মেইন ম্যেনু

এক’শ কোটির ক্লাবে অক্ষয়ের এয়ারলিফট

১,৭০,০০০ ভারতীয়কে কুয়েত থেকে একা হাতে দেশে ফিরিয়েছিলেন তিনি৷ অক্ষয় কুমারের ‘এয়ারলিফট’ ছবিতে যে চরিত্রের নাম দেওয়া হয়েছে রনজিৎ কাটিয়াল৷ ছবি যেমন বক্স অফিসে সাফল্য পাচ্ছে, তেমনই জুটছে সমালোচনাও৷ অনেকের মতে, একক মানুষের কৃতিত্বকে বড় করে দেখাতে গিয়ে আসল ঘটনাকে অনেকাংশেই সঠিক ভাবে দেখানো হয়নি৷

অবশ্য এর বিরুদ্ধতা করে অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন, সিনেমা কি ইতিহাস বই নাকি যে ঘটনার হবহু বিবরণ দেওয়া থাকবে? অক্ষয়ের ‘এয়ারলিফট’ ঘিরে এই বিতর্ক এখন শিল্পীমহলে জমজমাট৷ আর এসব নিয়েই ছবি পৌঁছে গিয়েছে ১০০ কোটির ক্লাবে৷

বিশেষ কোনও ঘটনা অবলম্বনে তৈরি সিনেমা কতটা মূল ঘটনাকে অনুসরণ করবে তা নিয়ে বিতর্ক নতুন নয়৷ এমনকী উপন্যাস অবলম্বনে তৈরি সিনেমাও কতটা মূল টেক্সট অনুসরণ করবে তা নিয়েও বহু আলোচনা ইতিমধ্যে হয়ে গিয়েছে৷ এ ছবির সঙ্গে যেহেতু দেশের বিদেশমন্ত্রকের ভাবমূর্তির যোগাযোগ আছে, তাই প্রশ্নটা অন্যমাত্রা হয়েছে৷ সিনেমায় রনজিৎ কাটিয়ালের ভূমিকায় অক্ষয় কুমার এমন অভিনয় করেছেন যাতে পুরো ঘটনাটি যে মানুষটি একা হাতেই ঘটিয়েছেন, তা ভাবতে কোথাও অসুবিধা হয় না৷ সরকারী ব্যবস্থা সেখানে অনেকটাই ‘ভিলেন’৷

কিন্তু প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী আই কে গুজরালের আমলের বহু তথ্য দেখিয়ে অনেকে বলছেন, সরকারী ভূমিকাও কিছু কম ছিল না৷ এদিকে রনজিৎ কাটিয়াল যাঁর চরিত্র থেকে অনুপ্রাণিত তিনি একাও যে তা করেছেম এমনটা নয়৷ বাস্তবে দেখা গিয়েছে, অন্তত দু’জন মানুষ এইপরিত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন৷ এখানে সেই দু’জন এক হয়ে যাওয়ায় চরিত্রটি লার্জার দ্যান লাইফ হয়ে উঠেছে প্রায়৷ ফলে অক্ষয়ের ‘এয়ারলিফট’-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ যে, ছবিটি ইতিহাসকে সঠিকভাবে ব্যাখ্যা করছে না৷

পালটা যুক্তি দেখিয়ে কেউ কেউ বলছেন, সিনেমা তো কোনও ইতিহাস বই নয় যে, তার দায় থাকবে ইতিহাসের হুবহু অনুসরণের৷ তথ্যচিত্র যে নিঁখুত ডিটেলিংয়ের দাবী করে, ফিচার ফিল্মে সে ঘাটতি পূরণ করে দেয় কল্পনা৷ অতএব বলিউডি সিনেমার নায়প্রধান দুনিয়ার কথা মাথায় রেখেই তৈরি করা হয়েছে রনজিৎ কাটিয়ালের চরিত্র৷

যুক্তি ও পালটা যুক্তিতে আখেরে লাভবান হচ্ছে ‘এয়ারলিফট’ই৷ ইতিহাসকে সঙ্গে নিয়েই সিনেমা শিল্পের স্বাধীনতা পাথেয় করে দেশের প্রায় অজানা এক ইতিহাসকে তরুণ প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেওয়ার গুরুদায়িত্বও পালন করছে ছবিটি৷ অন্তত এ ছবি দেখে কেউ কেউ যদি ইন্টারনেট খুঁজে আসল সত্যিটা জানার চেষ্টা করেন, তাতে ভাল বই মন্দ নেই৷ সেইসঙ্গে ব্যবসায়িক সাফল্যও জমজমাট৷ প্রথম ৯ দিনেই বক্স অফিসে ১০০ কোটি টাকা সংগ্রহ করে ফেলেছে ছবিটি৷