মেইন ম্যেনু

‘ইউরোপে ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার পাঠাতে প্রস্তুত হতে হবে’

ইউরোপের দেশগুলোতে বাংলাদেশি ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার পাঠাতে আমাদের আরও প্রস্তুত হতে হবে। দক্ষতা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে তার মাধ্যমে আমাদের চিকিৎসকদের ইউরোপে গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করতে হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

কেনিয়ার নাইরোবিতে অনুষ্ঠিত ডব্লিউটিও’র ১০ম মিনিস্ট্রিয়াল কনফারেন্স-২০১৫ এর বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ কথা জানান।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘বাংলাদেশ রফতানি শুল্ক ও কোটামুক্ত বাজার সুবিধায় শতকরা ৭৫ ভাগ আউটসোর্সিং সুবিধা পাবে। এ ছাড়া গার্মেন্টস, কেমিক্যাল, প্রক্রিয়াজাত কৃষিপণ্য রফতানিতে সিঙ্গল ট্রান্সফর্মেশন সুবিধা পাওয়া যাবে। একই সঙ্গে জনশক্তি রফতানিতেও বেশ সুযোগ সুবিধা পাওয়া যাবে।’

তিনি বলেন, ‘সম্মেলনে স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য দুটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হয়েছে। একটি হচ্ছে— রুলস অব অরিজিন শিথিল, অন্যটি প্রেফারেন্সিয়াল মার্কেট অ্যাক্সেস প্রদান। সেবাখাতে স্বল্পোন্নত দেশগুলোকে অগ্রাধিকারমূলক বাজার সুবিধা দিতে ২০৩০ সাল পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ সিদ্ধান্তটি বাংলাদেশের জন্য বেশ ফলদায়ক হবে।’

বাণিজ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের মানবসম্পদ নির্ভর সেবাখাতের প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। নাইরোবিতে গৃহীত সিদ্ধান্তের কারণে সেবাখাতের মোড-ফোর-এর আওতায় জনশক্তি রফতানি নির্ভর সেবা সুবিধা পাবে বাংলাদেশ।’

এ সময় বাণিজ্য সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন, ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল মুক্তাদিরসহ অন্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল মুক্তাদির বলেন, ‘ডব্লিউটিও সম্মেলনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শুধু বাংলাদেশিরাই নয়, এদেশে চিকিৎসা নিতে আসা বিদেশিরাও কম মূল্যে ওষুধ কিনতে পারবেন। ক্যান্সারসহ দুরারোগ্য ব্যাধির ওষুধও কম মূল্যে পাওয়া যাবে।