মেইন ম্যেনু

একজনের হাই উঠলেই বাকিদের ওঠে : জানেন, হাই কি ছোঁয়াচে?

একজনের হাই উঠলেই বাকিরা ‘‘উঁয়া উঁয়া’’ করতে শুরু করেন। কিন্তু কেন এমনটা হয়? কারণ কি শুধুই মানসিক? নাকি আরও কিছু রয়েছে?

সাধারণত বলা হয়ে থাকে যে, ঘুম পেলে শরীরে অক্সিজেনের ঘাটতি হয়। সে কারণেই আমাদের হাই ওঠে। কিন্তু একজনের শরীরে অক্সিজেনের ঘাটতি হলে বাকিদের উপর তা কীভাবে প্রভাব ফেলে? এ ছাড়া শ্বাস ছোট হয়ে গেলেও হাই ওঠে। মস্তিষ্ক ঠান্ডা রাখতেও হাইয়ের জুড়ি মেলা ভার।

এমনটা ভাবার কারণ নেই যে, শুধুমাত্র মানুষের মধ্যেই এই প্রবণতা রয়েছে। পশুরাও একজন হাই তুললে কাছাকাছি থাকা বাকিরা হাই তুলতে শুরু করে। কুকুর থেকে বেবুন, সিল থেকে সিংহ— সকলের মধ্যেই হাই হল ছোঁয়াচে রোগ।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, একজনের হাই দেখে অন্যজনের হাই ওঠা নির্ভর করে দু’জনের সম্পর্কের উপরে। সম্পর্ক যদি ভাল হয়, তাহলে এই ব্যাপারটা ঘটে। আপনার প্রতিপক্ষ যদি দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে হাই তোলেন, আপনি কি তাঁকে ছেড়ে দেবেন? কেন এমন হয়? ধরা যাক একজন হাই তুললেন। তাঁর সঙ্গে সেই স্থানে বাকি যাঁরা ছিলেন, তাঁরা সেই সময়ে একই কাজ করছিলেন। অর্থাৎ, আড্ডা মারা বা টিভি দেখা। কেননা, এ ক্ষেত্রে ধরে নিতে হবে উপস্থিত সকলের মধ্যে সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ। তাই এ-ও ধরে নিতে হবে যে, তাঁরা সকলে একই কাজ করছিলেন। অর্থাৎ, মানসিকভাবে তাঁরা একই আনুভূমিক স্তরে রয়েছেন। এই অবস্থায় একজন হাই তুললে তার সরাসরি প্রভাব পড়ে অন্যদের উপরে। গবেষণায় সেটাই বারবার দেখা গিয়েছে।

অর্থাৎ, হাই ছোঁয়াচে রোগ তখনই যখন উপস্থিত সকলের মধ্যে সৌহার্দ্যপূর্ণ ব্যবহার রয়েছে।- এবেলা