মেইন ম্যেনু

ইসলামাবাদ ছাড়লেন কূটনীতিক মৌসুমি রহমান

পাকিস্তান সরকারের ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটামের মধ্যেই ইসলামাবাদ ছাড়লেন বাংলাদেশের জ্যেষ্ঠ কূটনীতিক মৌসুমি রহমান। আজ বৃহস্পতিবার সকালে তিনি ইসলামাবাদ বিমানবন্দর থেকে একটি তুর্কি বিমানে চড়েন।

মৌসুমি রহমান পাকিস্তানের ইসলামাবাদে বাংলাদেশ হাইকমিশনে নিযুক্ত ছিলেন।

পর্তুগালে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ই​মতিয়াজ আহমেদের বরাত দিয়ে বাংলাদেশের একটি গণমাধ্যম জানায়, মৌসুমী রহমান পর্তুগালের লিসবনে যাবেন। স্থানীয় সময় বিকেলে সাড়ে চারটার পর (বাংলাদেশের সময় রা​ত সাড়ে ১০টা) তার লিসবনে পৌঁছার কথা।

ইসলামাবাদ থেকে প্রত্যাহার করে তাকে পর্তুগালের লিসবনে নিয়োগ দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। আগামী সপ্তাহে মৌসুমী বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সেলর হিসেবে কাজে যোগ দেবেন।

সম্প্রতি ঢাকায় নিযুক্ত পাকিস্তানি কূটনীতিক ফারিনা আরশাদকে জঙ্গি সম্পৃক্ততার অভিযোগে ফেরত পাঠানোর জেরে পাল্টা ব্যবস্থা হিসাবে বাংলাদেশের কূটনীতিক মৌসুমী রহমানকে ফেরত পাঠাল পাকিস্তান।

মৌসুমি রহমানকে পাকিস্তান সরকার ‘পারসোনা নন গ্রাটা’ ঘোষণা করেছিল উল্লেখ করে পাকিস্তানি গণমাধ্যম ডন জানায়, ‘তুর্কি এয়ারলাইন্সের টিজি৭১১ বিমানে করে ইস্তাম্বুল হয়ে ঢাকায় যাবেন মৌসুমি।’

ইসলামাবাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, মৌসুমি রহমান পাকিস্তানের রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডে জড়িত ছিলেন বলে প্রমাণ পেয়েছে পাকিস্তান নিরাপত্তা সংস্থা। আর এই কারণেই তাকে প্রত্যাহার করতে বলা হয়েছে।

কিন্তু রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ড বলতে ঠিক কী বোঝানো হয়েছে সে ব্যাপারে পরিষ্কার করে কোনো কিছু জানায়নি পাকিস্তান।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, পাকিস্তান যৌক্তিক কোনো কারণ ছাড়াই বাংলাদেশের কূটনীতিক মৌসুমি রহমানকে প্রত্যাহার করতে বলেছে। এই ধরনের কর্মকাণ্ড কখনোই দুই দেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে ভালো হবে না।

মৌসুমি রহমানকে পর্তুগালের লিসবনে বাংলাদেশ হাইকমিশনে নিয়োগ দেয়া হয়েছে বলে জানান প্রতিমন্ত্রী।