মেইন ম্যেনু

এই প্রথম মুস্তাফিজের সামনে দিল্লি

৪১ টা ম্যাচ হয়ে গেছে। এখনো মুস্তাফিজের চোখে চোখ রাখা হয়নি কুইন্টন ডি ককের! বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে আটটায় মৌসুমে প্রথমবারের মতো দেখা হচ্ছে তাদের।

আজ ওয়ার্নারের চিন্তায় থাকবেন কুইন্টন ডিকক। দুর্দান্ত ফর্মে আছেন। অন্যদিকে জহির খান পথ খুঁজবেন মুস্তাফিজকে সামলানোর।

সানরাইজার্সকে আটকাতে অনেক জলঘোলা করতে হবে দিল্লিকে। এবারের আইপিএলে একমাত্র ডেভিড ওয়ার্নারের দলটিই আগে ব্যাট করে ধারাবাহিক জয় পাচ্ছে। এমনকি মামুলি পুঁজি নিয়েও লড়াই করতে ভয় পাচ্ছে না দলটি।

ভুবনেশ্বর কুমার নিজের সুইং খুঁজে পেয়েছেন। শুরুতে নেহেরা উইকেট নিচ্ছেন। আর মাঝামাঝিতে কাটার-ইয়র্কারে ঝড় তুলছেন মুস্তাফিজুর রহমান। এমন বোলিং লাইনআপ আইপিএলে কবে কে দেখেছে!

দিল্লি ডেয়ারডেভিলস ৯৮ রানে অলআউট হয়ে মৌসুম শুরু করেছিল। জহির খান ওই ম্যাচ শেষে একগাল হাসি দিয়ে বলেছিলেন, ‘একটা বাজে দিনে কিছু যাবে-আসবে না।’ মি. খানের এই কথার সত্যতা প্রমাণ করেন তার সতীর্থরা। পরের ছয় ম্যাচের পাঁচটিতে জয় তুলে নেন তারা। কিন্তু আজ হায়দ্রাবাদে যখন খেলতে নামবেন, তখন কিন্তু মাথায় ঘুরপাক খাবে শেষ দুই ম্যাচের হারের কথা।

অন্যদিকে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ শেষ চার ম্যাচেই অপরাজিত। পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষে। আজ জিতলে শেষ চারের অনেকটা কাছে চলে যাবে তারা। ঘরের মাঠে এই সুযোগ কী আর হেলায় হারাবেন মুস্তাফিজরা? যদি না হারান, তবে দিল্লির ধারাবাহিক ‘পরাজয়ের মালা’য় তিনটি ফুল জুড়ে যাবে। আর হায়দ্রাবাদের ‘জয়ের মালা’য় পাঁচটি!