মেইন ম্যেনু

উদ্বোধনের অপেক্ষায় বিছনাকান্দির ‘নৌ বিমান’

দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র সিলেটের বিছনাকান্দির প্রবাহমান নদীতে উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে আনোয়ার হোসেন নমুনা বিমান। সেখানে দেশ-বিদেশ থেকে আসা পর্যটকদের আরও বেশি আকৃষ্ট করতে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

উপজেলার রুস্তমপুর ইউনিয়নের বেড়িবিল গ্রামের আনোয়ার হোসেন দীর্ঘদিন সাধনা করে নির্মাণ করেছেন একটি অবিকল বিমান। দেখলে মনে হবে যেন বাংলাদেশ বিমান পিয়াইনের জলে অবস্থান করছে যাত্রীদের ওঠানামার জন্য। আসলে বিমানের আদলে শিল্পীরা বিভিন্ন কারুকার্য দিয়ে তৈরি করেছেন এ বিশেষ নৌযান।

নৌযাজেন সত্ত্বাধিকারী আনোয়ার হোসেন জানান, দীর্ঘ ৯ মাস সাধনা করে ১০ জন মিস্ত্রীর শ্রমে এ নৌযানের কাজ সমাপ্ত করা হয়েছে। স্টিলের তৈরি এ নৌযানের ধারণ ক্ষমতা রয়েছে প্রায় ৪০০ জন লোকের। তবে পর্যটকদের সুযোগ-সুবিধার কথা বিবেচনা করে এখানে আসন রাখা হয়েছে মাত্র ২৩ জনের।

এ নৌযানটিতে ভিআইপি গাড়ির আসনের মত দু’পাশে রয়েছে দু’টি করে আসন। মধ্য দিয়ে ৩ জন লোক একসাথে চলাচলের ব্যবস্থাও রয়েছে। এছাড়া শৌচাগারের সুব্যবস্থা সহ জামা-কাপড় পরিবর্তনের ব্যবস্থা বিদ্যমান। তিনি এ যানটি চলাচলে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে রুস্তমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাব উদ্দিন শিহাব বলেন, পর্যটকদের আনন্দ ও বিভিন্ন সুযোগ সুবিধাসম্পন্ন একটি নৌ যান তৈরি করেছেন আনোয়ার হোসেন। বিমানের আদলে গড়া ওই নৌ যানটি পর্যটকদের অধিকতর আনন্দ দেবে বলে আমি মনে করি।