মেইন ম্যেনু

এই না হলে প্রেসিডেন্ট!

পূর্ব আফ্রিকার দেশ তানজানিয়ার নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জন মাগুফুলির আরেক নাম ‘দ্যা বুলডোজার’। বুধবার দেশটির স্বাধীনতা দিবসে প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ থেকে ঝাড়ু হাতে বেরিয়ে পড়েছিলেন ‘বুলডোজার’।

গত অক্টোবর মাসে প্রেসিডেন্ট মাগুফুলি দায়িত্বভার গ্রহণ করেন । কাজ কিংবা কথাবার্তা কোনোটাই নিয়ে ঘোরপ্যাঁচ করেন না তিনি। যা বলার সেটি সরাসরিই বলে ফেলেন। দেশ থেকে দুর্নীতি উৎখাতের জন্য জনগণের কাছে তিনি তার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন। বুধবার স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের জাকঁজমকে কাটছাঁট করেছেন তিনি । বাতিল করে দিয়েছেন সশস্ত্র বাহিনীর কুচকাওয়াজ আর গানের কনসার্ট।

তার ভাষ্য, অপব্যয় করার মতো অর্থনৈতিক অবস্থা তার দেশের নেই। দেশ যখন কলেরা প্রাদুর্ভাবে পর্যুদুস্ত তখন এত অর্থ ব্যয় করার কোনো যুক্তি নেই। ব্যয় সংকোচ করতে তিনি রাষ্ট্রীয় কর্মকর্তাদের বিদেশ সফর বাতিল করেছেন, সংসদের উদ্বোধনী অধিবেশন উপলক্ষে রাষ্ট্রীয় নৈশভোজের বাজেটেও কাটছাঁট করেছেন। সেই সঙ্গে দুর্নীতির অভিযোগে কয়েকজন কর্মকর্তাকেও গত দুই মাসে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন। প্রসঙ্গত, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল দুর্নীতিগ্রস্ত দেশগুলির যে তালিকা প্রকাশ করে তাতে তানজানিয়ার অবস্থান বরাবরই শীর্ষে রয়েছে।

কলেরার প্রার্দুভাবসহ অন্যান্য রোগবালাই প্রতিরোধ এবং নগরীর সৌন্দর্যের জন্য বুধবার ঝাড়ু হাতে জন মাগুফুলি নিজেই বেরিয়ে পড়েন রাজধানী দার এস সালামে। নিজের হাতেই তিনি পরিস্কার করেছেন রাস্তাঘাটের ময়লা। তার সঙ্গে এই পরিচ্ছন্ন অভিযানে যোগ দিয়েছিল দার এস সালামের হাজার হাজার মানুষ। প্রেসিডেন্টের কর্মকাণ্ডে মুগ্ধ তানজানিয়াবাসী বলেই ফেলেছেন, ‘এই না হলে প্রেসিডেন্ট!’