মেইন ম্যেনু

ইফতারের উপকারিতায় বিশ্বনবি যা বললেন

সারাদিন রোজা পালন শেষে রোজাদার ইফতার করেন। পানি এবং খেজুর দ্বারা ইফতারে রয়েছে অনেক উপকারিতা। খেজুর সংগ্রহ করতে না পারলে ন্যূনতম পানি দ্বারা ইফতার করা। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম পানি দ্বারা ইফতারে রোজাদারের তাৎক্ষনিক যে উপকার সাধিত হয় তা বর্ণনা করেছেন। যা তুলে ধরা হলো-

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন ইফতার করতেন তখন বলতেন, ‘পিপাসা দূর হলো, শিরা-উপসিরা সিক্ত হলো এবং যদি আল্লাহ চান সাওয়াবও স্থির হলো। (আবু দাউদ, মিশকাত)

এ হাদিসে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ইফতারের উপকারিতা বর্ণনা করে বলেন, রোজায় মানুষের ক্ষুধা ও পিপাসার কারণে গোটা শরীরে যে শুষ্ক ও তপ্ত হয়ে পড়েছিল; পানি পান করার সঙ্গে সঙ্গে তা দূরীভূত হয়ে গেলো। এবং ক্লান্তি ও অবসাদ নিমিষেই সতেজ ও চাঙ্গাভাবে পরিবর্তন হয়ে গেলো। আর আল্লাহর ইচ্ছায় রোজার সাওয়াব স্থির হয়ে গেলো মনে রোজাদার নিশ্চিত সাওয়াব পাবে।

আল্লাহ তাআলা প্রত্যেক রোজাদারকে ইফতার করে হাদিসে বর্ণিত উপকার লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।