মেইন ম্যেনু

এই বাজেটেই হচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর’

প্রস্তাবিত বাজেটে (২০১৬-১৭) বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের জন্য ৫৪৯ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে চলতি অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ রয়েছে ৩২৯ কোটি টাকা। আসছে অর্থবছরে বরাদ্দ বাড়ছে ২২০ কোটি টাকা।

জাতীয় সংসদে বৃহস্পতিবার (০২ জুন) বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন খাতে এ বরাদ্দের প্রস্তাব করেন। এর মধ্যে পর্যটন খাতে একশ কোটি টাকা বরাদ্দের কথা জানান।

অর্থমন্ত্রী বাজেট বক্তৃতায় বলেন, আন্তর্জাতিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে যাত্রী ও কার্গো পরিবহনের গুরুত্ব বিবেচনায় দেশের ৩টি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরসহ অন্যান্য বিমানবন্দরের উন্নয়ন ও আধুনিকায়নে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এছাড়া কক্সবাজার বিমানবন্দরেরর আধুনিকায়ন এবং সকল বিমানবন্দরের সেফটি ও সিকিউরিট ব্যবস্থার উন্নয়নের কাজ শুরু হয়েছে।

মাদারীপুর, ঢাকার দোহার অথবা মুন্সিগঞ্জে ‘বঙ্গবন্ধু বিমানবন্দর’ নামে একটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর নির্মাণের প্রস্তুতিমূলক কাজ শুরু হয়েছে। বাজেটে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন খাতে প্রস্তাবিত ৫৪৯ কোটি টাকার মধ্যে পর্যটন শিল্পের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্দের কথা বলেছেন অর্থমন্ত্রী। ২০১৬ সালকে সরকার ‘পর্যটনবর্ষ’ ঘোষণা করলেও পর্যটন শিল্পের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে চলতি বছরে তেমন কোনো অর্থ পায়নি পর্যটন মন্ত্রণালয়। এ নিয়ে মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন একাধিকবার ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।