মেইন ম্যেনু

উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউএনও’র স্বাক্ষর জাল; ২ অফিস সহায়ককে পুলিশে সোপর্দ

চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)’র স্বাক্ষর জাল করে ব্যাংক থেকে এক লাখ টাকা উত্তোলন করায় টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইলে দুটি অফিসের দুই অফিস সহায়ক কে ঈদ শেষে ২১ জুলাই মঙ্গলবার ঘটনাটি কতৃপক্ষের নজরে আসলে কতৃপক্ষ তোফাজ্জল হোসেন(২৫) ও হাবিবুর রহমান(২৪) নামে দুই কর্মচারীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। ।

ঈদের আগে গত ১৪ জুলাই এ জালিয়াতির ঘটনা ঘটে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহকারী মহি উদ্দিন মিয়া বাদি হয়ে এ ব্যাপারে ঘাটাইল থানায় তাদের বিরুদ্ধে চেক প্রতারনার মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার বিবরন ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসমা আরা বেগম এর তথ্য মতে জানা যায়, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম খান সামু অসুস্থ থাকায় একটি চেক স্বাক্ষরের জন্য উপজেলা পরিষদের অফিস সহায়ক তোফাজ্জল হোসেনকে গত ১৩ জুলাই উপজেলা চেয়রম্যানের বাসায় পাঠানো হয়। তোফাজ্জল সেই চেকে স্বাক্ষর করে আনেন। গত ২০ জুলাই সোমবার সকালে অফিস সহকারী মহিউদ্দিন মিয়া অফিসে এস দেখতে পান চেক বহির একটি পাতা নেই। রেজিস্ট্রার খুঁজে সেই চেক ইস্যুর কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। পরে সোনালী ব্যাংক ঘাটাইল শাখায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ১৪ জুলাই রাজস্ব খাতের হিসাব নং-০০১০১৫৭৪৯ থেকে ১৩৭৪৯৯৪ নম্বর চেকের মাধ্যমে এক লাখ টাকা উত্তোলন করা হয়েছে। ব্যাংকের সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, তোফাজ্জল হোসেন ব্যাংক থেকে উক্ত টাকা তুলছেন। পরে তোফাজ্জল হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি ঘটনার কথা স্বীকার করেন। তার সঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের পিয়ন হাবিবুর রহমান হাবিবও জড়িত বলে তিনি অভিযোগ করেন । উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহকারী মহিউদ্দিন মিয়া বাদি হয়ে তোফাজ্জল হোসেন ও হাবিবুর রহমান হাবিবের বিরুদ্ধে ঘাটাইল থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
ঘাটাইল থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মাকছুদুল আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, আসামীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।