মেইন ম্যেনু

ইসলাম শিক্ষা দিচ্ছেন হিন্দু শিক্ষিকা!

সুনামগঞ্জ: ইসলাম সম্পর্কে তেমন কোনো ধারণা না থাকলেও সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলা সদরের ঘুঙ্গিয়ারগাঁও মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুদের ইসলাম ধর্ম শিক্ষা দিচ্ছেন দুই হিন্দু শিক্ষিকা। এতে ক্ষুব্ধ হয়েছেন শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা।

তবে বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা অফিসে জানানো হলেও নেয়া হচ্ছে না কার্যকর কোনো ব্যবস্থা।

বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানায়, বিদ্যালয়টির ৮৯ জন মুসলমান শিক্ষার্থীকে নিয়মিত ইসলাম ধর্মের পাঠদানে নিয়োজিত রয়েছেন অর্চণা রাণী দাশ এবং ঝুমঝুম চৌধুরী নামে দুই হিন্দু শিক্ষক। তারা প্রতিদিন বিদ্যালয়টির তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম শ্রেণীর শিশুদের ইসলাম শিক্ষা ক্লাস নেন।

বিদ্যালয়টিতে কোনো মুসলমান শিক্ষক নেই। দু’জন পুরুষ শিক্ষক ও ছয় শিক্ষিকাসহ আট জনই হিন্দু ধর্মের অনুসারি। বিদ্যালয়ে প্রাক-প্রাথমিকসহ ছয়টি শ্রেণীতে ২৮৭ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ১৯৮ জন হিন্দু এবং ৮৯ জন মুসলমান।

মুসলমান শিক্ষার্থীদের অভিবাবকরা জানান, তাদের ছেলে-মেয়েদের ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে ধারণা নেই এমন শিক্ষক দিয়ে ধর্মের কাহিনী পড়ানো হচ্ছে। হিন্দু শিক্ষক ইসলাম ধর্মের পাঠ নেয়াতে শিক্ষার্থীরা প্রকৃত ইসলাম শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক সুরঞ্জিত চৌধুরী জানান, দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে কোনো মুসলমান শিক্ষক না থাকায় হিন্দু শিক্ষিরা ইসলাম ধর্মের পাঠদান করে আসছেন। তবে হিন্দু শিক্ষিকা দিয়ে ইসলাম ধর্মের ক্লাস নিলে কোনো সমস্যা হয় না। মাঝে মধ্যে আরবি পড়তে একটু সমস্যা হলেও বাচ্চারা ভালোই শিখছে। বিষয়টি তারা শিক্ষা অফিসে জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে শাল্লা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আফতাব উদ্দিন জানান, ঘুঙ্গিয়ারগাঁও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মুসলমান শিক্ষকের প্রয়োজনের কথা তিনি জানলেও বদলি ছাড়া শিক্ষক নিয়োগ দিতে পারছেন না। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জরুরী ভিত্তিতে একজন মুসলমান শিক্ষক নিয়োগের জন্য তিনি চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।