মেইন ম্যেনু

ইকুয়েডরে ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা ৪০০ ছাড়াল

ইকুয়েডরে ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা চারশ ছাড়িয়েছে। মঙ্গলবার সর্বশেষ ৪১৩ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আহত ২৫০০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রোববার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ৭ দশমিক ৮ মাত্রার ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। এর উৎপত্তিস্থল ছিল উপকূলীয় শহর মুইসেন থেকে ২৭ কিলোমিটার দূরে, ভূপৃষ্ঠ থেকে ১৯ কিলোমিটার গভীরে। সোমবার দেশটির বাহিয়া ডি কারাকুয়েজ থেকে ৩৪ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে ফের ৫ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্প আঘাত হানে ।

সোমবার প্রেসিডেন্ট রাফায়েল কোরেয়া ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলগুলো পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেছেন, গত সাত দশকের মধ্যে ইকুয়েডরের ইতিহাসে এটি সবচেয়ে শোচনীয় ঘটনা। ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাগুলোর পুনর্নির্মাণে কয়েক শ কোটি ডলার লাগতে পারে।

বিবিসি জানিয়েছে, সোমবার রাতে উপকূলীয় শহর মান্তার কাছে একটি হোটেলের ধ্বংসস্তূপ থেকে দুই শিশুসহ ছয়জনকে জীবিতকে উদ্ধার করা হয়েছে। শিশু দুটির একজনের বয়স তিন বছর ও অপরজনের নয় বছর। ভূমিকম্পে পর্যটন শহর পেদারনালেস ও পোর্তোভিয়েজো সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ শহর দুটিতে সোমবার নিহতদের বেশ কয়েকজনের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে প্রেসিডেন্ট কোরেয়া বলেছেন, ‘মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছি আমি, কারণ আমরা ধ্বংসস্তূপ সরানোর কাজ অব্যাহত রেখেছি । ধ্বংসস্তূপে জীবিতরা আটকা পড়ে আছে বলে ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে, তাদের উদ্ধারেই সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া হচ্ছে।’