৮৩২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত আবুল মনসুর পেয়েছেন ২ হাজার ৯৪২ ভোট।

রাংগুনিয়া: আওয়ামী লীগ সমর্থিত শাহজাহান শিকদার ১২ হাজার ৯৮৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী হেলাল উদ্দীন পেয়েছেন ২ হাজার১৫৭ ভোট।

বারইয়ারহাট: আওয়ামী লীগ সমর্থিত নিজাম উদ্দীন ৫ হাজার ৬৬৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মাইনুদ্দীন লিটন পেয়েছেন ৪৩৮ ভোট।

রাউজান: আওয়ামী লীগ সমর্থিত দেবাশীষ পালিত ২৮ হাজার ১৬২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত আবদুল্লাহ আল হাসান পেয়েছেন ২ হাজার ১২০ ভোট।

পটিয়া: আওয়ামী লীগ সমর্থিত হারুন-অর- রশিদ ১২ হাজার ৯৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তহিদুল আলম পেয়েছেন ৭ হাজার ৫৩৫ ভোট।

মীরসরাই: আওয়ামী লীগ সমর্থিত গিয়াস উদ্দিন ৭ হাজার ২৯৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী রফিকুল ইসলাম পারভেজ পেয়েছেন ৪৭৫ ভোট।

সাতকানিয়া: আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো. জুবায়ের ২০ হাজার ৫৪২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী রফিকুল আলম পেয়েছেন ২ হাজার ৭৯।

চান্দনাইশ: আওয়ামী লীগ সমর্থিত মাহবুবুল আলম ১১ হাজার ৫২১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী এলডিপি সমর্থিত প্রার্থী মো. আইয়ুব আলী পেয়েছেন ২ হাজার ৫৭০।

সন্দীপ: আওয়ামী লীগ সমর্থিত জাফরুল্লা টিটু ২০ হাজার ৬৯০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আজমত আলী বাহাদুর ৪৪৬ ভোট।

বাঁশখালী: আওয়ামী লীগ সমর্থিত সেলিমুল হক ১৩ হাজার ৩৩০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী কামরুল ইসলাম হুসাইনি পেয়েছেন ৬ হাজার ৩৫০ ভোট।

আখাউড়া: আওয়ামী লীগ সমর্থিত তাকজিল খলিফা কাজল ১৪ হাজার ৬৯৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী হাজী মন্তাজ মিয়া পেয়েছেন ৩ হাজার ২৩ ভোট।

হোমনা: আওয়ামী লীগ সমর্থিত অ্যাড. নজরুল ইসলাম ৭ হাজার ৬৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র সমর্থিত প্রার্থী জহিরুল ইসলাম জহির পেয়েছেন ৩ হাজার ৩৮৬।

চান্দিনা: আওয়ামী লীগ সমর্থিত মফিজুল ইসলাম ১৮ হাজার ৯৭৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী শাহ মো. আলমগীর পেয়েছেন ২ হাজার ৩৫৭ ভোট।

লাকসাম: আওয়ামী লীগ সমর্থিত আবুল খায়ের ১৮ হাজার ১৪৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী শাহনাজ আক্তার পেয়েছেন ১০ হাজার ৬৮০ ভোট।

দাউদকান্দি: আওয়ামী লীগ সমর্থিত নাঈম ইউসুফ সেইন ১৬ হাজার ৩১২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী টিএমআই খলিল পেয়েছেন ৩ হাজার ৪২১ ভোট।

বরুড়া: বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী জসিম উদ্দিন পাটোয়ারি ১১ হাজার ৯১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী বাহাদুরুজ্জামান পেয়েছেন ৫ হাজার ৯৯৭ ভোট।

চৌদ্দগ্রাম: আওয়ামী লীগ সমর্থিত মিজানুর রহমান ১২ হাজার ৫০৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ইমাম হোসেন পাটোয়ারী পেয়েছেন ৫ হাজার ৫১৩ ভোট।

হাজীগঞ্জ: আওয়ামী লীগ সমর্থিত আ.স.ম মাহবুবুল লিপন ১২ হাজার ৯৯৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আব্দুল মান্নান খান পেয়েছেন ১২১৭২ ভোট।

ছেংগারচর: বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী রফিকুল আলম জজ নির্বাচিত হয়েছেন।

ফরিদগঞ্জ: আওয়ামী লীগ সমর্থিত মাহফুজুল হক ৬ হাজার ৪২২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী হারুন-অর-রশিদ পেয়েছেন ৪ হাজার ৯১০ ভোট।

কচুয়া: আওয়ামী লীগ সমর্থিত নাজমুল আলম স্বপন ১০ হাজার ৭৩৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী হুমায়ুন কবির প্রধান পেয়েছেন ১ হাজার ৪৭৫ ভোট।

মতলব: আওয়ামী লীগ সমর্থিত আউলাদ হোসেন লিটন ২৩ হাজার ৯৬৫ পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী এনামুল হক বাদল পেয়েছেন ৭ হাজার ৬৮৫ ভোট।

ফেনী: বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী হাজী আলাউদ্দিন নির্বাচিত হয়েছেন।

দাগনভূঁইঞা: আওয়ামী লীগ সমর্থিত ওমর ফারুক ১০ হাজার ৭১৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী সাইদুর রহমান স্বপন পেয়েছেন ১ হাজার ৪১৭ ভোট।

পরশুরাম: বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী সাজেল নির্বাচিত হয়েছেন।

বসুরহাট: আওয়ামী লীগ সমর্থিত আব্দুল কাদের মির্জা ৯ হাজার ৪২১ ভোট ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত কামাল আহমেদ চৌধুরী পেয়েছেন ১ হাজার ৭৫৬ ভোট।

চৌমুহনী: আওয়ামী লীগ সমর্থিত আকতার হোসেন ফয়সাল ৭ হাজার ৩২৭ ভোট ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত হারুনুর রশিদ হারুন পেয়েছেন ৫ হাজার ৭৯৩ ভোট।

হাতিয়া: আওয়ামী লীগ সমর্থিত একেএম ইউসুফ আলী ৯ হাজার ৩৩২ ভোট ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী পেয়েছেন ৭ হাজার ২৬৪ ভোট।

রামগঞ্জ: আওয়ামী লীগ সমর্থিত আবুল খায়ের পাটোয়ারী ১৯ হাজার ৬৫৭ ভোট ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত রুম্মন পাটোয়ারি পেয়েছেন ২ হাজার ২০৯ ভোট।

