মেইন ম্যেনু

এক গাছে ১৩১ তরমুজ!

কেউ যদি আপনাকে প্রশ্ন করে একটি তরমুজ গাছে সর্বোচ্চ কয়টি তরমুজ ধরে, নিশ্চিত জবাব ৩-৪টি। কিন্তু চীনের একটি কৃষি প্রযুক্তি কোম্পানি এমন একটি বীজ আবিষ্কার করেছে যেখানে একটি গাছে ১৩১টি তরমুজ ধরেছে।

ইতিমধ্যে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে স্থান পেয়েছে তাদের এ সাফল্য।

ঝেংঝু রিসার্চ সিডিং টেকনোলজি কোম্পানি লিমিটেড এই বীজ আবিষ্কার করেছে। এটি বিশ্বের সবচেয়ে বেশি উৎপাদনে সক্ষম তরমুজ বীজ। এ বীজের এক গাছ থেকে ৯০দিনে সর্বোচ্চ ১৩১টি তরমুজ পাওয়া যাবে।

সাধারণ একটি তরমুজ গাছে সর্বোচ্চ এক ডজন পর্যন্ত তরমুজ ধরতে পারে। কিন্তু পরিণত অবস্থায় পৌঁছাতে একটা অথবা দুটি তরমুজ অবশিষ্ট থাকে। কিন্তু অ্যাগ্রোনোমিস্ট ঝু জুয়েগ্যাং এবং তার দলের আবিষ্কৃত এই বীজের একটি তরমুজও নষ্ট হবে না বলে তাদের দাবি।

প্রাথমিক পরীক্ষায় দেখা গেছে, ২৬ এপ্রিল এ তরমুজের বীজ বপন করার পর ১ মে গাছের শাখা-প্রশাখা একশ বর্গমিটার জায়গাজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। ১ জুন এর ফুল ফুটতে থাকে। ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে ১৩১টি তরমুজ গাছে এসে যায়।

তরমুজের সংখ্যা যেমন চমকপ্রদ এর আকার এবং ওজনও কিন্তু আকর্ষণীয়। একটি তরমুজ সর্বনিম্ন পাঁচ এবং সর্বোচ্চ ১৯ কেজি পর্যন্ত হয়েছে। তরমুজগুলোর গড় ওজন ১০ কেজি।

উচ্চ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পন্ন তরমুজের এই বীজের কোড নাম ‘তিয়ানলং ১৫০৮’। তবে কবে নাগাদ এ বীজ বাজারজাত করা হবে সে সম্পর্কে স্পষ্ট কোনো ধারণা দেয়নি প্রতিষ্ঠানটি।