মেইন ম্যেনু

উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করা যায়নি বলেই তরুণরা বিপথগামী

উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করা যায়নি বলেই তরুণরা বিপথগামীতার পথ বেছে নিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।

বুধবার সকাল ১০টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের (টিএসসি) সামনে আন্তর্জাতিক যুব দিবস উপলক্ষে ‘দুর্জয় তারুণ্য-দুর্নীতির বিরুদ্ধে একসঙ্গে’ শীর্ষক এক মানববন্ধনে এ মন্তব্য করেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটি ও ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) যৌথ উদ্যোগে মানববন্ধনের আয়োজন করে। এতে বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, তরুণদের বিপদগামীতা থেকে বিরত রাখার দায়িত্ব মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্মের লোকদেরই নিতে হবে। দায়িত্ব নিয়েই তরুণদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে। যাতে তারা সঠিক পথে ধাবিত হয় এবং এসব অপকর্মে নিরুৎসাহিত হয়।

তিনি বলেন, তরুণদের হাতেই বাংলাদেশের ভবিষ্যৎ। এ দেশের যতো ইতিবাচক অর্জন রয়েছে- রাজনৈতিক এবং সামাজিকভাবে সব অর্জনে নেতৃত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে তরুণরা। তারই ধারাবাকিতায় বর্তমান সময়ে দুর্নীতি যে সবচেয়ে বড় সমস্যাসমূহের মধ্যে অন্যতম। সে সমস্যা কাটিয়ে উঠার জন্য তরুণদের সম্পৃক্ত করতে চাই। তাদের মুখ থেকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার বিষয়টি তুলে ধরতে চাই। তারা দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে; সরকারে এবং সরকারের বাইরে দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব যাদের হাতে অর্পিত হয়েছে, তারা যথাযতভাবেই সে সমস্যা সমাধানে ভূমিকা পালন করবেন, সে চাহিদা সৃষ্টি করবেন।

ইফতেখারুজ্জামান আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার একটি স্বাধীন জাতি হিসেবে বাংলাদেশের যে আত্মপরিচয় তার সঙ্গে জঙ্গিবাদ-উগ্রবাদ বা সাম্প্রদায়িকতার বিষয়গুলো মোটেই যায় না। এ চেতনায় উদ্বুদ্ধ যে তরুণ সমাজ, তারা অবশ্যই সেগুলোকে বর্জন করবে। মানুষকে সোচ্চার করবে। শুধু নিজেদের কাজের মাধ্যমে-সঠিকভাবে, সততার সঙ্গে সুশাসন দাবির একজন সক্রিয় সৈনিক হবে।

তিনি আরো বলেন, তরুণরা নিজেদের প্রতিষ্ঠা করার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সঙ্গে যেগুলো সাংঘর্ষিক সেগুলোকে নিজেদের শক্তি সামর্থ দিয়ে প্রতিহত করার ক্ষেত্রে তরুণরা সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে।