মেইন ম্যেনু

এই ১৫টি লক্ষণে বুঝবেন আপনার সঙ্গীনি আসলে ভণ্ড, আপনাকে ঠকাচ্ছেন…

তাঁর ব্যবহার দেখে কি মনে হয়, সবসময়েই একেবারে পারফেক্ট? কখনও মনে হয়, একটা মুখোশ চাপিয়ে রেখেছেন? মনে রাখবেন, ব্যবহারিক দিক থেকে কোনও মানুষই পারফেক্ট হতে পারেন না। যাঁরা একেবারে ত্রুটিমুক্ত, তাঁরা ভেকধারী।

তাঁর অতীতে নাটকীয়তা ভর্তি? বিশেষ করে নারী বা পুরুষ এবং সম্পর্ক নিয়ে? এমন মানুষের সঙ্গে সম্পর্কে জড়াবেন না।

ডেটিংয়ে বেরিয়ে কি তিনি খরচ করতে কার্পণ্য করেন? সস্তায় বাজিমাত করতে চান? অথচ খরচ করার ক্ষমতা রয়েছে? এই ধরনের মানুষের সঙ্গে খুব বেশিক্ষণ থাকতে পারবেন কি?

সামান্য ভুলেই কি তিনি কারও বিরুদ্ধে হাতে খড়গ তুলে নেন? বের করে দেন চাকরি থেকে। বলে দেন মুখের উপরে, ‘‘ইউ আর ফায়ার্ড’’? এটা আপনার সঙ্গেও কিন্তু যে কোনও দিন ঘটতে পারে।

তাঁর কি প্রচুর পুরুষ বা মহিলা বন্ধু রয়েছে? এবং তার থেকেও বড় কথা, এই বন্ধুত্ব নিয়ে কি আপনি কোনও কারণে অস্বস্তিতে ভোগেন? আপনার কি মনে হয় যে, সেই বন্ধুত্বের আড়ালে লুকিয়ে রয়েছে অন্য রসায়ন? বেরিয়ে আসুন সম্পর্ক থেকে।

আপনার সঙ্গে ভাল ব্যবহার করেন, কিন্তু আশপাশের সকলের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার? রেস্তোরাঁয় আপনার কাছে মিস্টার বা মিস পারফেক্ট। কিন্তু ওয়েটারের সঙ্গে মালিকসুলভ ব্যবহার? এই ধরনের লোকের সঙ্গে খুব বেশিক্ষণ না থাকাই ভাল।

খেয়াল করুন, তিনি কোথায় আপনার সঙ্গে প্রেম করতে চাইছেন? সর্বদাই কি ফাঁকা বাড়ি তাঁর লক্ষ্য? তা হলে বুঝবেন, মন নয়, শরীরই এঁর কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। সতর্ক থাকুন।

কেরিয়ার নিয়ে অহঙ্কারি? দম্ভে মাটিতে পা পড়ে না? তা হলে বুঝবেন, এই ব্যক্তি কেরিয়ারের জন্য সর্বস্ব ত্যাগ করতে পারেন। আপনাকেও। কী করবেন, এর পরেও বলতে হবে?

নিজেকে নিয়েই তিনি ব্যস্ত? নিজের কেরিয়ার, সাফল্য বা ফ্যাশন, বন্ধুবান্ধব? জেনে নিন, এই ব্যক্তির কাছে আপনার জন্য সময় কম। সতর্ক হয়ে যান।

কথায় কথায় আপনার পরীক্ষা নিচ্ছেন? আপনি সত্যবাদী কি না, তা যাচাইয়ের চেষ্টা করছেন? তা হলে ধরে নিন, আপনার উপরে তাঁর কোনও বিশ্বাস নেই। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন, এই ধরনের ব্যক্তির সঙ্গে সম্পর্ক রাখবেন কেন? দ্বিতীয়ত, এ-ও হতে পারে আপনার সঙ্গে বিচ্ছেদের বাহানা খুঁজছেন তিনি। সে ক্ষেত্রেও সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসুন।

কোনও ঘটনাতেই কি তিনি ‘দুঃখিত’ নন। ‘‘সরি’’ শব্দটি কি তাঁর ভাণ্ডারে নেই? তা হলে বুঝে নেবেন, আপনাকে ‘‘সরি’’ বলার অর্থ তাঁর কাছে পরাজয়ের সামিল। এই ধরনের ব্যক্তির কাছে সম্পর্কের মূল্য খুব একটা থাকে না। এঁরা এক সম্পর্ক থেকে আর এক সম্পর্কে অনায়াসেই চলে যেতে পারেন।

যে কোনও সমস্যা না-মিটিয়ে তিনি কি সব কিছুই সময়ের উপরে ছেড়ে দেন? বুঝতে হবে, তাঁর কমিটমেন্টের অভাব রয়েছে।

সম্পর্কের গোড়া থেকেই বিয়ের বিরুদ্ধে তাঁর নানা মত? নিজেকে প্রগতিশীল দেখানোর আড়ালে তিনি দায়িত্ব এবং দায়বদ্ধতা এড়িয়ে যাচ্ছেন না তো? বেরিয়ে আসুন সেই সম্পর্ক থেকে।

কথায় কথায় ক্লাব, পার্টি নিয়ে মেতে থাকেন? সন্দেহ করার প্রয়োজন নেই। তবে তিনি কী ধরনের মানুষ, তার উপর নির্ভর করছে এই অতিরিক্ত ক্লাব, পার্টির পরিণাম। বহু ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, পরিণাম ভাল নয়। এ ছাড়াও, এই ধরনের অ্যাক্টিভিটি অত্যন্ত লঘু এবং শো-অফের হাতিয়ার।

কথায় কথায় ধর্মের দোহাই দিয়ে বা দিব্যি কেটে কুযুক্তি এড়ানোর চেষ্টা করেন?