মেইন ম্যেনু

এক বলে ২৮৬ রান! গল্প না সত্যি?

এক বলে কত রান হওয়া সম্ভব? নো বলে ছক্কা মারলে সাত রান। কিন্তু এক বলে ২৮৬ রান! এ তো শুধু অবিশ্বাস্যই নয়, অসম্ভবও বটে। এমনই একটি ‘ঘটনা’ জায়গা করে নিয়েছে ক্রিকেটে। যদিও সেটা সত্যি ঘটনা, নাকি গল্প তা নিয়ে রয়ে গেছে ধোঁয়াশা।

লন্ডনভিত্তিক পলমল গেজেট ১৮৯৪ সালের ১৫ জানুয়ারি প্রকাশ করেছিল সেই ‘ঘটনা’। ১৮৬৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়া রাজ্যের বানবেরিতে নাকি মুখোমুখি হয়েছিল ভিক্টোরিয়া ও একটি স্থানীয় দল। প্রথমে ব্যাট করেছিল ভিক্টোরিয়া। ইনিংসের প্রথম বলেই ভিক্টোরিয়ার ওপেনারের জোরালো শটে বল আটকে যায় মাঠের ভেতরেই থাকা একটা উঁচু গাছের ডালে।

স্থানীয় দলের ফিল্ডাররা ‘লস্ট’ বল ঘোষণা করার আবেদন জানিয়েছিলেন আম্পায়ারের কাছে। কিন্তু আম্পায়ারের যুক্তি ছিল, বল যেহেতু দেখা যাচ্ছে তাই এই ঘোষণা দেওয়া সম্ভব নয়। এদিকে দুই ব্যাটসম্যান দৌড় শুরু করে দিয়েছেন। আর কোনো উপায় না দেখে কুঠার দিয়ে গাছটা কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কুঠারও খুঁজে পাওয়া যায়নি।

তখন একজন বন্দুক নিয়ে এসেছিল। অনেকবার ব্যর্থ হওয়ার পর অবশেষে একটা গুলি গিয়ে লাগে বলে আর তা পড়ে যায় নিচে। ততক্ষণে দুই ব্যাটসম্যান নিয়ে ফেলেছিলেন ২৮৬ রান। ওই একটি বল খেলেই ইনিংস ঘোষণা করে দিয়েছিল ভিক্টোরিয়া। এরপর ম্যাচটা জিতেও নিয়েছিল সহজে।

তবে এই ম্যাচের সত্যতা নিয়ে সন্দিহান অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যম। এমন একটা অভিনব ঘটনা স্থানীয় কোনো পত্রিকায় ছাপা হয়নি। অথচ সুদূর ইংল্যান্ডের একটি পত্রিকা এ নিয়ে রিপোর্ট করায় সন্দেহটাকে উড়িয়ে দেওয়াও যাচ্ছে না। ওয়েস্টার্ন মেইল পত্রিকা তো ‘পুরোপুরি রূপকথা’ বলেই ঘোষণা করেছে সেই ঘটনাকে।

অঙ্কের হিসাবও ঘটনাটার ওপরে একটা প্রশ্নচিহ্ন ঝুলিয়ে দিতে পারে। একটানা ২৮৬ রান নিতে হলে ২৮৬X২২=৬২৯২ গজ দৌড়াতে হবে। মানে প্রায় সাড়ে তিন মাইল! দুই পায়ে প্যাড বেঁধে, না থেমে এতটা পথ একটানা দৌড়ানো কি সম্ভব? তার চেয়েও বড় কথা, সত্যিই কি এমন ঘটনা ঘটেছিল? নাকি এটা শুধুই গালগল্প। আজো এই রহস্যের সমাধান হয়নি।