মেইন ম্যেনু

এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয় অস্ট্রেলিয়ার

পরাজয়ের বৃত্তেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হোবার্টে প্রথম টেস্ট আড়াই দিনে হারের পর মেলবোর্নে দ্বিতীয় টেস্টও এক দিন বাকি থাকতেই হেরেছে ক্যারিবীয়রা। তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে এক ইনিংসসহ ২১২ রানে জয় পায় অজিরা। দ্বিতীয় টেস্টেও সেই দাপুটে ধারা বজায় রেখে ১৭৭ রানের জয় তুলে নিয়েছে স্টিভেন স্মিথের দল।

৩ উইকেটে ৫৫১ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়া। জবাবে ২৭১ রানে গুটিয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সুযোগ থাকা সত্ত্বেও ফলোঅন করায়নি অজিরা। তৃতীয় দিন শেষে ৩ উইকেটে ১৭৯ রান করা স্বাগতিকরা চতুর্থ দিন আর ব্যাটিংয়ে না নামলে জয়ের জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৪৬০ রান।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারালেও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওপরের সারির ব্যাটসম্যানরা দায়িত্ব নিয়ে ব্যাটিংয়ের চেষ্টা করছিলেন। তবে উইকেটে নিজেদের বেশিক্ষণ থিতু করতে পারছিলেন না।

রাজেন্দ্র চন্দ্রিকার ৩৭, ক্রেইগ ব্রেথওয়ইটের ৩১ আর ড্যারেন ব্রাভোর ২১ রানের পরও ১৫০ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিপদে পড়ে। দলীয় ১৫০ রানে পাঁচ উইকেটের পতন হলে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে দলের হাল ধরেন দিনেশ রামদিন ও জেসন হোল্ডার। শতরানের জুটিতে খেলা পঞ্চম দিনে নিয়ে যাওয়ার আশা জাগান হোল্ডার-রামদিন।

কিন্তু তাদের ১০০ রানের জুটি ভাঙেন মিশেল মার্শ। ব্যক্তিগত ৫৯ রানে উকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান রামদিনকে পিটার নেভিলের ক্যাচে পরিণত করেন মার্শ। রামদিন আউট হওয়ার পর দলীয় ২৭৪ রানে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক হোল্ডার (৬৮)। তার উইকেটটিও নেন অলরাউন্ডার মার্শ।

বাকি ব্যাটসম্যানরা ভালো করতে না পারায় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা। অজি বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ চারটি উইকেট নেন মার্শ। আর তিনটি উইকেট পান স্পিনার নাথান লিওন। দুই ইনিংসে সাত উইকেট নেওয়ার সুবাদে ম্যাচ সেরা হন লিওন।

রোববার (৩ জানুয়ারি) সিডনিতে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে।