মেইন ম্যেনু

ইউপি নির্বাচনের জোর প্রস্তুতি নিচ্ছে এরশাদের জাপা

প্রথম বারের মতো দলীয় প্রতীকে হচ্ছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। পৌরসভা নির্বাচনে ব্যর্থতার পর এ নির্বাচনকে সামনে রেখে জোরালো প্রস্তুতি নিচ্ছে হুসেন মুহম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টি। ইতিমধ্যে দলটি ইউপি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করেছে। পাশাপাশি শুরু করেছে, সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকা তৈরির কাজ। জেলা ও উপজেলা পর্যায়েও নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করছে জাতীয় পার্টি।

জানা গেছে, এবারের নির্বাচনে দেশের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জয় পেতে নানা পরিকল্পনা করছে জাতীয় পার্টি। তারা স্থানীয়ভাবে জনপ্রিয় দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রার্থী করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আর এবারের ইউপি নির্বাচনে ‘যোগ্য প্রার্থী’ তালিকা করবে জাতীয় পার্টির তৃণমূল নেতা-কর্মীরা।

জি এম কাদেরকে দলের নতুন কো-চেয়ারম্যান এবং এ বি এম রুহুল আমীন হাওলাদারকে নতুন মহাসচিব করার পর এরশাদ স্থানীয় নির্বাচনে ভালোভাবে অংশ নিয়ে জাতীয় পার্টিকে সারাদেশে শক্তিশালী করতে চান।

দলের মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমীন হাওলাদার রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘পার্টির চেয়ারম্যান স্থানীয় পরিষদ নির্বাচনকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। দলের জাতীয় কাউন্সিলের প্রস্তুতি গ্রহণের পাশাপাশি আমরা এই নির্বাচনে ভালোভাবে অংশ নিতে চাই। আশা করি, এই নির্বাচনের মাধ্যমে জাতীয় পার্টি আবার ঘুরে দাঁড়াবে। দেশের প্রায় সবকটি ইউনিয়নে আমরা যোগ্য প্রার্থী দেওয়ার চেষ্টা করছি। তৃণমূল নেতা-কর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে প্রার্থিতা চূড়ান্ত করা হবে।’

দলীয় সূত্র জানায়, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায় থেকে ‘যোগ্য প্রার্থী’ বাছাই করে আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে প্রার্থী তালিকা জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় দফতরে পাঠাতে বলা হয়েছে। দলের উপজেলা কমিটি ইউপি নির্বাচনের এই প্রার্থিতা বাছাইয়ের সার্বিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে। পার্টির চেয়ারম্যান ও মহাসচিবের এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দেশের প্রত্যেকটি উপজেলা কমিটির কাছে পাঠানো হয়েছে।

দলের দফতর সম্পাদক সুলতান মাহমুদ জানান, তৃণমূল নেতা-কর্মীরা প্রার্থী তালিকা ঠিক করে কেন্দ্রে পাঠাবে। এরপর নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে প্রার্থিতা চূড়ান্ত করবেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

জানা গেছে, তৃণমূল পর্যায়ে যাদের নাম সুপারিশ করে কেন্দ্রে পাঠানো হবে, তাদের আগামী বুধবার ও বৃহস্পতিবার দুই দিনের মধ্যে পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে হবে। তারপর পার্টির চেয়ারম্যান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করবেন।

এদিকে দলের মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমীন হাওলাদারকে আহ্বায়ক করে জাতীয় পার্টি সাত সদস্যের একটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করেছে। কমিটির অন্যরা হলেন- যুগ্ম আহ্বায়ক : এস এম ফয়সল চিশতী, সদস্য সচিব : অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, চার সদস্য : গোলাম মোহাম্মদ রাজু, নুরুল ইসলাম নুরু, বেলাল হোসেন ও সুলতান মাহমুদ প্রমুখ।

জানা গেছে, মহাসচিবের নেতৃত্বাধীন এই নির্বাচন পরিচালনা কমিটি ইউপি নির্বাচনের সার্বিক তদারকি করবে। দেশের জেলা ও উপজেলা কমিটির সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে নির্বাচন সংক্রান্ত যেকোনো সমস্যা ও জটিলতা তাৎক্ষণিক সমাধানের চেষ্টা করবে।

এই প্রথম দলীয় প্রতীকে সারাদেশে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হচ্ছে। নির্বাচন হবে কয়েকটি ধাপে। আগামী ২২ মার্চ প্রথম দফায় দেশের ৭৫২টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন হবে। এসব ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় নির্ধারণ করা হয়েছে ২২ ফেব্রুয়ারি। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই হবে ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারি। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২ মার্চ। প্রতীক বরাদ্দ হবে ৩ মার্চ। এ ছাড়াও প্রার্থীদের আপিল দাখিলের তারিখ ২৫-২৭ ফেব্রুয়ারি। আপিল নিষ্পত্তির তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি।