মেইন ম্যেনু

ইলিশ পোলাও তৈরির যে “বিশেষ” রেসিপিটি আপনি নিঃসন্দেহে জানেন না!

আষাঢ়ের এমন বৃষ্টি মুখর দিনে ইলিশ পোলাওয়ের চাইতে মজার খাবার আর কিছু হতে পারে? একদম না! আর তাই আতিয়া আমজাদ নিয়ে এসেছেন এক অসাধারণ রেসিপি। কিন্তু একে ‘স্পেশাল” কেন বলছি? কারণ এই রেসিপিতে রাঁধুনি যোগ করেছেন ভিন্ন মাত্রার কিছু সুস্বাদ। দেখেই নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন কি ভীষণ মজাদার হতে পারে এই স্পেশাল ইলিশ পোলাও? চলুন, তাহলে জেনে নিই রেসিপি।

উপকরণ

পোলাও এর চাল/ বাসমতী চাল ৫০০ গ্রাম/২ কাপ
ইলিশ মাছের টুকরা ৮ পিস
ইলিশের মাথা ও লেজ দিয়ে আলাদা করে স্টক করে নিতে হবে ২ কাপ
নারিকেলের ঘন দুধ ২ কাপ
পিঁয়াজ বাটা ১/২ কাপ / ১২৫ গ্রাম
পিঁয়াজ বেরেস্তা ১/২ কাপ
মরিচের গুঁড়ো ১ চা চামচ
ধনে গুঁড়ো ১ চা চামচ
তেল ১/৩ কাপ বা ৭৫ মিলি লি
টক দই ২ টে চামচ
ঘী ১ টে চামচ(ইচ্ছা)
তেজপাতা ১টি
দারুচিনি ও এলাচ ২/৩ পিস করে
কাঁচামরিচ ৬/৭ টি
গরম পানি ১ কাপ
লবণ ১.৫ চা চামচ বা পরিমান মতো

প্রনালি

– পোলাও-এর চাল বা বাসমতী চাল ১৫/২০ মিনিট পানিতে ভিজিয়ে রেখে ঝরিয়ে নিন।

– ৪ কাপ পানিতে ইলিশ মাছের মাথা ও লেজ সিদ্ধ করে ২ কাপ করুন এবং সিদ্ধ পানিটুকু ছেঁকে নিন।

-প্যানে তেল গরম করে পিঁয়াজ বাটা , মরিচের গুঁড়ো ,ধনে গুঁড়ো , দই ও সামান্য গরম পানি দিয়ে কষিয়ে নিন ।

-এবার এতে ১ কাপ নারিকেল এর দুধ ও ১/২ চা চামচ লবণ দিয়ে ফুটিয়ে নিন। এবার সাবধানে মাছ গুলো বিছিয়ে দিন ও ৬/৭ টা কাঁচা মরিচ দিয়ে ঢেকে দিন এবং মাঝারি আঁচে ১৫ মিনিট রান্না করে নামিয়ে রাখুন।

-আরেকটি প্যানে মাছের স্টক নারিকেলের বাকি দুধ টুকু এবং ১ কাপ গরম পানি দিয়ে চুলায় চাপিয়ে দিন। লবণ,তেজপাতা, এলাচ ও দারুচিনি ও দিয়ে দিন। বলক এলে চাল দিয়ে দিন।

-ভাত ৭৫% হয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন।

-এবার সাবধানে প্যানের অর্ধেকটা ভাত উঠিয়ে আলাদা করে নিন এবং রান্না করা ইলিশ ঝোল সহ অর্ধেকটা প্যানের ভাতের ওপরে বিছিয়ে দিন। তার উপরে ১/২ টে চামচ ঘী ও অর্ধেকটা বেরেস্তা ছরিয়ে দিয়ে বাকি ভাত দিয়ে মাছ গুলো ঢেকে দিন।

– একই ভাবে বাকি মাছ ঝোল সহ ভাতের উপরে বিছিয়ে দিন এবং তার ওপর বাকি ঘী ও বেরেস্তা টুকু ছরিয়ে দিন।

-এবার তাওয়ার উপরে দিয়ে দমে রেখে দিন ৩০ মিনিট।

-সাবধানে সারভিং ডিশে উঠতে হবে যেন মাছের টুকরা ভেংগে না যায়।

– গরম গরম পরিবেশন করুন।



« (পূর্বের সংবাদ)