রামগতি: আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেজবাউদ্দিন ৯ হাজার ৮৬৭ ভোট ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টি সমর্থিত আজাদ উদ্দিন চৌধুরী পেয়েছেন ১ হাজার ৬১১ ভোট।

রায়পুর: আওয়ামী লীগ সমর্থিত ইসমাইল হোসেন ১৩ হাজার ৮৪৬ ভোট ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত এবিএম জিলানী পেয়েছেন ৬০৯ ভোট।

খাগড়াছড়ি: নাগরিক কমিটি সমর্থিত রফিকুল আলম ৯ হাজার ৪১৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো. শানে আলম পেয়েছেন ৫ হাজার ৫৩৭ ভোট।

মাটিরাঙ্গা: আওয়ামী লীগ সমর্থিত শামসুল হক ৭ হাজার ৩৩৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত বাদশা মিয়া পেয়েছেন ৩ হাজার ৩৮৬ ভোট।

রাঙামাটি: আওয়ামী লীগ সমর্থিত আকবর হোসেন চৌধুরী ১৭ হাজার ৯৪৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী গঙ্গা মানিক চাকমা পেয়েছেন ১০ হাজার ১৯৮ ভোট।

বান্দরবান: আওয়ামী লীগ সমর্থিত ইসলাম বেবি ৮ হাজার ৭০৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টি সমর্থিত মিজানুর রহমান বিপ্লব পেয়েছেন ৪ হাজার ৪৫৮ ভোট।

লামা: আওয়ামী লীগ সমর্থিত জহিরুল ইসলাম ৬ হাজার ৬০৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটত প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত আমির হোসেন পেয়েছেন ২ হাজার ৮৩৫ ভোট।

রাজশাহী বিভাগ

সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জ সদর থেকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুর রউফ মুক্তা নৌকা প্রতীক নিয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৪০ হাজার ৮ ভোট পান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির অ্যাড. মোকাদ্দেছ আলীকে পেয়েছেন ২৪ হাজার ৭শ` ১৫ ভোট।

কাজিপুর : কাজিপুরে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নৌকা প্রতীক ৭ হাজার ৮২৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুস সালাম নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৭৩ ভোট এবং বিএনপি প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মাসুদ রায়হান মুকুল পেয়েছেন ৮৮ ভোট।

রায়গঞ্জ: রায়গঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে ৯টি কেন্দ্রের মধ্যে সবকটির ফলাফলে আওয়ামী লীগের গাজী আব্দুল্লাহ আল পাঠান নৌকা প্রতীক নিয়ে তিন হাজার ৯৬৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক পেয়েছেন দুই হাজার ৯৩৬ ভোট।

উল্লাপাড়া: উল্লাপাড়া পৌরসভার ১৭টি কেন্দ্রের সবকটি কেন্দ্রের ফলাফলে আওয়ামী লীগের প্রাথী নজরুল ইসলাম নৌকা প্রতীক নিয়ে ১৬ হাজার ৮শ` ৮৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপির বেলাল হোসেন ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৮ হাজার ২শ` ৬০ ভোট।

বেলকুচি : বেলকুচি পৌরসভা নির্বাচনে ২৫টি কেন্দ্রের সবকটি কেন্দ্রের ফলাফলে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আশানুর বিশ্বাস নৌকা প্রতীক নিয়ে ২৪ হাজার ৬শ` ৬০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আল আমিন ভুইয়া জামাল ধানের শীষ প্রতীক পেয়েছে ৮ হাজার ১শ` ৭৫।

শাহজাদপুর : শাহজাদপুর পৌরসভা নির্বাচনে ২৫টি কেন্দ্রের মধ্যে সবকটি কেন্দ্রের ফলাফলে আওয়ামী লীগের হালিমুল হক মিরু নৌকা প্রতীক নিয়ে ২১ হাজার ৮শ` ৮১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির নজরুল ইসলাম ধানের শীষ প্রতীক পেয়েছে ৭ হাজার ৭শ` ৩ ভোট।

পাবনা: পাবনা সদরের বিজয়ী মেয়র প্রার্থী কামরুল হাসান মিন্টু (স্বতন্ত্র প্রার্থী) ভোট পেয়েছেন ৩০ হাজার ৫শ` ৪৭। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের রকিব হাসান টিপু। তিনি ভোট পেয়েছেন ২৪৬৫৪।

ঈশ্বরদী: ঈশ্বরদী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আবুল কালাম আজাদ মিন্টু ২৬ হাজার ৯শ` ৭২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মোখলেছুর রহমান বাবলু। তিনি ৯ হাজার ৩শ` ১৭ ভোট পেয়েছেন।

চাটমোহর : চাটমোহরে স্বতন্ত্র প্রার্থী মির্জা রেজাউল করিম দুলাল ৩৫ হাজার ৩৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী অধ্যাপক আব্দুল মান্নান ২৯ হাজার ৩ ভোট পেয়েছেন।

ভাঙ্গুরা: ভাঙ্গুরায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী গোলাম হাসনাইন রাসেল পেয়েছেন ৪৮ হাজার ৫৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আজাদ খান ৩৫ হাজার ৪১ ভোট পেয়েছেন।

সুজানগর: সুজানগরে আওয়ামী লীগের আব্দুল ওহাব ৬ হাজার ৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেন তোফা ভোট পেয়েছেন ৫০৯৬টি।

ফরিদপুর: ফরিদপুরে আওয়ামী লীগের খন্দকার কামরুজ্জামান মাজেদ পেয়েছেন ৩৯ হাজার ৮৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির এনামুল হক পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৭৮ ভোট।

সাঁথিয়া: সাঁথিয়ায় আওয়ামী লীগের মিরাজুল ইসলাম প্রামাণিক পেয়েছেন ১২ হাজার ৪শ` ৬০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সিরাজুল ইসলাম সিরাজ পেয়েছেন ৮ হাজার ৮০ ভোট।

নাটোর: নাটোর সদর পৌরসভায় মেয়র পদে উমা চৌধুরী জলি ১৯ হাজার ২শ` ৬৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী এমদাদুল হক আল মামুন পেয়েছেন ১৬ হাজার ২শ` ৬ ভোট।

সিংড়া: সিংড়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী জান্নাতুল ফেরদৌস পেয়েছেন ১৪ হাজার ৫শ` ৭০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শামিম আল রাজি পেয়েছেন চার হাজার ৩শ` ৯৩ ভোট।

গোপালপুর: গোপালপুর পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম মোলাম চার হাজার ৯শ` ১৫ ভোট পেয়ে মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা মঞ্জুরুল ইসলাম বিমল পেয়েছেন ৩ হাজার ৫শ` ৮৯ ভোট।

গুরুদাসপুর : গুরুদাসপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শাহনেওয়াজ আলী মোল্লা ৯ হাজার ৫৪ ভোট পেয়ে মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আমজাদ হোসেন পেয়েছেন ৫ হাজার ৪শ` ৯৪ ভোট।

নলডাঙ্গা : নলডাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে সফির উদ্দিন মণ্ডল ৩ হাজার ১৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আব্বাস আলী নান্নু পেয়েছেন এক হাজার ৬শ` ৯৫ ভোট।

বড়াইগ্রাম : বড়াইগ্রাম পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল বারেক সরদার ৫ হাজার ২৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থী শরিফুল হক মুক্তা পেয়েছেন ৩ হাজার ৮১ ভোট।

জয়পুরহাট: জয়পুরহাট সদর পৌরসভায় ২০টি কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী নৌকা প্রতীক নিয়ে মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক ২৭ হাজার ৭শ` ৪৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত ও তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে শামছুল হক ১২ হাজার ৩শ` ৫৫ ভোট পেয়েছেন।

কালাই: কালাই পৌরসভায় ৯টি ভোট কেন্দ্রে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। তার মধ্যে আওয়ামী লীগ প্রার্থী খন্দকার হালিমুল আলম জন নৌকা প্রতীক নিয়ে ৬ হাজার ৮শ` ৪৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সাজ্জাদুর রহমান সোহেল ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ১৫শ` ভোট পেয়ে পরাজিত হন।

আক্কেলপুর: আক্কেলপুর পৌরসভায় ৯টি ভোট কেন্দ্রে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। তার মধ্যে আওয়ামী লীগ প্রার্থী গোলাম মাহফুজ চৌধুরী অবসর নৌকা প্রতীক নিয়ে ৬ হাজার ৬শ` ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির রেজাউল করিম ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ৩ হাজার ৮শ` ৫৫ ভোট পেয়ে পরাজিত হন।

কাটাখালি: আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আব্বাস আলী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৬৬ হাজার ৮৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান মেয়র ও জামায়াত নেতা মাজেদুর রহমান পেয়েছেন ৪ হাজার ৯শ` ৩৭ ভোট।

নওহাটা: বিএনপি মনোনীত শেখ মখবুল হোসেন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ১২ হাজার ৭শ` ৮৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আব্দুল বারী খান পেয়েছেন ১১ হাজার ৬শ` ৮৯ ভোট।

মুণ্ডুমালা: আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী গোলাম রব্বানী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৬৪ হাজার ৫৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মেয়র প্রার্থী ফিরোজ কবির পেয়েছেন ৪ হাজার ৬শ` ৪৬ ভোট।

তানোর: বিএনপি মনোনীত মিজানুর রহমান বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৮ হাজার ৫শ` ৯৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ইমরুল হক মিজান পেয়েছেন ৮ হাজার ৫শ` ৮৪ ভোট। এখানে মাত্র ১৩ ভোটের ব্যবধানে ধানের শীষের প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

পুঠিয়া : বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আসাদুল হক আসাদ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৪ হাজার ৪শ` ২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রবিউল ইসলাম পেয়েছেন ৪ হাজার ১শ` ৩২ ভোট।

ভবানীগঞ্জ: আওয়ামী লীগের আবদুল মালেক মণ্ডল বেসরকারভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৬ হাজার ১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির পৌরসভা শাখার সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক পেয়েছেন ৫ হাজার ৮৬ ভোট।

তাহেরপুর: আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৫ হাজার ৯শ` ৪৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আবু নঈম শামসুর রহমান মিন্টু পেয়েছেন ৩ হাজার ১শ` ৮১ ভোট।

চারঘাট: বিএনপি মনোনীত জাকিরুল ইসলাম বিকুল বেসরকারভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৭ হাজার ৫শ` ২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী নার্গিস খাতুন পেয়েছেন ৭ হাজার ৩শ` ৯৬ ভোট।

গোড়াদাগাড়ী: আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মনিরুল ইসলাম বাবু বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ১০ হাজার ২শ` ৭৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মনোনীত আনোয়ারুল ইসলাম পেয়েছেন ৬৬ হাজার ১৬ ভোট।

কাঁকনহাট: আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আব্দুল মজিদ মাস্টার বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৫ হাজার ৮শ` ৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত হাফিজুর রহমান পেয়েছেন ৪ হাজার ৪শ` ৪০ ভোট।

দুর্গাপুর: আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৭ হাজার ৯০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হাসানুজ্জামান সান্টু পেয়েছেন ৪ হাজার ৭ম` ২৯। এখানে বিএনপি প্রার্থী মোট ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ২৩। বিজয়ী প্রার্থী মোট ২ হাজার ৩শ` ৬১ ভোটের ব্যবধান বিজয়ী হয়েছেন।

কেশরহাট: আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী শহিদুজ্জামান শহিদ বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৭ হাজার ৩শ` ৪৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র (জামায়াত) ডাক্তার হাফিজুর রহমান আকন্দ পেয়েছেন ৪ হাজার ৯শ` ৯৬ ভোট।

আড়ানী: আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মুক্তার আলী বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৫ হাজার ১শ` ৯৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত তোজাম্মেল হক পেয়েছেন ২ হাজার ৭শ` ৫১ ভোট।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: নজরুল ইসলাম জগ প্রতীক নিয়ে ৩১ হাজার ৫শ` ৪ ভোট পেয়ে আওয়ামী লীগের শামিউল হক লিটনকে পরাজিত করেছেন। লিটন ৩০ হাজার ৫শ` ৪ ভোট পেয়েছেন।

রহনপুর: ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে তারেক আহমেদ জয়ী হয়েছেন। তারেক ৯ হাজার ৫শ` ১৭ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের গোলাম রাব্বানী ভোট পেয়েছেন ৭ হাজার ৬শ` ৩২।

