মেইন ম্যেনু

একটি বিজ্ঞাপন ও আমার চোখে পানি!

প্রতিদিনের মতই সকাল সকালই নিজের দোকান খুলত সে। দোকানের সাটার নামাতেই পাগলটাকে দেখতে পেত। কখনও পানি দিয়ে, আবার কখনও বা লাঠি দিয়ে আঘাত করে পাগলটাকে সড়িয়ে দিত। আর তা পাশের দোকানিও দেখতো। এবং খুব বিরক্তবোধ করত লোকটির এই কর্মকান্ডের জন্য।

এভাবে প্রতিদিনই পাগলটা দোকানের সামনেই রাতে ঘুমিয়ে থাকতো। অন্যকোন দোকানের সামনে না গিয়ে প্রতিদিন এই দোকানের সামনেই পরে থাকতো।

একদিন সকালে দোকানদার সাটার খুলে মুত্রের গন্ধ অনুভব করে আর তখন দোকানের সামনে পাগলটাকে শুয়ে থাকতে দেখে। তিনি ভাবলেন এ কর্ম বুঝি পাগলটাই করেছে। রাগান্নিত হয়ে পাগলটা জোরে লাথি মারেন। পাগলটা কোকরাতে কোকরাতে সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

এর কয়েকদিন পর থেকে তিনি পাগলটাকে আর কখনই দোকানের সামনে দেখতে পেলেন না। প্রতিদিন পাগলটাকে তারানোর জন্য কত কিছুইনা করতেন। অথচ বেশ কয়েকদিন তিনি দেখা পাচ্ছেনা। তার ভিতরে অন্যরকম একটি অনুভূতি কাজ করে। এসময় পাশের দোকানি জানায় পাগল চলে গেছে আর কখনও আসবেনা।

লোকটির হঠাৎ চোখ পরল দোকানের বাহিরে থাকা সিসি ক্যামেরা উপর। তিনি অতিতের ভিডিওগুলো দেখতে শুরু করলেন। ভিডিও দেখে তিনি তার চোখের পানি আর ধরে রাখতে পারেননি। খুন হতে হল পাগলটিকে, আর তাও ঐ ব্যাক্তির দোকানের জন্য।

প্রিয় পাঠক মূলত ভিডিওটি থাইল্যান্ডের কর্মারশিয়াল বিজ্ঞাপন। যেটি ছিল সিসি ক্যামেরার। তবে বিজ্ঞাপনটি আপনার ভিতরটা এতটাই ছুয়ে যাবে যে চোখে পানি ধরে রাখতে পারবেন না। চলুন ভিডিওটি দেখে যেনে কি হয়েছিল পাগলটির সাথে আর কেনইবা প্রতিদিন এই দোকানের সামনেই পরে থাকত।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন।