মেইন ম্যেনু

উৎসবের অপেক্ষা : চার কোটি শিক্ষার্থী পাবে নতুন বই

সারা দেশে প্রাক-প্রাথমিক থেকে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য নতুন পাঠ্যপুস্তক উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। স্কুল পর্যায়ে প্রস্তুতিও নেওয়া হয়েছে।

এখন চলছে বর্ণাঢ্য আয়োজনে পাঠ্যপুস্তক উৎসবের অপেক্ষা। সারা দেশের প্রাক-প্রাথমিক, মাধ্যমিক, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহের ৪ কোটি ২৬ লাখ ৩৫ হাজার ৯২৯ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৩৬ কোটি ২১ লাখ ৮২ হাজার ২৪৫টি বই বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে আজ শনিবার শিশুদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে বই উৎসবের উদ্বোধন করেন। প্রধানমন্ত্রী প্রাক-প্রাথমিক থেকে শুরু করে প্রাথমিক, ইবতেদায়ি, মাধ্যমিক, দাখিল, কারিগরি, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন বিভিন্ন শ্রেণির শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ২০১০ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত আট বছরে সর্বমোট বিতরণ করা পাঠ্যবইয়ের সংখ্যা দাঁড়াচ্ছে ২২৫ কোটি ৪৩ লাখ ১ হাজার ১২৮টি। রবিবার সারা দেশে নানা বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পাঠ্যপুস্তক উৎসব উদযাপিত হবে বলে জানান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব সুবোধ চন্দ্র ঢালী। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সকাল সাড়ে ৯টায় আজিমপুর গভর্নমেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে পাঠ্যপুস্তক উৎসবের কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন। জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে।

অন্যদিকে, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সকাল ১০টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ উৎসবের আয়োজন করেছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুষ্ঠানে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, এনসিটিবির চেয়ারম্যান নারায়ণ চন্দ্র সাহা এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও এর অধীনস্থ দপ্তরসমূহের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। অনুষ্ঠানে ঢাকার ৩১টি স্কুলের ৫ হাজারের অধিক সংখ্যক শিক্ষার্থী উপস্থিত থাকবে বলে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, দেশের মাধ্যমিক স্তরের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এ উৎসব উদযাপন করা হবে। বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ উৎসবে উপস্থিত থাকবেন। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত প্রধান অতিথি ছাড়াও বিশেষ অতিথি থাকবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান। এ ছাড়াও থাকবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মোতাহার হোসেন। সভাপতিত্ব করবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ আসিফ-উজ-জামান।



« (পূর্বের সংবাদ)