শিবগঞ্জ: স্বতন্ত্র প্রার্থী কারিবুল হক রাজিন নারকেল গাছ প্রতীক নিয়ে মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ১০ হাজার ৩শ` ১০ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাফর আলী জগ প্রতীক নিয়ে ৬ হাজার ১শ` ৫৭টি ভোট পেয়েছেন।

নাচোল: নৌকা প্রতীক নিয়ে আব্দুর রশিদ খান মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৩ হাজার ২শ` ১৮ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আমানুল্লাহ মাসুদ রেল ইঞ্জিন প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ২ হাজার ৭শ` ২০টি।

বগুড়া: বগুড়া সদর পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান ধানের শীষ প্রতীকে ১ লাখ ৭ হাজার ৩৪০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম মন্টু নৌকা প্রতীক নিয়ে ৪৯ হাজার ৪১৭ ভোট পেয়েছেন।

শেরপুর: শেরপুরে আওয়ামী লীগের আবদুস সাত্তার নৌকা প্রতীক নিয়ে ৮ হাজার ৯১১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বাধীন কুণ্ড ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৬১৭২ ভোট।

সারিয়াকান্দি: আওয়ামী লীগের প্রার্থী আলমগীর শাহী সুমন নৌকা নিয়ে ৭ হাজার ৭৭৬ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার কাছে পরাজিত ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লড়া বিএনপির প্রার্থী টিপু সুলতান পেয়েছেন ২ হাজার ৪৪৭ ভোট।

গাবতলী: সাইফুল ইসলাম সাইফ ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ৭ হাজার ১৭১ ভোট বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুল জলিল জগ নিয়ে পেয়েছেন ২ হাজার ২৩৬ ভোট।

সান্তাহার : বিএনপি প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেন ধানের শীষ প্রতীকে ৮ হাজার ৮৬৭ ভোট পেয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী রাশেদুল ইসলাম রাজাকে পরাজিত করেছেন। রাজা নৌকা প্রতীক নিয়ে ৮ হাজার ১৬৯ ভোট পেয়েছেন।

কাহালু: পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হেলাল উদ্দিন কবিরাজ নৌকা প্রতীক নিয়ে ৪ হাজার ৭৫৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আব্দুল মান্নান ধানের শীষ প্রতীকে ৩ হাজার ৪৬৭ পেয়েছেন।

ধুনট: পৌরসভায় স্বতন্ত্র প্রার্থী এজিএম বাদশা জগ প্রতীক নিয়ে ৪ হাজার ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী আলিমুদ্দিন হারুন মন্ডল ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ হাজার ৪৬৪ ভোট।

নন্দীগ্রাম: কামরুল হাসান সিদ্দিকী জুয়েল জগ প্রতীক নিয়ে জয় লাভ করেছেন। তিনি ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৪৪৩। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী সুশান্ত কুমার শান্ত ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৪ হাজার ৩৪৬ ভোট।

শিবগঞ্জ: পৌরসভায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী তৌহিদুর রহমান নৌকা নিয়ে ৭ হাজার ৩৬৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আব্দুল মতিন নৌকা প্রতীক নিয়ে ৫ হাজার ৯৮৭ ভোট পেয়েছেন।

জয়পুরহাট: পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক নৌকা প্রতীক নিয়ে ২৭ হাজার ৭৪৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির শামসুল হক ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ১২ হাজার ৩৫৫ ভোট পান।

কালাই: পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী খন্দকার হালিমুর আলম নৌকা প্রতীক নিয়ে ৬ হাজার ৮৪৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির সাজ্জাদুর রহমান সোহেল ধানের শীষ প্রতীকে ১ হাজার ৫০০ ভোট পেয়েছেন।

আক্কেলপুর: পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী গোলাম মাহফুজ চৌধুরী নৌকা ৬ হাজার ৬০০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির রেজাউল করিম ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩ হাজার ৮৫৫ ভোট।

রংপুর বিভাগ

ঠাকুরগাঁও: ফলাফল স্থগিত। যদিও শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঠাকুরগাঁও সদরে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন- বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মির্জা ফয়সাল আমিন (ধানের শীষ), ভোট পেয়েছেন ১৫৭৫৯, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত তাহমিনা আক্তার মোল্লা (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ১০৭০১।

পীরগঞ্জ: পীরগঞ্জে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত কসিরুল আলম (নৌকা); ভোট পেয়েছেন ৫৭৪৫, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত রাজিউর রহমান রাজু (ধানের শীষ), ভোট পেয়েছেন ৫১৩৬।

রাণীশংকৈল: রাণীশংকৈল মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত আলমগীর সরকার (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৪৮৮১, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াত সমর্থিত (স্বতন্ত্র) মোকাররম হোসেন (জগ) ভোট পেয়েছেন ৩৪৯১।

পঞ্চগড়: পঞ্চগড় সদরে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন, বিএনপি সমর্থিত তৌহিদুল ইসলাম (ধানের শীষ) ভোট পেয়েছেন ১৩৮৬৮, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত জাকিয়া খাতুন (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৬৭৯৮।

গাইবান্ধা: গাইবান্ধা সদরে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত অ্যাড. শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবির (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ১০৬৪৪, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ারুল সরওয়ার (রেল ইঞ্জিন), ভোট পেয়েছেন ৭২৭২।

গোবিন্দগঞ্জ: গোবিন্দগঞ্জ মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত আতাউর রহমান সরকার (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ১৫৫১০। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ফারুক আহম্মেদ (ধানের শীষ), ভোট পেয়েছেন ৫৭৯৩।

সুন্দরগঞ্জ: সুন্দরগঞ্জ মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত আব্দুল্লাহ আল মামুন (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৪৮৪১, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আজাদুর রহমান প্রামাণিক (ধানের শীষ), ভোট পেয়েছেন ১৯৯৩।

সৈয়দপুর: সৈয়দপুর বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আমজাদ হোসেন সরকার ভজে (ধানের শীষ) এগিয়ে আছেন, ভোট পেয়েছেন ২৫৮২৩, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাখাওয়াত হোসেন (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ১৯৯৫৯। ফলাফল স্থগিত।

জলঢাকা: জলঢাকা মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপি সমর্থিত ফাহমিদ ফয়সাল চৌধুরী (ধানের শীষ), ভোট পেয়েছেন ৯৬৫৫। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ইলিয়াস হোসেন বাবলু (নারিকেল গাছ), ভোট পেয়েছেন ৭৫৪০।

