মেইন ম্যেনু

উৎকট সাজ নয়, অফিসের জন্য কর্পোরেট লুক

অতিরিক্ত উজ্জ্বল রঙের পোশাক, জমকালো ছাপার পোশাক পরে অফিসে যাওয়া করা যাবে না।উৎসবের সময় যে পোশাক পরে থাকেন তা পরে অফিসে যাওয়া যায় না। মোদ্দা কথা, কোন অনুষ্ঠানে কী পোশাক পরবেন, তা আগে থেকেই ঠিক করে নেওয়া প্রয়োজন।

অফিসে আপনাকে স্মার্ট এবং পরিবেশের উপযোগী দেখানো উচিত। কিছু কিছু অফিসে যেমন খুশি পোশাক পরার স্বাধীনতা থাকলেও অফিসের পোশাকে এক ধরনের শৃঙ্খলা থাকা উচিত। মনে করুন কোনও ব্যাংক ম্যানেজার যদি জিনস্ আর টিশার্ট পরে অফিসে আসেন, তা হলে কেমন দেখাবে? আপনি কি এমন পোশাক পরা ম্যানেজারকে দেখে বিনিয়োগের কথা ভাবতে পারবেন? তার বদলে যদি স্যুট-টাই পরে তাঁরা অফিসে আসেন, আপনি অনেক বেশি ভরসা পাবেন তাঁকে দেখে। মেয়েদের ক্ষেত্রেও তাই। অফিসের কর্মীদের পোশাকআশাকে এক ধরনের ছিমছাম ভাবা থাকা খুবই জরুরি।

কিন্তু অফিসে যাওয়ার সময় অনেকেই এই সব ভাবনা মনে রাখেন না। বাইরে যে সমস্ত পোশাক পরে যান, সেই পোশাকেই তাঁরা অফিসে চলে যান। তার চাইতে বরং ইস্ত্রি করা শার্ট-প্যান্ট যদি রাখা হয় অফিসে যাওয়ার জন্য, তা হলে বেশ মানানসই হয়, সঙ্গে থাকুক ফর্ম্যাল জুতো।

অফিসে যাওয়ার ক্ষেত্রে মেয়েদের পোশাকআশাকের বৈচিত্র অনেক। তাঁরা পরতে পারেন শাড়ি, সালোয়ার কামিজ এবং ওয়েস্টার্ন পোশাকআশাক। তবে যে পোশাকই পরুন, তা যেন অতিরিক্ত ঝলমলে না হয়।
মেয়েরা অনেক সময়ই অফিসে নানা মিটিংয়ে যাবার আগে বেশি ঝলমলে জামাকাপড়় পরে ফেলেন। পোশাকআশাক পরার সময় বা়ড়াবা়ড়ি করবেন না। এমন কিছু পোশাক পরবেন না যাতে অন্যদের দৃষ্টি আকর্ষণ হয়। ক়ড়া পারফিউম, উজ্জ্বল মেক আপ বা বেশি চটকদার, খোলামেলা জামাকাপড় কাজের জায়গায় না পরাই ভাল।

একটা কথা মনে রাখবেন। আপনি কী ভাবে কথা বলছেন, আপনার ব্যক্তিত্ব কতটা প্রখর— সেটাই কিন্তু কাজের জায়গার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ। পোশাকআশাক কতটা ঝলমলে সেটাতে কিন্তু কিছু যায় আসে না।

পার্টি হোক বা বাড়ির অনুষ্ঠান বা পিকনিক— একেক জায়গার পোশাক নির্বাচন হতে হবে একেক রকম। তবে অফিসের পোশাক পরিচ্ছন্ন, ডিগনিফায়েড হওয়াটা খুব দরকার। চুলের স্টাইলেরও যেন পোশাকের সঙ্গে সামঞ্জস্য থাকে। অতিরিক্ত গয়না পরে ফেলবেন না। মন থাকুক কাজে। বা প্রেজেন্টেশনটা ক্লায়েন্টকে ঠিক ভাবে দিতে পারছেন কি না তার ওপর। পোশাক যদি পরিচ্ছন্ন এবং সম্ভ্রান্ত হয়, তা হলে কাজের জায়গায় ভাবনাচিন্তাটাও স্বচ্ছ হবে। উৎকট সেজে অফিসে যাবেন না।

তবে মেয়েরা যেখানেই যান, হ্যান্ডব্যাগে সব সময়ই একছড়া মুক্তোর হার, মেক আপ আর ফেস পাউডার সঙ্গে রাখুন।