মেইন ম্যেনু

এবারের ঈদে রাস্তার কারণে যানজট হবে না

রাস্তার কারণে আসন্ন ঈদে কোনো যানজট হবে না জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সারাদেশের রাস্তার অবস্থা ভাল। তবে রাস্তায় গাড়ী বিকল হলে যানজট হতেই পারে।’

মঙ্গলবার দুপুরে আসন্ন ঈদ-উল-আজহা উপলক্ষে সড়কপথে যাত্রীদের যাতায়াত নির্বিঘ্ন রাখার লক্ষ্যে আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বেঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে সড়কপথে যাত্রীদের চলাচল নির্বিঘ্ন করতে হবে। জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কে উপর গরুর হাট বসানো যাবে না। কোনো ইজারা প্রদানও করা যাবে না। এই নির্দেশনা অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

রাজধানীর সায়েদাবাদ, মহাখালী, গাবতলী ও ফুলবাড়ীয়া বাস টার্মিনালে ৪টি আন্তঃসংস্থা ভিজিলেন্স টিম গঠন করা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, সরকারের নির্ধারিত ভাড়ার অতিরিক্ত ভাড়া আদায় রোধ, অতিরিক্ত যাত্রী বহন, যাত্রী হয়রানী বন্ধে এই টিম তদারকি করবে। বিআরটিএ, ডিএমপি, সিটি করপোরেশন, মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের প্রতিনিধি এই ভিজিলেন্স টিমে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ঈদের তিন দিন আগে ও ঈদের পরের দিন পর্যন্ত জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কে ট্রাক, কার্ভাড ভ্যান ও লরি চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। তবে কোরবানী গরুর ট্রাক, নিত্যপ্রয়োজনী পণ্যবোঝাই ট্রাক, ঔষুধের গাড়ি, পচনশীল দ্রব্যসামগ্রীর ট্রাক ও উৎপাদনমুখী পণ্য রপ্তানী পরিবহন চলাচল করতে পারবে। এছাড়া যাত্রীদের চলাচল নির্বিঘ্নে রাখতে সিএনজি স্টেশনগুলো ২২ সেপ্টেম্বর থেকে ৩০ সেপ্টেম্বও পর্যন্ত মোট ৯ দিন ২৪ ঘন্টা খোলা থাকবে।’

বৈঠকে সারাদেশে নিরাপদ সড়ক যোগাযোগ নিশ্চিত করতে বিআরটিএ সদর কার্যালয়ে সড়ক পরিবহন, মহাসড়ক বিভাগ, বিআরটিএ, বিআরটিসি এবং সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর এর কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে ঈদের তিন দিন আগে ও পরের দিন পর্যন্ত একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে বলে মন্ত্রী জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এবারের ঈদে যাত্রীদের কোনো ভোগান্তি হবে না। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক ৪ লাইনের উন্নতির কাজ প্রায় শেষ হয়েছে। ১৯২ কিলোমিটার সড়কের মধ্যে ১৪০ কিলোমিটার সড়ক নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। ১৪টি বাইপাস সড়কের মধ্যে ১২টি বাইপাস সড়কের কাজ শেষ হয়েছে।’

উত্তরবঙ্গের রাস্তা খুব ভাল দাবি করে পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী জোর দিয়ে বলেছেন, ‘শেরপুর, জামালপুর সড়কের অব্স্থা খুব ভাল। এবার সে রুটে কোনো ভোগান্তি হবে না। জাতীয় মহাসড়কে লক্কর-ঝক্কর বাস চলাচল করতে দেয়া হবে না।’

মন্ত্রী বলেন, ‘আগামী ২২ সেপ্টেম্বর থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৭ দিন ২৪ ঘন্টাব্যাপী রাজধানীর এলেনবাড়ীস্থ বিআরটিএর সদর দপ্তরে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ চালু রাখা হবে। নিয়ন্ত্রণ কক্ষের টেলিফোন নম্বও ৯১৩০৬৬২ ও মোবাইল নম্বও ০১৯৬৬৬২২০১৯। নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ফোকাল পারসন হিসেবে সার্বিক দায়িত্বে থাকবেন যুগ্ম সচিব মো. আব্দুল মালেক। তার মোবাইল নম্বর-০১৭৩০৭৮২৯৪৬।’

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘এবারের ঈদে সড়ক পথে যাতায়াত নির্বিঘ্ন রাখতে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার বিভাগ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ বিভাগ, বিদ্যুৎ বিভাগ, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ, সেতু বিভাগ ও সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ থেকে অনুরোধপত্র প্রেরণ করা হয়েছে।’