লালমনিরহাট: লালমনিরহাট মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন, রিয়াজুল ইসলাম রিন্টু (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ১৪৫৬১, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত আব্দুল হালিম (ধানের শীষ) ভোট পেয়েছেন ১০২২২।

পাটগ্রাম: পাটগ্রামে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন, আওয়ামী লীগ সমর্থিত শমসের আলী (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৭১৫২, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত সালাউজ্জামান ওপেল (ধানের শীষ), ভোট পেয়েছেন ৪১২৪।

দিনাজপুর: দিনাজপুর সদরে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপি সমর্থিত জাহাঙ্গীর আলম (ধানের শীষ) ভোট পেয়েছেন ৩৮৩৯৫, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত আনোয়ারুল ইসলাম (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ২৩৯৪৯।

হাকিমপুর: হাকিমপুর মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত জামিল হোসেন চলন্ত (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৮৯৮৯, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত শাখাওয়াত হোসেন শিল্পী (ধানের শীষ), ভোট পেয়েছেন ৪৯১২।

বিরামপুর: বিরামপুর মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী লিয়াকত হোসেন টুটুল (নারিকেল গাছ ), ভোট পেয়েছেন ৯৭৬৩, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত অধ্যাপক আক্কাস আলী (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৯০২৩।

ফুলবাড়ি: ফুলবাড়ি মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন খনি আন্দোলনের নেতা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মরতুজা সরকার মানিক (নারিকেল), ভোট পেয়েছেন ৬৪০৪, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত শাহজাহান আলী সরকার পুতু (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৪৭৯১।

বীরগঞ্জ: বীরগঞ্জ মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন জামায়াত সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী মাওলানা হানিফ (জগ), ভোট পেয়েছেন ৪৫০০, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত মোশাররফ হোসেন (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৩৮৪৮।

বদরগঞ্জ: বদরগঞ্জে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত উত্তম কুমার সাহা (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৬৯৯২, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আজিজুল হক (নারিকেল গাছ), ভোট পেয়েছেন ৫৯৯৫।

কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রাম সদর মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত আব্দুল জলিল (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ১৮৬৭৫, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত নুর ইসলাম নুরু (ধানের শীষ), ভোট পেয়েছেন ১৬২২৫।

নাগেশ্বরী: নাগেশ্বরী মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন জাতীয় পার্টি সমর্থিত আব্দুর রহমান (লাঙল), ভোট পেয়েছেন ১০৪৪৬। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত মোহাম্মদ হোসেন ফাকু (নৌকা), ভোট পেয়েছেন ৮৯০৫।

উলিপুর: উলিপুর মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপি সমর্থিত তারিক আবুল আলা চৌধুরী (ধানের শীষ), ভোট পেয়েছেন ৭৭৬৭, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাজ্জাদুর রহমান সাজু (নারিকেল গাছ), ভোট পেয়েছেন ৫৫৫৮।

খুলনা বিভাগ

চালনা: চালনা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সনৎ কুমার বিশ্বাস নৌকা প্রতীকে ৪৯৩৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অচিন্ত কুমার বিশ্বাস জগ প্রতীকে পেয়েছেন ২৫১৯ ভোট।

পাইকগাছা: পাইকগাছা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সেলিম জাহাঙ্গীর নৌকা প্রতীকে ৬৩৭৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের বিএম সাত্তার পেয়েছেন ২৫৭৫ ভোট।

যশোর: যশোর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের জহিরুল ইসলাম চাকলাদার নৌকা প্রতীকে ৬৩০৬৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের মারুফুল ইসলাম পেয়েছেন ২১৪৩৮ ভোট।

কেশবপুর: কেশবপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের রফিকুল ইসলাম মণ্ডল নৌকা প্রতীকে ৯৯৫৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের আব্দুস সামান পেয়েছেন ৫৭২৬ ভোট।

চৌগাছা: চৌগাছা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের নূর উদ্দিন মামুন আল হিমেল নৌকা প্রতীকে ৪৩১১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আওয়ামী লীগের প্রতীকের সাইফুর রহমান পেয়েছেন ৩৬১১ ভোট।

বাঘারপাড়া: বাঘারপাড়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের কামরুজ্জামান বাচ্চু নৌকা প্রতীকে ২৫৪১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আবু তাহের সিদ্দিকি জগ প্রতীকে পেয়েছেন ১৬২১ ভোট।

মনিরামপুর: মনিরামপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মাহমুদুল হাসান নৌকা প্রতীকে ৮১১৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের শহীদ ইকবাল হোসেন পেয়েছেন ৭২৭৩ ভোট।

নওয়াপাড়া: নওয়াপাড়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সুশান্ত কুমারি দাস নৌকা প্রতীকে ১৮৯৫৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের রফিউল হোসেন পেয়েছেন ১৫২৬৮ ভোট।

কোটচাঁদপুর: কোটচাঁদপুর পৌরসভায় নারিকেল গাছ প্রতীকে জাহিদুল ইসলাম ৬৬৫৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের সালাহ উদ্দিন বুলবুল পেয়েছেন ৫৬০৯ ভোট।

মহেশপুর: মহেশপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আব্দুর রশিদ নৌকা প্রতীকে ৯৮৭১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াতের শহীদুল ইসলাম পাখা প্রতীকে পেয়েছেন ২৯৮৮ ভোট।

হরিণাকুন্ডু: হরিণাকুন্ডু পৌরসভায় আওয়ামী লীগের শাহিনুর রহমান নৌকা প্রতীকে ৮১৭৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের জিন্নতুল হক পেয়েছেন ৩৮৭১ ভোট।

শৈলকুপা: শৈলকুপা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের কাজী আশরাফুল আজম নৌকা প্রতীকে ১৪৯৯৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের খলিলুর রহমান পেয়েছেন ৪৬১৯ ভোট।

গাংনী: গাংনী পৌরসভায় জগ প্রতীকের আশরাফুল ইসলাম ৭০৮৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আহমেদ আলী নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৫১১৬ ভোট।

কুষ্টিয়া: কুষ্টিয়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের হাজী আনোয়ার নৌকা প্রতীকে ৬৭০২২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের কুতুব উদ্দিন পেয়েছেন ৩৫১২৮ ভোট।

মিরপুর: মিরপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের এনামুল হক নৌকা প্রতীকে ৮৯৭১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুল হাসেম পেয়েছেন ১৮৮৪ ভোট।

ভেড়ামারা: ভেড়ামারা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের হাজি সামসুল নৌকা প্রতীকে ৭৪৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল আলিম পেয়েছেন ৩৭৮৪ ভোট।

কুমারখালী: কুমারখালী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সামছু জাম্মান নৌকা প্রতীকে ৮৪৩৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের তরিকুল পেয়েছেন ২৭১১ ভোট।

খোকসা: খোকসা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের তরিকুল তরিক নৌকা প্রতীকে ৭৭১৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আল মাসুম শান্ত পেয়েছেন ৩২৭৫ ভোট।

চুয়াডাঙ্গা: চুয়াডাঙ্গা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোবাইল প্রতীকে ২৪৯৮৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী রিয়াজুল নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ১০০৫৬ ভোট।

আলমডাঙ্গা: আলমডাঙ্গা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের হাসান কাবির গনি নৌকা প্রতীকে ৭২০০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের মীর মহিউদ্দিন পেয়েছেন ৫১৯০ ভোট।

জীবননগর: আলমডাঙ্গা পৌরসভায় নারিকেল গাছ প্রতীকে জাহাঙ্গীর আলম ৬৪০৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের নওয়াব আলী পেয়েছেন ৩০২৪ ভোট।

দর্শনা: দর্শনা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মতিয়ার রহমান নৌকা প্রতীকে ১১৫৫৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নুরুদ্দিন জগ প্রতীকে পেয়েছেন ৩৩৩৮ ভোট।

মাগুরা: মাগুরা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের খুরশিদ হায়দার নৌকা প্রতীকে ২৭৯৫০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের ইকবাল আক্তার খান কাপুর পেয়েছেন ১৫৪৯৬ ভোট।

নড়াইল: নড়াইল পৌরসভায় আওয়ামী লীগের জাহাঙ্গীর বিশ্বাস নৌকা প্রতীকে ১১২৪৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের জুলফিকার আলী পেয়েছেন ৪৭৬৩ ভোট।

কালিয়া: কালিয়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মুশফিকুর রহমান চামচ প্রতীকে ৩৮১২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের অহিদুজ্জামান নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ১৭৫৪ ভোট।

বাগেরহাট: বাগেরহাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগের খান হাবিবুর রহমান নৌকা প্রতীকে ৯৯৮১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হাসিবুল হাসান শিপন পেয়েছেন ৯৮৩৭ ভোট।

মোড়েলগঞ্জ: মোড়েলগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মনিরুল হক তালুকদার নৌকা প্রতীকে ১১২৪৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের আব্দুল মজিদ জব্বার পেয়েছেন ১৩৬০ ভোট।

সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরা পৌরসভায় ধানের শীষ প্রতীকের তাসকিন আহমেদ ১৬৩৪১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী লাঙ্গল প্রতীকের শেখ আজহার হোসেন পেয়েছেন ১২৪৯৭ ভোট।

কলারোয়া: কলারোয়া পৌরসভায় ধানের শীষ প্রতীকের গাজী আক্তারুল ইসলাম ৫৫৩৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আরাফাত হোসেন।

বরিশাল বিভাগ

বেতাগী: বেতাগী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের এবিএম গোলাম কবির নৌকা প্রতীকে ২১৭৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের হূমায়ুন কবির পেয়েছেন ১৫৬১ ভোট।

পাথরঘাটা: পাথরঘাটা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আনোয়ার হোসেন আকন্দ নৌকা প্রতীকে ৬০৬৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের হূমায়ুন কবির পেয়েছেন ২৬৩২ ভোট।

বরগুনা: পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন জগ প্রতীকে ৫৮৯৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের মোহাম্মদ কামরুল আহসান মহারাজ নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ২০২৫ ভোট।

কলাপাড়া: কলাপাড়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিপুল হালদার নৌকা প্রতীকে ৭১০৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের হাজী হুমায়ুন শিকদার ১৩৯৯ ভোট পেয়েছেন।

কুয়াকাটা: কুয়াকাটা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আব্দুল বারেক মোল্লা নৌকা প্রতীকে ৪০১১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী লাঙল প্রতীকের আব্দুল আজিজ মুন্সি পেয়েছেন ৬২৪ ভোট।

ভোলা: ভোলা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মনিরুজ্জামান নৌকা প্রতীকে ২০৭১২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের হারুন অর রশিদ ১৮০২ ভোট পেয়েছেন।

দৌলতখান: দৌলতখান পৌরসভায় আওয়ামী লীগের জাকির হোসেন তালুকদার নৌকা প্রতীকে ৬৯৭৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের আনোয়ার হোসেন কাকন ৬৭৯ ভোট পেয়েছেন।

বোরহানউদ্দিন: বোরহানউদ্দিন পৌরসভায় আওয়ামী লীগের রফিকুল ইসলাম নৌকা প্রতীকে ৬০৫৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের মনিরুজ্জামান কবীর ৬৪৩ ভোট পেয়েছেন।

উজিরপুর: উজিরপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের গিয়াস উদ্দিন নৌকা প্রতীকে ৬৩০১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের শহীদুল ইসলাম ২৩৬০ ভোট পেয়েছেন।

বাকেরগঞ্জ: বাকেরগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের লোকমান হোসেন ডাকুয়া নৌকা প্রতীকে ৭২২৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের মতিউর রহমান মোল্লা ১১৭৭ ভোট পেয়েছেন।

বানারীপাড়া: বানারীপাড়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সুভাস চন্দ্র শীল নৌকা প্রতীকে ৫৩৫৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের গোলাম মাহবুব মাস্টার ৪৪৩ ভোট পেয়েছেন।

মেহেন্দীগঞ্জ: মেহেন্দীগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের কামাল উদ্দিন খান নৌকা প্রতীকে ১২২০৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামী আন্দোলনের জাহাঙ্গীর গাজি আলম ১৫৬৯ ভোট পেয়েছেন।

গৌরনদী: গৌরনদী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের হারিসুর রহমান নৌকা প্রতীকে ১৮৯৫৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের শফিকুর রহমান ৭৭৬ ভোট পেয়েছেন।

মুলাদী: মুলাদী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সফিকুজ্জামান রুবেল নৌকা প্রতীকে ৯৩৫৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের আসাদ মাহমুদ ৫৯৬ ভোট পেয়েছেন।

