মেইন ম্যেনু

এক রাতে আমি ১৪ জন পুরুষের সাথে শুয়েছিলাম

যুক্তরাজ্যের ম্যারি কালভার্ট নামের ৬৩ বছরের এক নারী তার যৌন জীবন সম্পর্কে অভিজ্ঞাতার কথা বর্ণনা দিয়েছেন দ্য গার্ডিয়ানের কাছে। সেখানে ৩,০০০ পূরুষের সাথে ঘুমানোর অভিজ্ঞতা বলেছেন। তার এই অভিজ্ঞতা জীবন সম্পর্কে মানুষের প্রথাগত ধারনাকে পাল্টে দিতে পারে। গার্ডিয়ানে প্রকাশিত তার অভিজ্ঞতার কিছুটা তুলে ধরা হলো।একরাতে আমি ১৪ জন পুরুষের সাথে শুয়েছিলাম এবং চেষ্টা করছিলাম এটা খুঁজে বের করতে যে, সারা জীবনে আসলে আমি কত জন পুরুষের সাথে শুয়েছি। সত্যিটা হচ্ছে সঠিক সংখ্যাটি আমার জানা নেই।

আমি গড়ে প্রতি বছর প্রায় ১০০ পুরুষের সাথে যৌন মিলন করেছি এবং এটা গত তিন দশক ধরে। আমার বয়স ৬৩ বছর এবং আমি বেঁচে থাকার তাগিদে যৌন মিলন করি না বরং এর প্রতি রয়েছে আমার গভীর আকর্ষণ। উপভোগ, সন্তুষ্টি এবং আনন্দের মধ্যে সময় কাটানোর জন্য একটি অসাধারণ উপায় হচ্ছে যৌনতার মধ্যে থাকা। অনেক নারীই ইয়োগা করতে পছন্দ করেন, অনেকে আবার ব্যাডমিন্টন খেলতে, কিন্তু আমি পছন্দ করি ভিন্ন ভিন্ন পুরুষের সাথে যৌন মিলন করতে।

আমি বিবাহিত। আমার বয়স যখন ১৫ বছর তখন থেকে আমি এবং আমার স্বামী ব্যারি এক সাথে রয়েছি। আমার ১৯ বছর বয়সের সময় আমরা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হই। আমাদের দুই নাতি রয়েছে এবং আমার স্বামীই আমার পৃথিবী। তবে যৌন মিলনকে আমরা কখনোই এরকমটি মনে করিনি যে, সেটা আমাদের দুজনের মধ্যেই আবদ্ধ রাখতে হবে। ৬০ বছর যাবত দু’জন দু’জনের সাথে যৌন মিলন করে যাব সেটাকে আমরা কখনোই প্রাকৃতিক বলে মনে করিনি। জীবন উপভোগের এবং নতুন কিছুর সাথে পরিচিত হওয়ার। আমার স্বামী অন্য নারীদের সাথে যৌন মিলন করে এবং এটাকে কখনোই আমি খারাপভাবে নেইনি, কারণ আমি মনে করি সে আমাকে খুবই ভালবাসে।

২৮ বছর পর্যন্ত আমাদের একটি রুটিন মাফিক জীবন ছিল এবং আমরা নিজেদের মধ্যেই যৌন মিলন করতাম। কিন্তু আমার স্বামী একদিন হঠাৎ তার এক সহকর্মীর কাছ থেকে একটি বহুগামীতার ম্যাগাজিন নিয়ে আসে এবং মজা করে বলে, আমাদের এটা পরীক্ষা করা উচিত। তখন আমি তাকে বোকার মতো কথা বলতে নিষেধ করি এবং সে কোনোদিনই এরকম কথা উচ্চারণ করেনি।

কিন্তু আমি ম্যাগাজিনটি দেখতে থাকি এবং ভাবি যে, এটা কতটাই মজার বিষয় হতো। অবশেষে আমি আমার ভাবনার বিষয়টি জানাই এবং আমরা ম্যাগাজিনে বহুগামী যুগলদের তালিকা থেকে এক যুগলের সাথে দেখা করি। ওই যুগলের বয়স ছিল প্রায় ৪০ বছর এবং তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিল।

এক শুক্রবার আমরা তাদের সাথে মিলিত হই। আমরা তখন খুব ঘাবড়ে গিয়েছিলাম তবে খুব উত্তেজিত ছিলাম। আমি বলেছিলাম, আমাদের একবার পরীক্ষা করে দেখা উচিত বিষয়টি কেমন কাটে এবং তা খুব ভালোই কেটেছিল। আমি তখন জনের সাথে মিলন করেছিলাম এবং ব্যারি করেছিল জনের স্ত্রীর সাথে।

এরপর থেকেই প্রতি সপ্তাহের ছুটিতেই আমরা কোনো এক যুগলের সাথে যৌন মিলনে লিপ্ত হতাম।

১৯৯৭ সালে আমরা একটি ক্লাব খোলার উদ্যোগ নেই এবং সফলভাবে ক্লাবটি চালাতে সক্ষম হই।