মেইন ম্যেনু

এই মানুষটির জন্য আরও কমবে ভাল মানের স্মার্টফোনের দাম!

ভারতের বুকে ভাল মানের একটি স্মার্টফোন কিনতে গেলে কমপক্ষে ৮ হাজার টাকা খসাতে হয়। বেশিরভাগ শহুরে মানুষের কাছে এই অর্থের সংস্থান হয়তো খুব অসাধ্য নয় কিন্তু, গ্রামাঞ্চলে থাকা মানুষের কাছে ৮ হাজার টাকার স্মার্টফোন কেনা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই স্বপ্নের সামিল। কিন্তু, ডিজিটাল ভারতের স্বপ্নকে সত্যি করতে গেলে গ্রামের মানুষের হাতে স্মার্টফোন থাকাটা যে জরুরি তা আরও একবার বললেন গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই।

বৃহস্পতিবার আইআইটি খড়্গপুরে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে সুন্দর পিচাই বলেন, ‘দেশের বুকে তথ্য-প্রযুক্তি শিল্পে এত প্রতিভাবানরা আছেন যে ডিজিটাল ভারতের স্বপ্ন এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।’ তবে, ডিজিটাল ভারতের স্বপ্ন বাস্তবায়িত করতে হলে দেশের প্রতিটি মানুষের হাতে স্মার্টফোন থাকতে হবে বলেও জানান সুন্দর। তাঁর মতে, প্রতিটি মানুষের হাতে তখনই স্মার্টফোন থাকা সম্ভব যখন এর দাম সকলেরই আয়ত্তের মধ্যে হবে। তাই সুন্দর পিচাই চান, যত শীঘ্র সম্ভব ভারতের বাজারে কমদামে ভাল স্মার্টফোনের জোগান হোক। কারণ, কয়েক হাজার টাকা খরচ করে গ্রামাঞ্চলের মানুষের পক্ষে ভাল মানের স্মার্টফোন কেনা সব সময় সম্ভব নয়। কমদামি স্মার্টফোনের জোগানে সওয়াল করার পাশাপাশি সুন্দর পিচাই আরও জানান, দেশে ‘ইন্টারনেট কানেকটিভিটি’ সুগম হতে হবে। সুন্দর বলেন, ‘ইন্টারনেটের স্পিড আরও বাড়াতে হবে।’

ভারতে ইন্টারনেট পরিষেবাকে সুগম করতে গুগল বিভিন্ন উদ্যোগও নিয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম দেশের সমস্ত রেল স্টেশনে ওয়াই-ফাই পরিষেবা চালু করা। ইতিমধ্যে, খড়্গপুর-সহ দেশের ১০০-রও বেশি রেলস্টেশনে গুগল ওয়াই-ফাই পরিষেবা যে চালু করেছে তাও জানান সুন্দর। গুগল-এর সিইও-র আশা, আগামী ৪ বছরের মধ্যেই ভারত ডিজিটাল পরিষেবায় এক নম্বর স্থান অধিকার করে নেবে। কিন্তু, দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের হাতে স্মার্টফোন তুলে দেওয়া এবং সুলভে আন্তর্জাতিকমানের ইন্টারনেট পরিষেবা ছাড়া এই স্বপ্ন পূরণ যে সম্ভব নয় তাও কিন্তু, এদিন স্মরণ করিয়ে দেন। -এবেলা।