নলছিটী: নলছিটী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের তসলিম উদ্দিন চৌধুরী নৌকা প্রতীকে ১৩০৪২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের মজিবুর রহমান ৬৪৩ ভোট পেয়েছেন।

পিরোজপুর: পিরোজপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের হাবিবুর রহমান মালেক নৌকা প্রতীকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত।

স্বরূপকাঠি: নলছিটী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের জিএম কবীর নৌকা প্রতীকে ৭৩২৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন শফিকুল ইসলাম ফরিদ।

সিলেট বিভাগ

জকিগঞ্জ: জকিগঞ্জে পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা খলিল উদ্দিন নৌকা প্রতীকে এক হাজার ৫২৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, স্বতন্ত্র প্রার্থী ফারুক আহমদ জগ প্রতীক নিয়ে ১ হাজার ৪০৪ ভোট পেয়েছেন। ১২১ ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হন খলিল।

গোলাপগঞ্জ: গোলাপগঞ্জে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সিরাজুল জব্বার চৌধুরী মোবাইল ফোন প্রতীকে ৪ হাজার ৫৮২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী আমিনুর রহমান লিপন নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে ২ হাজার ৯৮৯ পেয়েছেন। এখানে ১ হাজার ৫৯৩ ভোটের ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হন জব্বার।

কানাইঘাট: কানাইঘাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মো. নিজাম উদ্দিন আল মিজান নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে ৩ হাজার ৩৭৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান মেয়র মো. লুৎফুর রহমান নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ হাজার ৮৯৭ ভোট পেয়েছেন। ৪৮১ ভোটের ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হন মিজান।

সুনামগঞ্জ: সুনামগঞ্জ সদর পৌরসভায় নৌকা প্রতীকের আয়ুব বখত জগলুল ১৪ হাজার ৫৩৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী দেওয়ান গণিউল সালাদিন মোবাইল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১০ হাজার ৪৩৪ ভোট। ৪ হাজার ৯৯ ভোটের ব্যবধানে জগলুল বিজয়ী হয়েছেন।

ছাতক: ছাতক পৌরসভায় নৌকা প্রতীকের আবুল কালাম চৌধুরী ১০হাজার ৮২৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল ওয়াহিদ মজনু মোবাইল প্রতীক পেয়েছেন ৪ হাজার ৬৫১ ভোট। এই পৌরসভায় ৫ হাজার ৭৮৩ ভোটের ব্যবধানে আবুল কালাম চৌধুরী বিজয়ী হয়েছেন।

জগন্নাথপুর: জগন্নাথপুরে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবদুল মনাফ ৯ হাজার ৩২৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম বিএনপির রাজু আহমদ ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ৫ হাজার ৬৯১ ভোট পেয়েছেন। এখানে ৩ হাজার ৬৩৩ ভোটের বড় ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন মনাফ।

দিরাই: দিরাই পৌরসভায় নৌকা প্রতীকের মোশারফ মিয়া ৭ হাজার ৪৪২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি’ প্রার্থী মঈন উদ্দিন চৌধুরী মাসুক ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৬ হাজার ৫২৫ ভোট। ৯১৭ ভোটের ব্যবধানে মোশারফ বিজয়ী হয়েছেন।

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজার পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মো. ফজলুর রহমান নৌকা প্রতীকে ১৩ হাজার ৬৩৮ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম বিএনপি প্রার্থী অলিউর রহমান ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭ হাজার ৫৫০ ভোট।

কমলগঞ্জ: কমলগঞ্জে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী মো. জুয়েল আহমদ নৌকা প্রতীক নিয়ে ৩ হাজার ৯৯০ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী জাকারিয়া হাবিব পেয়েছেন ২ হাজার ৭৫৯ ভোট। বিএনপি প্রার্থী আবু ইব্রাহিম জমসেদ পেয়েছেন ২ হাজার ১৬৯ ভোট ।

কুলাউড়া: কুলাউড়া পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী শফি আলম ইউনুস নারিকেল গাছ প্রতীকে ৪ হাজার ২৩৪ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী কামাল উদ্দিন আহমদ জুনেদ পেয়েছেন ৪ হাজার ১৭৪ ভোট। আওয়ামী লীগের প্রার্থী একেএম সফি আহমদ সলমান পেয়েছেন ৩ হাজার ৭৮৬ ভোট ।

বড়লেখা: বড়লেখা পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আবুল ইমাম মো. কামরান আহমদ চৌধুরী নৌকা প্রতীকে ৪ হাজার ৩৭ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম (জামায়াত সমর্থীত) স্বতন্ত্র প্রার্থী খিজির আহমদ মোবাইল ফোন প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ৫৭৭ ভোট। বিএনপি প্রার্থী আনোয়ারুল ইসলাম ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ১ হাজার ৫৮২ ভোট ।

হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জ পৌরসভায় কিবরিয়া হত্যা মামলায় জেলে থাকা বিএনপি প্রার্থী ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জি কে গউছ ১০ হাজার ৭৯৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মিজানুর রহমান মিজান নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৯ হাজার ২৬৪ ভোট। আওয়ামী লীগের আতাউর রহমান সেলিম ৭ হাজার ৪০৩ ভোট পেয়ে তৃতীয় স্থান অর্জন করেন।

মাধবপুর: মাধবপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র হীরেন্দ্র লাল সাহা টানা দ্বিতীয় বারের নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনে তিনি ৫ হাজার ৭৩৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী হাবিবুর রহমান মানিক পান ৪ হাজার ৯৪৮ ভোট।

চুনারুঘাট: চুনারুঘাট পৌরসভায় তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার পর বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র নাজিম উদ্দিন সামছু টানা দ্বিতীয় বারের নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনে তিনি ৪ হাজার ৭৩৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামীলীগ প্রার্থী সাইফুল ইসলাম পান ৪ হাজার ৭২১ভোট।

শায়েস্তাগঞ্জ: শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভায় টানা দুই বারের সাবেক মেয়র বিএনপি প্রার্থী ফরিদ আহমেদ অলিকে পরাজিত করেছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী ছালেক মিয়া। নির্বাচনে ছালেক মিয়া ৩ হাজার ৯৭৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী ফরিদ আহমেদ অলি পান পান ৩ হাজার ৮৯০ ভোট।

