মেইন ম্যেনু

এই শর্ত না জেনে চুল কাটালে পস্তাবেন কেন?

চুল কাটিয়ে বাড়ি ফিরে ঠিক সন্তুষ্টি হয় না আপনার? বন্ধুদের বারবার জিজ্ঞেস করতে হয় হেয়ারকাটটা ঠিক মানিয়েছে কি না! মন খুঁতখুঁত করে৷ এই সব থেকে এবার মুক্তি পেতে পারেন আপনি৷ নয়া হেয়ারকাটের আগে জেনে নিন কয়েকটি টিপস৷ কিছু কথা মাথায় রেখে তবেই যান চুল কাটাতে৷ তাহলেই দেখবেন আপনাকে জিজ্ঞেসা করতে হচ্ছে না৷

নিজের মুখের আকৃতি চিনুন
সঠিক স্টাইলে চুল কাটতে নিজের মুখের আকৃতি সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন। মুখের আকৃতি মানে আপনার চোয়ালের গঠন কেমন। এক এক মুখে এক এক হেয়ারকাট মানায়। অন্যের মুখে কোন হেয়ারকাট ভালো লাগছে বলে আপনিও গিয়ে সেই একই হেয়ারকাট কাটিয়ে নিলেন৷ অথচ সেই কাট একেবারেই মানালো না আপনাকে৷ কারণ আপনার মুখের গঠন আলাদা৷

আপনাকে কী মানাবে সেটা জানুন
ডিম্বাকৃতি মুখ হচ্ছে সব থেকে বেশি আকর্ষণীয়। যদি হেয়ারকাট আপনার মুখকে ওভাল শেপ করে তোলে, তখনই আপনাকে দেখতে সুন্দর লাগবে। নিজের মুখের আকার কাগজে একে নিন বা নিজের ছবির ওপরে পছন্দের হেয়ার স্টাইল এঁকে দেখুন। যদি দেখতে পান যে মুখ গোল দেখাচ্ছে, বুঝবেন যে হেয়ার কাটটি আপনাকে মানিয়ে যাবে।

নিজের চুলকে জানুন
নিজের চুলের গোছ, টেক্সচার ইত্যাদিকে জানুন। আপনি সোজা চুলে যে স্টাইল করতে পারবেন, কোঁকড়া চুলে আপনাকে সেটা মানাবে না। রুক্ষ্ম আর মোলায়েম চুলের স্টাইলও এক হবে না কখনওই। তাই হেয়ার এক্সপার্টের সঙ্গে কথা বলেই স্টাইল বাছুন।

প্রত্যাশা রাখুন বাস্তবসম্মত
এখন স্টারের মতো হেয়ারস্টাইল করলেন বলেই আপনাকে দেখতে তাঁর মত মনে হবে এমনটা ভাবতে যাবেন না ভুলেও। অন্ধ অনুকরণ না করে নিজের সঙ্গে মানানসই হেয়ার কাট বেছে নিন।

নিজের লাইফ স্টাইল মাথায় রাখুন
অনেক হেয়ার কাটই আছে, যেগুলিকে নিয়মিত যত্ন করতে হয়। তা না করলে দেখতে সুন্দর লাগে না। এমন অবস্থায় আগে ভেবে দেখুন আপনার কাছে কতটুকু সময় আছে প্রতিদিন আপনার চুলের পিছনে ব্যয় করার মত। যদি তা থাকে তাহলেই সেই কাট কাটুন৷

কতটা চুল কাটতেই চান সেটা নিশ্চিত হয়ে নিন
অনেকেই চুল কেটে ফেলার পর মন খারাপ করেন। কারণ, চুল বাড়তে সময় নেয়! তাই আগেই মনস্থির করে নিন যে কতটা চুল আপনি কাটতে চান এবং কী পরিবর্তন চান চুলে। সেই মতো পরিষ্কার করে কথা বলুন হেয়ার এক্সপার্টের সঙ্গে৷