মেইন ম্যেনু

এটিএম কার্ড জালিয়াতিতে ক্ষমতাসীনরা : হাফিজ

এটিএম কার্ড জালিয়াতির ঘটনায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা জড়িত বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন আহমেদ। এই কারণে পুলিশ ঠিক মতো তদন্ত করতে পারছেনা বলেও দাবি করেন তিনি।

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় তিনি এই অভিযোগ তোলেন।

‘গণতন্ত্র ও স্বাধীন বিচার ব্যবস্থা’ শীর্ষক এই আলোচনা সভার আয়োজন করে ‘জিয়া নাগরিক ফোরাম’ নামে একটি সংগঠন।

হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার এ রাষ্ট্রকে ধ্বংস করে দিয়েছে। গণতন্ত্রের নামে লুণ্ঠনতন্ত্র চলাচ্ছে। তাদের কোনো জবাবদিহিতা নেই। এটিএম কার্ড জালিয়াতিতে বিদেশি নাগরিকের রিমান্ডে ক্ষমতাসীন দলের বড় বড় নেতাদের নাম এসেছে। তাই পুলিশ তদন্ত করতে সাহস পাচ্ছে না।’

বিএনপির আসন্ন ষষ্ঠ কাউন্সিলে গঠনতন্ত্রে বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হচ্ছে জানিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, সেখানে কিছু কিছু উপকমিটি গঠন করা হবে। এর মাধ্যমে জাতীয় ইস্যুর ওপর বিভিন্ন সেমিনার ও আলোচনা সভা করা হবে। এতে দলের নেতৃত্ব বাড়বে। তৃণমূল থেকে এসব উপকমিটিসহ জাতীয় কমিটিতের যোগ্যতা অনুযায়ী দায়িত্ব দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

পদ-পদবীর লোভ না করে দেশের স্বার্থে বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে মাঠে নামতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে হাফিজ উদ্দিন বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে রাজপথে আন্দোলন করে এ স্বৈরাচারী সরকারকে হটাতে হবে।’

বিএনপির কাউন্সিলের জন্য জায়গা চেয়ে আবেদন করা হলেও সরকার এতে অনুমতি না দিয়ে বরং বিভিন্নভাবে কাউন্সিল প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আগেই অনিয়ম শুরু হয়ে গেছে অভিযোগ করে হাফিজ বলেন, ‘ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন দিয়ে রাষ্ট্রক্ষমতা পরিবর্তন হয় না। অথচ বিএনপির প্রার্থীদের ১১৪টি ইউনিয়নে মনোনায়নপত্র জমা দিতে দেওয়া হয়নি। অনেক এলাকায় মনোয়ানপত্র বাতিল করা হয়েছে।’

বর্তমান সরকারের শাসনামলে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে গেছে দাবি করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ দেশকে মূর্খ জাতিতে পরিণত করছে। বিএনপি আমলের থেকে আওয়ামী লীগের আমলে বেশি পাশের হার দেখানোর জন্য খাতায় কিছু না লিখলেও পাশ করিয়ে দেওয়া হচ্ছে। পরবর্তীতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে ওই ছাত্রছাত্রীরা পাশ করতে পারে না।’

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু আলাপ আলোচনার মাধ্যমে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানান।

আওয়ামী লীগ বিরোধী দলে থাকলে গণতান্ত্রিক আর সরকারি দলে থাকলে ফ্যাসিস্ট আকার ধারণ করে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির এই নেতা।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সহ সম্পাদক এবি এম মোশাররফ হোসেন, এনপিপির প্রেসিডিয়াম সদস্য মঞ্জুর হোসেন ঈসা, কর্মজীবি দলের সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন সরদার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রনেতা নুরুজ্জামান প্রমুখ।