মেইন ম্যেনু

এই একটি ভুলে নষ্ট হয়ে যেতে পারে আপনার হেয়ারকাট

একেক জনের চেহারায় একেক ধরণের হেয়ারকাট মানানসই। নিজের সাথে মানায় এমন হেয়ারকাট দিতে হবে তা জানেন সবাই। কিন্তু এর পরেও ছোট একটা ভুল করি আমরা যার ফলে পার্লার থেকে এসে চুলের অবস্থা দেখে মেজাজ খারাপ হয়ে যায়। কী কারণে হয় এমনটা? হয়তোবা এর জন্য দায়ী আমাদেরই একটি ছোট্ট ভুল।

এই কাজটি হলো, ভেজা চুলে হেয়ারকাট দেওয়া। অনেকেই ভেজা চুল নিয়ে চুল কাটাতে যান। চুল কাটানো শেষে চুল ব্লো ড্রাই করে, স্টাইলিং করে খুশি মনে ফিরে আসেন বাড়িতে। কিন্তু স্টাইলিং চলে গেলেই তারা নিজেদের চুলের আসল অবস্থাটা বুঝতে পারেন। তখন আর কিছু করার থাকে না।

Spoke & Weal salons এর স্টাইলিস্ট জন রেম্যানের মতে ভেজা চুল কাটাটা অনুচিত। ভেজা অবস্থায় চুল একসাথে লেগে থাকে। এগুলো শুকনো অবস্থার চাইতে অনেকটা লম্বাও মনে হয়। এ কারণে চুল শুকানোর পর দেখা যায় আপনি যতটা চেয়েছিলেন তার চাইতে চুল অনেকটা ছোট হয়ে এসেছে। এ কারণে চুলে স্ট্রেইট এবং শুকনো অবস্থায় কাটা ভালো বলে তিনি মত দেন।

শুকনো অবস্থায় চুল কাটানোটা হেয়ারড্রেসারের জন্যও সুবিধা, জানা যায় Huffington Post থেকে। শুকনো চুলে অনেক টেক্সচার থাকে যা ভেজা অবস্থায় বোঝা যায় না। তাই শুকনো থাকলে হেয়ার ড্রেসার আসলে বুঝতে পারবেন আপনার চুলের অবস্থা। তারা চুল কাটার সময়েই বুঝতে পারেন চুল আসলে দেখতে কেমন হবে। ভেজা চুল কাটলে কাটার সময়ে এটা বোঝা যায় না, এর জন্য চুল ব্লো ড্রাই করা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়। আর শুকনো চুল কাটালে আপনি নিজেও বুঝতে পারবেন চুল কতটুকু কাটা হয়ে যাচ্ছে, বেশি কাটা হচ্ছে কিনা।

কোঁকড়া চুলের নারীদের জন্য শুকনো চুল কাটাটা বেশি উপকারী। কারণ এতে চুলের প্রতিটি কার্ল আলাদা করে বুঝে সে অনুযায়ী কাটানো যায়। কিন্তু চুল ভেজা হলে একগোছা চুল আরেক গছার সাথে আটকে থাকে ফলে বোঝা যায় না কিভাবে কাটতে হবে।

এছাড়াও চুলের সার্বিক স্বাস্থ্যের জন্য শুকনো চুল কাটানোটাই ভালো। কারণ ভেজা চুল কাটলে চুলের আগা কিছুটা ফেটে যাবার সম্ভাবনা থাকে। আর এভাবে চুল কাটালে এর পর বেশ কিছুদিন চুল না কাটালেও চলে।

ছোটবেলা থেকেই আমরা দেখে আসছি, পার্লারে গেলেই চুলে বেশ কিছুটা পানি স্প্রে করে চুল কাটা হয়। এ কারণে শুকনো চুল কাটানোটা অনেকের কাছেই অদ্ভুত লাগতে পারে। চিন্তিত না হয়ে শুকনো চুল কাটিয়ে দেখুন। পরিবর্তনটা বুঝতে পেরে নিজেই অবাক হয়ে যাবেন।



« (পূর্বের সংবাদ)