মেইন ম্যেনু

উপবৃত্তির টাকা যাবে মায়ের মোবাইলে

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা মোবাইলের মাধ্যমে সরাসরি তাদের মায়েদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। নতুন এ সেবার নাম দেওয়া হয়েছে ‘মায়ের হাসি’।

এ বিষয়ে বুধবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে রূপালী ব্যাংক এবং টেলিটকের মাঝে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়েছে।

এই স্মারক অনুযায়ী, সরকার রূপালী ব্যাংকের শিওরক্যাশ মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সারা দেশে মায়েদের কাছে উপবৃত্তির টাকা পৌঁছে দেবে এবং টেলিটক মায়েদের বিনামূল্যে মোবাইল সিম দেবে এবং প্রতি মাসে ১৫ টাকা ফ্রি টক-টাইম দেবে।

সমঝোতা স্মারক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে উপবৃত্তি বিতরণ সরকারের সবচেয়ে বড় পেমেন্ট ডিজিটাইজেশন উদ্যোগ। এর মাধ্যমে সরকার উপবৃত্তির টাকা সরাসরি মায়েদের মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেবে। এতে উপবৃত্তি ব্যবস্থাপনা আরো সহজ হবে এবং ভোগান্তি কমবে।’

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট তারানা হালিম বলেন, ‘আমাদের স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়বার জন্যে মায়েদের ভূমিকা হবে সবচেয়ে বড়। এ জন্য আমরা উদ্যোগ নিয়েছি, টেলিটক মায়েদের মোবাইল সংযোগ দেবে, রূপালী ব্যাংক তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট করে দেবে এবং সরকার সরাসরি তাদের অ্যাকাউন্টে উপবৃত্তির টাকা পৌঁছে দেবে।’

টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গিয়াস উদ্দীন আহমেদ বলেন, ‘দেশের সব মায়েদের হাতে মোবাইল এবং উপবৃত্তির টাকা পৌঁছে দেওয়ার জন্য টেলিটক ‘মায়ের হাসি’নামে নতুন সেবা চালু করছে। আমরা আগ্রহী মায়েদের কাছে বিনামূল্যে সিম বিতরণ করব এবং প্রতি মাসে ১৫ টাকা ফ্রি টক টাইম দেব।’

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান প্রধান অতিথি হিসেবে এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

রূপালী ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ‘আমরা দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর কাছে ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে দিতে চাই এবং সমস্ত পেমেন্ট ডিজিটাইজেশন কার্যক্রমে সরকারের পাশে থাকতে চাই।’