মেইন ম্যেনু

ইনানী সৈকতে পর্যটক আকর্ষনীয় ইজিবাইকের যাত্রা শুরু

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম পর্যটন স্পট ইনানী বীচ এলাকা জুড়ে ইজিবাইকের যাত্রা শুরু হওয়ায় পর্যটকরা অনেকটা স্বাচ্ছন্দ্যের সহিত বিচরণ করতে পারায় পর্যটকদের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে প্রাণ চাঞ্চল্য। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের (রাজস্ব) অনুমতিক্রমে ইজিবাইক চলাচলের সুযোগ যেন পর্যটন পরিবেশ আরও এক ধাপ এগিয়ে গেছে বলে মনে করছেন দুর দুরান্ত থেকে আসা পর্যটকরা।

পাশাপাশি নবাগত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাঈন উদ্দিন তার কর্মস্থল উখিয়ায় যোগদান করার পর থেকে ইনানী বীচের সার্বিক উন্নয়ন নিয়ে দেনদরবার সহ স্থানীয়দের বিভিন্ন দিক নির্দেশনা ও উন্নয়নমূলক পরামর্শ দিয়ে উদ্ভুদ্ধ করায় ইনানীর সার্বিক চিত্র পাল্টে যাচ্ছে বলে মনে করছেন পর্যটন সংশ্লিষ্টরা।

ইনানী বীচ ঘুরে স্থানীয় পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও পর্যটকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বীচ এলাকায় পরিকল্পিত মার্কেট ও যাতায়তের রাস্তা না থাকার কারণে সম্ভাবনাময়ী ইনানীর পর্যটন পরিবেশ অনেকটাই মুখ থুবড়ে পড়ে আছে।

এ কথার সত্যতা স্বীকার করে কুমিল্লার ব্যবসায়ী পর্যটক আশিকুর রহমান এ প্রতিবেদককে জানান, কক্সবাজারের চাইতে ইনানী পর্যটন এলাকা অনেকটা দর্শনীয় ও মনোমুগ্ধকর। তবে পরিকল্পিত মার্কেট সহ হোটেল মোটেল না থাকার কারণে দেশী, বিদেশী পর্যটকরা কক্সবাজারে অবস্থান করছে। আরেক ব্যাংকার পর্যটক সাইদুল ইসলাম মিয়া জানান, ইনানী বীচের পরিবেশ প্রশংসনীয়।

তবে পর্যটন নগরীকে পরিকল্পিতভাবে সাজানো হলে সরকার ইনানীর পর্যটন খাতে প্রচুর পরিমাণ রাজস্ব আদায় করতে সক্ষম হবে। স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘ দিন ধরে ইনানী বীচ সংশ্লিষ্ট কোন প্রকার যানবাহন ছিল না বিধায় পর্যটকরা পুরো ২৮ কিলোমিটার ইনানী সৈকতের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে ব্যর্থ হয়েছে।

ইনানী বীচ ব্যবসায়ী বহুমুখী সমবায় সমিতির সভাপতি ছৈয়দ হোছন জানান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) শেখ ফরিদ আহমদের বদন্যতায় ইতিমধ্যে ১৪টি ইজিবাইক অনুমতি হয়ে বীচে নামতে পারায় পর্যটকদের আকর্ষণ বেড়ে গেছে। ফলে পর্যটকরা স্বপরিবারে স্বাচ্ছন্দ্যে ঘুরাফেরা করার সুযোগ পাচ্ছে।

তিনি দাবী করেন, ২০০৮ সালে প্রক্রিয়াধীন প্রস্তাবিত মাশরুম মার্কেটটি বাস্তবায়ন করে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের বৈধভাবে ব্যবসা করার সুযোগ দেওয়ার পাশাপাশি বীচে নামার জন্য একটি সাকো স্থাপন অত্যন্ত জরুরী হয়ে পড়েছে।

ইতিমধ্যেই ইজারাদার মেরিন ড্রাইভ সড়ক থেকে বীচ পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণের কাজ শুরু করলেও মানসম্মত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান না থাকায় জমে উঠছে না ইনানী সৈকত। তিনি এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।