মেইন ম্যেনু

উপকূলে ইলিশের দেখা মিলছে না, দেনার দায়ে দিশেহারা জেলে পরিবার

ভোলার চরফ্যাশনের দক্ষিণ উপকূলের নদ-নদী ও সমুদ্রে জেলেদের জালে ইলিশ ধরা না দেয়ায় হাজার হাজার জেলে বেকার সময় পার করছে। গোটা উপকূলজুড়ে চলছে ইলিশের ভয়াবহ অকাল। ইলিশের আশায় উত্তাল সাগরে মাছ শিকারে গিয়ে এসব জেলেরা ফিরছে খালি হাতে। ভরা মৌসুমে ইলিশ না পেয়ে জেলেদের মাঝে বিরাজ করছে চরম হতাশা।

একদিকে সংসারের অভাব অনটন অন্য দিকে মাহাজনের ধার দেনা জেলেদের রাতের ঘুম হারাম হয়ে গেছে।চরফ্যাশনে মেঘনা ও তেতুলিয়ায় শত শত ট্রলার কিনারে তুলে রেখেছে জেলেরা। জেলে জসিম জানান, ৭/৮ দিন আগেও প্রত্যেকবারে ৪/৫টি ইলিশ পেয়েছেন। এখন আর নেই। গত তিনদিনে একটি ইলিশও পাওয়া যাচ্ছে না। ফিরতে হচ্ছে খালি হাতে। একই বক্তব্য আমজাদ হোসেনের, শাহেআলম, ইউসুফসহ অধিকাংশ জেলেদের।

জেলেরা জানান, একেকটি ট্রলারে ১২/১৫ জন জেলে মাছ শিকার করে আসছেন। ১২/১৫টি পরিবারের জীবন-জীবিকা নির্ভর করছে একটি ট্রলারে। কিন্তু মাছ মিলছে না। লাখ লাখ টাকা দাদন নেয়া এসব জেলেরা ইলিশ না পেয়ে এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।চরফ্যাশনের সামরাজ ,খেজুরগাছিয়া, বকসিসহ সবগুলো আড়ৎ ঘুরে দেখা গেছে কোন ইলিশের আমদানি নেই। ঢালচরের আড়ৎ মালিক শাহেআলম ফরাজী জানান, এক সপ্তাহকাল কোন ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে না। তারাও পড়েছেন ইলিশের ব্যবসা নিয়ে চরম উৎকন্ঠায়। শুধু ছোট জেলেরা নয় গভীর সমুদ্রে ইলিশ শিকারি জেলেরাও ফিরছে শুন্যহাতে।

সামরাজের ইলিশ ব্যবসায়ী ও আড়ত মালিক আঃ আজিজ জানান, মৌসুম শুরু হয়ে গেছে আগেই। কিন্তু ইলিশের দেখা নেই। তিনি জানান, প্রত্যেক ট্রলার মালিকের অন্তত এক থেকে দেড়লাখ টাকার লোকসান হয়ে গেছে। একেকটি ট্রলারে বাজারঘাট নিয়ে অন্তত তিন দফা সাগরে পাঠানো হয়েছে। কিন্তু মাছ ছাড়াই ফিরে আসছে ঘাটে।