মেইন ম্যেনু

উন্নত চিকিৎসার জন্য নয়াদিল্লিতে সালাহ উদ্দিন

ভারতে অনুপ্রবেশের অভিযোগে আটক বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমদ উন্নত চিকিৎসার জন্য বৃহস্পতিবার শিলং থেকে নয়াদিল্লি গেছেন। চিকিৎসকদের সুপারিশের ভিত্তিতে শিলংয়ের জেলা ও দায়রা জজ আদালত গত বুধবার তাকে শর্ত সাপেক্ষে দিল্লি যাওয়ার অনুমতি দেন। তার ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে তার বিরুদ্ধে ভারতীয় ফরেনার্স অ্যাক্ট-৪৬ আইনে দায়ের করা মামলার পর চার্জশিট দেয়া হয়। পরে শিলংয়ের আদালত তাকে শর্তসাপেক্ষে জামিন দেন। আদালতের দেয়া শর্ত ছিল, তাকে শিলংয়ে থেকে প্রতি সপ্তাহে সেখানকার পুলিশ সুপার কার্যালয়ে হাজিরা দিতে হবে।

সালাহ উদ্দিনের ঘনিষ্ঠ ওই সূত্রটি জানায়, তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শিলং সেশন কোর্ট তাকে ভারতের অন্য যে কোনো প্রদেশে গিয়ে চিকিৎসা নেয়ার অনুমতি দেন।

সূত্র জানায়, সালাহ উদ্দিনের বাম দিকের কিডনির সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। কিডনির অবস্থা এখন খুব খরাপ। হৃদরোগ ও চর্মরোগের সমস্যাও প্রকট। নিয়মিত তাকে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হচ্ছে। শিলংয়ের একটি হাসপাতালে কয়েকজন চিকিৎসক তার কিডনি, হৃদরোগ ও চর্মরোগের চিকিৎসা করছেন।

গত বছরের ১০ মার্চ ঢাকার উত্তরার একটি বাসা থেকে নিখোঁজ হন সালাহ উদ্দিন আহমদ। এর প্রায় দুই মাস পর ১১ মে ভারতের মেঘালয় রাজ্যের রাজধানী শিলংয়ের গলফ লিংক এলাকায় উদ্দেশ্যহীনভাবে ঘোরাফেরার সময় স্থানীয় লোকজনের ফোন পেয়ে টহল পুলিশ তাকে পায়।