মেইন ম্যেনু

এই ৭টি মূলবোধ শিক্ষা আপনার শিশুটিকে দিচ্ছেন তো?

মূল্যবোধ আর নৈতিকতা শিক্ষা দেওয়ার সবচেয়ে উপযুক্ত সময় হল শিশুকাল। শিশুকালে যে শিক্ষাটা পেয়ে থাকে সেটি সারাজীবনের মনে রাখে। এই মূল্যবোধ, নৈতিকতা এইসব শিক্ষাগুলো জীবনের চলার পথ সহজ করে দেবে। সাধারণত ৫ বছর বয়সটি নৈতিকতা শিক্ষার দেওয়ার উপযুক্ত সময়। আপনার শিশুটিকে এই সময় শিক্ষা দিন এই বিষয়গুলো।

১। সততা

এই বয়সে শিশুরা খুব দ্রুত মিথ্যা বলা শেখে। বকা, মারধোরের হাত থেকে বাঁচার জন্য তারা মিথ্যা বলা শুরু করে থাকে। ছোট খাটো এই মিথ্যা বলা এক সময় অভ্যাসে পরিণিত হয়ে যায়। তাই ছোট থাকতে সত্য বলার অভ্যাস গড়ে তুলুন। অন্যায় বা ভুলে বকা বা পিটুনি না দিয়ে বুঝিয়ে বলুন। সত্য কথা বলতে সাহায্য করুন।

২। ন্যায় বিচার

আপনি হয়তো ভাবতেন পারেন ন্যায় বিচার শিক্ষা দেওয়ার জন্য এটি কম বয়স। আপনি ভুল ধারণা করছেন। ন্যায় বিচার শিক্ষা দেওয়ার শুরুটা এই বয়স থেকে করতে হবে। ভাল-মন্দের পার্থ্যকটি এই বয়সেই শিক্ষা দেওয়া শুরু করুন।

৩। সম্মান

বড়দের সম্মান করার শিক্ষাটা এই বয়সে দিতে হবে। আর এই শুরুটা পরিবার থেকে করতে হবে। বড়দের সম্মান করার পাশপাশি বাসার গৃহকর্মীটিকে সম্মান করা শেখাতে হবে এইসময়ে। অনেক সময় বড়দের খারাপ ব্যবহার করা দেখে ছোটরাও গৃহকর্মীর সাথে খারাপ ব্যবহার করে থাকে। তাই গৃহকর্মীর সাথে খারাপ ব্যবহার করার আগে একবার বাচ্চাটির কথা ভাবুন।

৪। নম্রতা

নম্রতাকে আমরা অনেক হালকাভবে দেখে থাকি। কিন্তু এটিও জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। জীবনে সাফাল্যে দম্ভ না করে নম্র হতে শিক্ষা দিন। অন্যের কষ্ট বা ব্যর্থতায় খুশি না হয়ে তাকে সাহায্য করা উচিত। ক্ষমা চাওয়ার শিক্ষাটিও এই বয়সে দেওয়া উচিত।

৫। দায়িত্ববোধ

বিশ্বাস করুন আর নাই করুন, দায়িত্ববোধের শিক্ষাটি দেওয়ার উপযুক্ত সময় এই শিশুকাল। নিজের খেলনাগুলো গুছিয়ে রাখা, ময়লা কাপড়গুলো লন্ড্রির বাস্কেটে রাখা কিংবা ছোট ভাই বোনটিকে দেখে রাখা ইত্যাদি ছোট ছোট কাজগুলো তাকে করতে দিন। এই কাজগুলো তার মাঝে দায়িত্ববোধ সৃষ্টি করবে। নিজের দাঁত নিজেকে ব্রাশ করতে দেওয়াও তাকে দায়িত্ববোধ হতে সাহায্য করবে।

৬। ধৈর্য

জীবনে সাফাল্য অর্জন করতে হলে ধৈর্যের বিকল্প নেই! আপনার শিশুটিকে ধৈর্য ধারণের অভ্যাস করে তুলুন। কোন কাজে ব্যর্থ হলে হতাশ না হয়ে ধৈর্য ধরতে বলুন। এটি তাকে জীবনে সাফাল্য পেতে সাহায্য করবে।

৭। ভালোবাসা

বাবা মার কাছ থেকে সবচেয়ে বেশি যে শব্দটি একটি শিশু শুনে থাকে তা হল ভালোবাসি। ভালোবাসা শুধু নিজের পরিবারের জন্য নয় ভালোবাসা পথ শিশুটির জন্য, ভালোবাসা পশু পাখির জন্য, সব ভালো কিছুর জন্য ভালোবাসা এই শিক্ষাটিও দেওয়ার উপযুক্ত সময় এই বয়সটি।