মেইন ম্যেনু

এই ঘরোয়া মিশ্রণে ৭ দিনে দূর হবে খুশকি, বন্ধ হবে চুল পড়া, কালো হবে চুল

এই ঘরোয়া কৌশলের প্রয়োগে শুধু যে চুলের অকাল বার্ধক্য রোধ করা যাবে তা-ই নয়, পাশাপাশি এটি চুল পড়া বন্ধ করবে, এবং সাদা চুলকে কালো করে তুলতেও সাহায্য করবে।

অল্প বয়সেই চুল পেকে যাওয়ার সমস্যায় ভোগেন অনেকেই। হরমোনের ভারসাম্যের অভাব, অপুষ্টি, থাইরয়েডের সমস্যা— নানা কারণে চুল সময়ের আগেই সাদা হয়ে যেতে পারে। এমনটা হলে বেশিরভাগই মানুষই চুল কালো করতে কলপ বা হেয়ার ডাইয়ের সাহায্য নিয়ে থাকেন। কিন্তু হেয়ার ডাই চুল কালো করার সাময়িক উপায়মাত্র। তাছাড়া অধিকাংশ হেয়ার ডাইতেই থাকে এমন কিছু রাসায়নিক উপাদান যা ক্ষতি করে চুলের স্বাস্থ্যের। সবচেয়ে ভালো হয়, যদি কোনও প্রাকৃতিক উপায়ে সাদা চুল কালো করে তোলা যায়। তেমনই একটি কৌশলের হদিশ দিয়েছে অ্যাসোসিয়েশন অফ অল্টারনেটিভ মেডিসিন অফ দুবাই। তাদের প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে নির্দেশিত এই ঘরোয়া কৌশলের প্রয়োগে শুধু যে চুলের অকাল বার্ধক্য রোধ করা যাবে তা-ই নয়, পাশাপাশি এটি চুল পড়া বন্ধ করবে, এবং সাদা চুলকে কালো করে তুলতেও সাহায্য করবে।

গবেষণাপত্রের নির্দেশিকা অনুযায়ী, অকালে চুল পেকে যাওয়া আটকাতে লাগবে সামান্য দু’টি জিনিস—

১. আধ কাপ নারকোল তেল, এবং

২. তিন চা চামচ পাতি লেবুর রস।

এবার জেনে নিন কী করতে হবে। প্রথমেই এই উপাদান দু’টিকে একটি পাত্রে মিশিয়ে নিন। তারপর মিশ্রণের কিছুটা হাতে নিয়ে চুলের গোড়ায় হালকা ম্যাসাজ করুন। এই অবস্থায় ঘন্টাখানেক রেখে দিন। তারপর সাদা জলে চুল ধুয়ে হালকা (অর্থাৎ ক্ষতিকর রাসায়নিক বিবর্জিত) কোনও শ্যাম্পু দিয়ে চুল পরিস্কার করে নিন। ব্যস, আপনার কাজ শেষ।

গবেষণাপত্রটিতে বলা হয়েছে, সপ্তাহে একদিন এই মিশ্রণ প্রয়োগ করাই যথেষ্ট। তবে দ্রুত ফল লাভ করতে চাইলে সাময়িকভাবে রোজ এই মিশ্রণ ব্যবহার করা যেতে পারে। এতে শুধু যে অকালে চুল পেকে যাওয়া আটকাবে তা-ই নয়, বন্ধ হবে চুল পড়াও। রোজ ব্যবহার করলে সাত দিনেই অনেকখানি ফিরে যাবে চুলের স্বাস্থ্য।

এছাড়া যাঁরা খুশকির সমস্যায় ভোগেন তাঁরা রোজ আধ কাপ নারকোল তেলের সঙ্গে দু’ চা চামচ হালকা গরম জল আর এক চা চামচ ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে চুলের গোড়ায় সেই মিশ্রণ ম্যাসাজ করে আধ ঘন্টা পরে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেললে হপ্তা খানেকের মধ্যেই খুশকির হাত থেকে মুক্তি পাবেন।-এবেলা