মেইন ম্যেনু

ঈদে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে। আগাম এ টিকিট বিক্রি চলবে ১৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। একজন যাত্রী চারটির বেশি টিকিট কিনতে পারবেন না। ক্রয়কৃত টিকিট ফেরৎ দেওয়ার সুযোগও থাকছে না।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর রেলভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান রেলমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক।

মন্ত্রী বলেন, আগামী ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত আন্তঃনগর ট্রেনের সব স্টাফের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ১৫-১৯ সেপ্টেম্বরে বিক্রি হবে ২০-২৪ তারিখের টিকিট। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর বিক্রি হবে ২০ সেপ্টেম্বর যাত্রার টিকিট। ২২, ২৩, ২৪ সেপ্টেম্বরের টিকিট পাওয়া যাবে ক্রমান্বয়ে ১৭, ১৮, ১৯ সেপ্টেম্বর।

মুজিবুল হক বলেন, আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে প্রতিদিন ২ লাখ ৫০ হাজার যাত্রী পরিবহণ করবে রেল।এ ছাড়া ঈদের আগের ৩ দিন (২২-২৪ সেপ্টেম্বর) এবং ঈদের পরের ৭ দিন (২৭-৩ অক্টোবর ) ৭ জোড়া স্পেশাল ট্রেন সার্ভিস চালু করা হবে।

তিনি বলেন, ঈদের পরবর্তী সময়ে রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, দিনাজপুর ও লালমনিরহাট রেল স্টেশন থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় ২৭ সেপ্টেম্বরের টিকিট পাওয়া যাবে ২৩ সেপ্টেম্বর। ২৮ সেপ্টেম্বরের টিকিট ২৪ সেপ্টেম্বরে, ২৯ ও ৩০ সেপ্টেম্বরের টিকিট ২৬ সেপ্টেম্বর এবং ১ অক্টোবরের টিকিট পাওয়া যাবে ২৭ সেপ্টেম্বর।

ঢাকা, ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট, বিমানবন্দর, জয়দেবপুর, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, সিলেট, রাজশাহী, খুলনাসহ সব বড় বড় স্টেশনে জিআরপি, আরএনবি ও স্থানীয় পুলিশ, র‌্যাব সদস্যরা টিকিট কালোবাজারী প্রতিরোধে সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবেন। এ ছাড়া জেলা প্রশাসকের সহায়তায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

মন্ত্রী বলেন, এবার ঈদে সাত জোড়া স্পেশাল ট্রেন আগামী ২২ সেপ্টেম্বর থেকে চলাচল করবে । ‘এসব ট্রেনের মধ্যে রয়েছে দেওয়ানগঞ্জ স্পেশাল, চাঁদপুর স্পেশাল-১, চাঁদপুর স্পেশাল-২, পার্বতীপুর স্পেশাল, খুলনা স্পেশাল, সোলাকিয়া স্পেশাল-১ ও ২। এ ছাড়া অতিরিক্ত যাত্রী বহনে ১৯৯টি লোকোমটিভের সঙ্গে আরো ২৫টি ইঞ্জিন সরবরাহ করা হবে। দৈনিক ৮৮৬টি কোচের সঙ্গে অতিরিক্তি ১৩৮টি কোচ যুক্ত করা হবে।