মেইন ম্যেনু

ইসলামি ব্যাংকিং বিকাশে আইন হচ্ছে

দেশের ইসলামী শরীয়াভিত্তিক ব্যাংকগুলোর বিকাশে ইসলামিক ব্যাংকিং আইন হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

শনিবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে ‘ইসলামিক ব্যাংকিং’ শীর্ষক এক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন। সেমিনারটি আয়োজন করে ইসলামিক ব্যাংকস কনসালটেটিভ ফোরাম (আইবিসিএফ)।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, অনেক আগে আইবিসিএফ ইসলামিক ব্যাংকিং আইন করার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছিল। তবে বিভিন্ন কারণে তা সম্ভব হয়নি। এবার অর্থমন্ত্রী সায় দিয়েছেন। আমরা মালেশিয়ার ইসলামিক ব্যাংকিং আইনের আলোকে দেশের ইসলামী শরীয়াভিত্তিক ব্যাংকগুলোর বিকাশের জন্য ইসলামিক ব্যাংকিং আইন করার চিন্তা করছি।

একই সঙ্গে তিনি জানান, দেশে ও বিদেশে ইসলামী ব্যাংকের সংখ্যা বাড়ছে। তাই এ খাতে প্রচুর কর্মসংস্থান তৈরি হচ্ছে। কিন্তু দেশে এ বিষয়ে শিক্ষাগ্রহণের কোনো সুযোগ নেই। এ সমস্যা সমাধানে মালেশিয়ার মতো আমাদেরকেও একটি পূর্নাঙ্গ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সেখানে ইসলামী ব্যাংকিং নিয়ে বিভিন্ন সমস্যার সমাধান আসবে। এই ধরনের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য আইবিসিএফকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

মন্ত্রী আরো বলেন, ইসলামিক ব্যাংকিং ব্যবস্থা সত্য, নিষ্ঠা ও নৈতিকতার ভিত্তির উপর প্রতিষ্ঠিত। তাই এই ব্যাংক ব্যবস্থা কখনই ধ্বংস হবে না। ইসলামিক ব্যাংকিং ব্যবস্থাকে আরও জোরদার করতে হবে। বিশ্বে প্রায় ৩০০ শতাধিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানে এ ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালু হয়েছে। ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ডের মতো দেশেও ইসলামিক ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালু হয়েছে।

সেমিনারে ‘দারিদ্র বিমোচনে ইসলামী অর্থনীতির ভূমিকা’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করে এক্সপোর্ট ইমপোর্ট ব্যাংক অব বাংলাদেশ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মোহাম্মদ হায়দার আলী মিয়া। এছাড়া ‘রোজা ও তাকওয়ার আলোকে মানবিক ব্যাংকিং’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল মান্নান।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আইবিসিএফ সভাপতি মোস্তফা আনোয়ার, সাধারণ সম্পাদক এ কে এম নূরুল ফজল বুলবুল প্রমুখ।