মেইন ম্যেনু

উত্ত্যক্ত করায় ৪ যুবককে ধরে গণধোলাই দিলেন মহিলারা

প্রতিবাদ এভাবেও করা যায়৷ দেখিয়ে দিলেন ভারতের উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলার কাঁকিনাড়ার রথতলা শীতলামন্দির এলাকার মহিলারা৷ দিনের পর দিন এলাকার মহিলাদের উত্ত্যক্ত করছিল বেসরকারি আয়ুর্বেদিক কলেজের চারজন ছাত্র৷ একাধিকবার বারণেও তাদের ব্যবহারে কোনও লাগাম আসেনি৷ পুলিশকে জানালেও লাভ হয়নি৷

অগত্যাই যুবকদের ‘ধোলাই’য়ের দায়িত্ব নিলেন স্থানীয় মহিলারাই৷ মঙ্গলবার ফের যখন ওই যুবকরা পথচলতি স্কুল ছাত্রী এবং মহিলাদের উত্ত্যক্ত করছিল, সেই সময় এলাকার মহিলারাই ওই চারজনকে ধরে৷ শুরু হয় ‘ধোলাই’৷ অবশেষে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হয় যুবকরা৷ পরে তাদের তুলে দেওয়া হল পুলিশের হাতে৷

অভিযোগ, সোমবার রাতেও নাকি ওই যুবকরা এক মহিলাকে একটি মদের বোতল ছুড়ে মেরেছে৷ সেই মহিলা প্রতিবাদ করায় তার উদ্দেশে ভেসে এসেছে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ৷ তাই এদিন সকালে একজন ছাত্রীর প্রতিবাদ আগুনে ঘি পড়ার মতো হয়৷ এলাকার মহিলারা একজোট হয়ে মারধর করেন ওই চারজনকে৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত যুবকরা প্রত্যেকেই একটি বেসরকারি আয়ুর্বেদিক কলেজের ছাত্র৷ জগদ্দল থানার বেল্লে-শঙ্করপুর রাজীব গান্ধী মেমোরিয়াল আয়ুর্বেদিক কলেজের প্রথম বর্ষে পড়ে তারা৷ কাঁকিনাড়ার অন্ন্দা ব্যানার্জি রোডের রথতলা শীতলামন্দির মোড়ের কাছে একটি আবাসনে ভাড়া থাকে অভিযুক্ত ওই চার ছাত্র৷ সেখান থেকেই এলাকার মেয়েদের দিনের পর দিন উত্ত্যক্ত করত বলে অভিযোগ৷

এলাকাবাসী একাধিকবার বিষয়টি নিয়ে ওই চারজনকে সাবধান করার পরও তারা শোধরায়নি৷ তাই বাধ্য হয়েই এদিন এলাকার মহিলারা মারধর করেন ওই চার যুবককে৷

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের নাম দীপককুমার সিং, ভিক্টর দেব, রোহান হোসেন ও সুমন ভুঁইয়া৷ দীপক পাটনার বাসিন্দা, ভিক্টর ত্রিপুরার, রোহান এবং সুমন মালদহের৷ স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, ওই চারজন রোজ পাড়ার মহিলাদের উত্ত্যক্ত করতো৷ তাই বাধ্য হয়েই মহিলারা এদিন ধরে তাদের মারধর করেন৷