মেইন ম্যেনু

‘ইফতার পার্টিতে খালেদার মিথ্যাচার শুনে তাজ্জব বনে গেছি’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রমজান মাসে ইফতার পার্টিতে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার মিথ্যাচার শুনে তাজ্জব বনে গেছি।

দশম সংসদের দ্বিতীয় বাজেট অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে বুধবার বিকেলে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের মানুষ যখন পুরস্কার পাচ্ছে সেই সময় আমরা দেখছি কিছু মিথ্যাচার শুরু হয়েছে। বিএনপি নেত্রী পুলিশ বাহিনীর ওপর দোষারোপ করে বলছেন যে, সব পেট্রোলবোমা পুলিশ মেরেছে। গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করেছে পুলিশ। রমজান মাসে বিএনপি নেত্রীর এই মিথ্যাচার শুনে তাজ্জব বনে গেছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি যে বাজেট দিয়েছিল আমরা দিয়েছি তার চারগুণ বেশি বাজেট। এখন দেশ নিম্ন-মধ্যম আয়ের দেশ। আগামী তিন বছরের মধ্যে হবে মধ্যম আয়ের দেশ।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী কিছু ছবি প্রদর্শন করে বলেন, এরা কারা? এরা বিএনপি কর্মী, জামায়াত শিবিরের কর্মী। এটা বাংলাদেশের সকল মানুষ জানে বিএনপি-জামায়াত মিলে আন্দোলনের কর্মসূচি দিয়েছে। এ কর্মসূচিতে পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ হত্যা করা হয়েছে। মানুষকে খুন করা হয়েছে। তিনি নিজের দোষ ঢাকতে চাইছেন। এভাবে মিথ্যা কথা বলা তাদের অভ্যাস।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইফতার পার্টিতে বসে খালেদা জিয়া কতগুলো মিথ্যা অপবাদ দিয়ে যাচ্ছেন, মিথ্যা কথা বলে যাচ্ছেন। তিনি বলছেন, মানুষ নাকি খেতে পাচ্ছে না। অথচ দিনমজুররাও এখন তিন বেলা পেট পুরে খাচ্ছে। তাদের রোজগার বেড়েছে। রমজান মাসে বসে তিনি যে মিথ্যাচার চালিয়ে যাচ্ছেন আল্লাহই বিচার করবেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। দারিদ্র্যের হার হ্রাস পেয়েছে, এখন তা ২২.৪ ভাগ। হতদরিদ্রের হারও ৭.৯ ভাগে নেমে এসেছে। বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিনি বলেন, মালয়েশিয়ায় অবৈধ শ্রমিক ছিল। আমরা আলোচনা করে বৈধ করেছি। সৌদি আরবে সাড়ে আট লাখ মানুষ অবৈধ ছিল। আমি কূটনৈতিক সাফল্যের মাধ্যমে তাদের বৈধতা দিতে পেরেছি। আমরা দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আর সেই সুফল মানুষ ভোগ করছে।