নবীগঞ্জ: নবীগঞ্জ পৌরসভায় তিন বারের সাবেক মেয়ার আওয়ামী লীগ প্রার্থী অধ্যাপক তোফাজ্জল হোসেনকে পরাজিত করেছেন বিএনপির প্রার্থী ছাবির আহমেদ। তিন বারের কাউন্সিলার ও প্যানেল মেয়র ছাবির আহমেদ প্রথমবার নির্বাচন করেই জয়লাভ করে চমক দেখিয়েছেন। নির্বাচনে ছাবির আহমেদ ৫ হাজার ৬২১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ প্রার্থী অধ্যাপক তোফাজ্জল হোসেন পান ৩ হাজার ৭৭৩ ভোট।

ময়মনসিংহ বিভাগ

সরিষাবাড়ী: সরিষাবাড়ী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের রোকুনুজ্জামান রোকন নৌকা প্রতীকে ১৮২৪৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের ফয়জুল কবির তালুকদার শাহিন পেয়েছেন ৭৬২২ ভোট।

মেলান্দহ: মেলান্দহ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের শফিক জায়েদি নৌকা প্রতীকে ৯১৪৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের হাজী দিদার পাশা পেয়েছেন ৭৯৬০ ভোট।

জামালপুর: জামালপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের শাখাওয়াতুল আলম নৌকা প্রতীকে ৫৩৯১১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের শাহ মোহাম্মদ ওয়ারেশ আলী মামুন পেয়েছেন ১২৬৬০ ভোট।

ইসলামপুর: ইসলামপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আব্দুল কাদের শেখ নৌকা প্রতীকে ৯৯২১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের রেজাউল করীম ঢালি পেয়েছেন ৭০৫৪ ভোট।

মাদারগঞ্জ: মাদারগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের মির্জা গোলাম কিবরিয়া কবীর নৌকা প্রতীকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতা বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

দেওয়ানগঞ্জ: দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের শাহনেওয়াজ শাহান শাহ নৌকা প্রতীকে ১৬৪২১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী শেখ নুরুন্নবী অপু (আ.বি) জগ প্রতীকে পেয়েছেন ২১৪৯ ভোট।

নকলা: নকলা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের হাফিজুর রহমান লিটন নৌকা প্রতীকে ৭৭০৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নুরে আলম সিদ্দিকি জগ প্রতীকে পেয়েছেন ৫১২৩ ভোট।

নালিতাবাড়ী: নালিতাবাড়ী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আবু বক্কর সিদ্দিক নৌকা প্রতীকে ৪৭২১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের আনোয়ার হোসেন পেয়েছেন ৩৮৭১ ভোট।

শেরপুর: শেরপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন নৌকা প্রতীকে ২৩৪০৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের আব্দুর রাজ্জাক আশীষ পেয়েছেন ২৩১৪০ ভোট।

শ্রীবরদী: শ্রীবরদী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আবু সাঈদ নৌকা প্রতীকে ৭৪২৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের আব্দুল হাকিম পেয়েছেন ৬৭৭৭ ভোট।

মুক্তাগাছা: মুক্তাগাছা পৌরসভায় ধানের শীষ প্রতীকের শহীদুল ইসলাম ৯২৩৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাপার লাঙল প্রতীকের আতাউর রহমান লেলিন পেয়েছেন ৫৩২০ ভোট।

গৌরীপুর: গৌরীপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের রফিকুল ইসলাম নৌকা প্রতীকে ৭১৯৯ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নারিকেল গাছ প্রতীকের সফিকুল ইসলাম হাবি পেয়েছেন ৪১৪৮ ভোট।

ঈশ্বরগঞ্জ: ঈশ্বরগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুস সাত্তার কমান্ডার নারিকেল গাছ প্রতীকে ৭২১১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের হাবিবুর রহমান পেয়েছেন ৬৬৩৬ ভোট।

ত্রিশাল: ত্রিশাল পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী এবিএম আনিসুজ্জামান জগ প্রতীকে ৭১১৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের আমিনুল ইসলাম পেয়েছেন ৫৮৮২ ভোট।

ভালুকা: ভালুকা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের ড. একেএম মেজবা উদ্দিন নৌকা প্রতীকে ৯০৯১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের হাতেম আলী পেয়েছেন ৪৩২১ ভোট।

গফরগাঁও: গফরগাঁও পৌরসভায় আওয়ামী লীগের এসএম ইকবাল হোসেন সুমন নৌকা প্রতীকে ১২৭১৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের আব্দুল্লাহ আল মামুন পেয়েছেন ৫৮৯ ভোট।

নান্দাইল: নান্দাইল পৌরসভায় আওয়ামী লীগের রফিউদ্দিন ভুইয়া নৌকা প্রতীকে ৯২১৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের একেএম আজিজুল ইসলাম পেয়েছেন ৬২৩৬ ভোট।

ফুলপুর: ফুলপুর পৌরসভায় ধানের শীষ প্রতীকে আমিনুল হক ৪৮৩৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের শশাঙ্ক ধর সেন নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৩৮৯২ ভোট।

ফুলবাড়িয়া: ফুলবাড়িয়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের গোলাম কিবরিয়া নৌকা প্রতীকে ৭৭৯৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী জগ প্রতীকের ধান মাহমুদ পেয়েছেন ৪০৯৮ ভোট।

নেত্রকোণা: নেত্রকোণা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের নজরুল ইসলাম খান নৌকা প্রতীকে ২৬৬৬৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের এসএম মনিরুজ্জামান দুদু পেয়েছেন ১১৮৪৪ ভোট।

মদন: নেত্রকোণা পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল হান্নান তালুকদার নারিকেল গাছ প্রতীকে ৩৭৯১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের মাশরিকুর রহমান পেয়েছেন ১৭৪৮ ভোট।

মোহনগঞ্জ: মোহনগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের লতিফুর রহমান রতন নৌকা প্রতীকে ৮৪১৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের মাহাবুবুন নবী শেখ পেয়েছেন ৪৩১০ ভোট।

দুর্গাপুর: দুর্গাপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের হাজী আব্দুস সালাম নৌকা প্রতীকে ৮৪০০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের হাজী জামাল উদ্দিন পেয়েছেন ৩৯০৩ ভোট।

কেন্দুয়া: কেন্দুয়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আসাদুল হক ভুইয়া নৌকা প্রতীকে ৭৭১২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের শফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ২৭৩৫ ভোট।