মেইন ম্যেনু

উড়ালসড়ক ধস : ‘ভগবানের হাত’ নাকি নাশকতা?

কলকাতায় উড়ালসড়ক ভেঙে ‍দুই ডজনের বেশি মানুষ নিহত হওয়ার ঘটনায় ঠিকাদার কোম্পানি তেলেসমাতি কাণ্ড শুরু করেছে। বৃহস্পতিবার কলকাতার পোস্তায় নির্মীয়মান উড়ালসড়কটি ভেঙে পড়ার ঘটনায় হত্যা মামলা করেছে পুলিশ।

কিন্তু ঘটনার দিন একে ‘ভগবানের হাত’ বলে বর্ণনা করেছিল ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান আইভিআরসিএল লিমিটেড। একদিনের মাথায় ভোল পাল্টে ‘নাশকতার’ ইঙ্গিত দিচ্ছেন তারা।

প্রতিষ্ঠানের আইনি বিভাগের প্রধান পি সীতা সাংবাদ সম্মেলনে করে বলেছেন, এটা দুর্ঘটনা মাত্র। আর দুর্ঘটনার উপর কারোর হাত থাকে না। দুর্ঘটনার কারণ জানতে অনুসন্ধান চলছে।

একই সঙ্গে একটি পত্রিকায় প্রকাশিত ছবি দেখিয়ে তিনি এও বলেন যে, ‘মনে হচ্ছে, যেন বোমা বিস্ফোরণ হয়েছে।’

সাংবাদিকরা তাকে করেন, তাহলে কি তিনি বিস্ফোরণে ভেঙে পড়ার কথা বলছেন? এর উত্তরে তিনি বলেন, ‘জানি না। তবে তা খতিয়ে দেখতে হবে।’

এর আগে ওই উড়ালসড়কের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান আইভিআইসিএল গ্রুপ-এর কর্মকর্তা কে পাণ্ডুরঙ্গ রাও বলেছিলেন, ‘আমরা ২৭ বছর এ ধরনের কাজ করছি। কিন্তু এমনটা কোনওদিনই হয়নি। কলকাতায় উড়ালপুল ভেঙে পড়ার ঘটনা ভগবানের হাত ছাড়া আর কিছুই নয়!’

তিনি বলেন, উড়ালসড়ক নির্মাণের ৪৫ শতাংশ কাজ হয়ে গিয়েছিল। নিশ্চয়ই একটা গার্ডার খোয়া গিয়ে থাকবে এবং আর একটি সম্ভবত পড়ে গেছে।

এদিকে ঠিকাদারের এমন বক্তব্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ও সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন, এ ধরনের দায়সারা বিবৃতি অবাঞ্ছিত।

কলকাতার উড়ালসড়ক ধসে পড়ে এখন পর্যন্ত ২৫ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছে আরো অর্ধশতাধিক।

এ দুর্ঘটনায় ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ৬ কর্মকর্তাকে আটক করা হয়েছে।